Inqilab Logo

শনিবার, ০২ জুলাই ২০২২, ১৮ আষাঢ় ১৪২৯, ০২ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের সাথে ‘কথিত’ বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত ৪ পুলিশ আহত, অস্ত্র উদ্ধার

প্রকাশের সময় : ২৭ এপ্রিল, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সংবাদদাতা : ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের সাথে কথিত বন্দুকযুদ্ধে জেলার শীর্ষ কুখ্যাত এক ডাকাত গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গেছে। গত সোমবার দিবাগত রাত ২টার দিকে সদর উপজেলার সুহিলপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এসময় ৪ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। উদ্ধার করা হয়েছে পাইপগান, গুলি, রামদা, ছুরি। নিহত ডাকাতের নাম আবদুল কাদির (৩৫)। সে সরাইল উপজেলার কালিকচ্ছ এলাকার নোয়াব মিয়ার ছেলে। তার বিরুদ্ধে সদর ও সরাইল থানায় ৬টি ডাকাতি, ১টি অস্ত্র, ২টি ধর্ষণ মামলা রয়েছে। সদর থানার ওসি (তদন্ত) মফিজ উদ্দিন জানান, শীর্ষ ডাকাত কাদিরের বিরুদ্ধে উল্লেখিত মামলা ছাড়াও হবিগঞ্জের মাধবপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর, আশুগঞ্জ, সরাইল থানায় একাধিক ডাকাতির মামলা রয়েছে। ডাকাতি শেষে বাড়ির নারীদের ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে। গত ৮ মার্চ রাতে কাদির সদর উপজেলার নাটাই উত্তর ইউনিয়নের থলিয়ারা গ্রামে এক প্রবাসীর বাড়িতে ডাকাতি শেষে গৃহবধূকে হাত-পা বেঁধে ধর্ষণ করে। এ সময় তাকে চিনে ফেলায় যৌনাঙ্গে ছুরি ঢুকিয়ে হত্যার চেষ্টা করে। এ ঘটনায় গৃহবধূ এখনো চিকিৎসাধীন আছেন। সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মঈনুর রহমান জানান, রাত ২টার সময় কুমিল্লা-সিলেট মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতির খবর পেয়ে টহল পুলিশ সুহিলপুর মৌলভীহাটি এলাকায় পৌঁছলে পুলিশকে লক্ষ্য করে ডাকাতরা গুলি ছোড়ে। এসময় পুলিশও আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায়। এসময় পুলিশ ২৫ রাউন্ড গুলি ছোড়ে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় পুলিশের সাথে ‘কথিত’ বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত নিহত ৪ পুলিশ আহত
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ