Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২২ নভেম্বর ২০১৮, ০৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ১৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

যুক্তরাষ্ট্রে এস কে সিনহার রাজনৈতিক আশ্রয় লাভ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৬ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

শনিবার বাংলাদেশের সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহাকে রাজনৈতিক আশ্রয় প্রদান করেছে যুক্তরাষ্ট্র। সে সাথে মার্কিন সরকার তাকে ইচ্ছেমতো যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস এবং কাজের অনুমতিও দিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের বাংলা সংবাদমাধ্যম ও অনলাইন মাধ্যমগুলো এ খবর প্রকাশ করেছে। অন্যদিকে দায়িত্বশীল কূটনৈতিক সূত্রগুলো সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়া সংক্রান্ত খবর নিশ্চিত করেছে।
বাংলাদেশের এ সাবেক বিচারপতি দেশে তার জীবনের ঝুঁকির কথা উল্লেখ করে গত ৩০ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন করেন। এর আগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর তার আত্মজীবনী ‘অ্যা ব্রোকেন ড্রিমঃ রুল অব ল, হিউমান রাইটস অ্যান্ড ডেমোক্র্যাসি’ প্রকাশিত হয়।
ওয়াশিংটনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে। একজন প্রধান বিচারপতি হিসেবে এখানে আসা এবং তারপর রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থনা আমার দেশ, সরকার ও মূল্যবোধ সম্পর্কে প্রশ্ন সৃষ্টি করে। কিন্তু আমার জীবনের নিরাপত্তা দেবে কে?
সূত্রমতে, গত সপ্তাহে একটি মার্কিন গবেষণা প্রতিষ্ঠান এস কে সিনহাকে নিয়ে আলোচনার আয়োজন করে। বিস্তৃত এবং একান্ত (ক্লোজ ডোর) ওই আলোচনায় মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্টের প্রতিনিধি, কংগ্রেস প্রতিনিধি, থিঙ্কট্যাঙ্ক এবং যুক্তরাষ্ট্রের নিরাপত্তায় কাজ করা সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা অংশ নেন। দীর্ঘ শুনানির পর শুক্রবার এস কে সিনহার রাজনৈতিক আশ্রয়ের আবেদন গৃহীত হয়।
এর আগে ওয়াশিংটন প্রেসক্লাবে বহুল আলোচিত ‘অ্যা ব্রোকেন ড্রিম’ বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে সিনহা জানিয়েছিলেন, তিনি যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয়ের জন্য পররাষ্ট্র দফতরে আবেদন করেছেন। তবে সূত্র জানায়, এস কে সিনহা এখনো তার ট্রাভেল ডকুমেন্ট হাতে পাননি। তিনি এর অপেক্ষায় রয়েছেন।
তিনি বলেন, এই দেশে (যুক্তরাষ্ট্র) আমার কোনো পরিচয় (স্ট্যাটাস) নেই। আমি শুধুমাত্র একজন আশ্রয়প্রার্থী। তাই আমি এখানে রাজনৈতিক আশ্রয় পাওয়ার জন্য আবেদন করেছি। তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি।
বইয়ের প্রকাশনা অনুষ্ঠানে সিনহা জানিয়েছিলেন, ব্রিটেনের হাউস অব কমন্স, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ বিভিন্ন দেশে তার আমন্ত্রণ রয়েছে। কিন্তু তিনি যেতে পারছেন না।
তিনি ওই অনুষ্ঠানে আরো বলেন, আমি নিরাপদ বোধ করছি না। আমি ভীত থাকি, ২৪ ঘণ্টা বাসাতেই থাকি। গোয়েন্দা সংস্থার কর্মকর্তারা আমার বাসা সব সময় মনিটরিং করে এবং যারা আমার বাসায় যায় তাদের ছবি তোলা হয়।
সম্প্রতি আইনমন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক বলেন, দেশে ফিরলে মামলার মুখোমুখি হতে হবে, এই ভয়ে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহা যুক্তরাষ্ট্রে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়েছেন। আদালতের মাধ্যমেই তাকে দেশে ফিরিয়ে আনার বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, এস কে সিনহা প্রায় বছর খানেক দেশের বাইরে অবস্থান করছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ