Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০৫ কার্তিক ১৪২৬, ২১ সফর ১৪৪১ হিজরী

ভর্তি পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে ঢাবি উত্তাল

ঢাবি ঘ ইউনিটের প্রশ্নফাঁস 0 অনশনরত আখতার মেডিক্যালে ভর্তি

বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

প্রশ্নপত্র ফাঁসের দায়ে বিতর্কিত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা পুনরায় নেয়া ও বর্তমান ফলাফল বাতিলের দাবিতে গতকাল সকালে একটি মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয় বিশ^বিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে। মানববন্ধন শেষে একটি বিক্ষোভ মিছিল রেজিস্ট্রার বিল্ডিং, ভিসির কার্যালয়, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অফিসসহ ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ জায়গাসমূহ প্রদক্ষিণ করে।
ফাঁস হওয়া প্রশ্নে নেয়া পরীক্ষা বাতিলসহ চার দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা উত্তপ্ত করে রাখে গতকালের ক্যাম্পাস। অন্যদিকে শিক্ষার্থীদের এসব দাবির সাথে একাত্মতা পোষণ করে বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদও শিক্ষার্থীদের সাথে তাদের সংগঠনের ব্যানার নিয়ে মিছিলে অংশগ্রহণ করে।
এ সময় তারা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি চার দফা দাবি উত্থাপন করে এবং তা বাস্তবায়ন করার আল্টিমেটাম দেয়। মানববন্ধন ও বিক্ষোভ মিছিল থেকে করা শিক্ষার্থীদের চার দফা দাবি হল- ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল বাতিল, পুনরায় পরীক্ষা নেওয়া, প্রশ্নফাঁসে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা, বিগত বছরগুলোতে ‘জালিয়াতির আশ্রয় নিয়ে’ ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার করা।
সাধারণ শিক্ষার্থীদের এমন দাবির পাশে এসে দাঁড়িয়েছে ক্যাম্পাসের ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগও। সাধারণ ছাত্রদের এসব দাবির প্রেক্ষিতে গতকাল দুপুরে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার অবস্থান জানিয়ে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেয়া হয়। সেখানে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকেও চার দফা দাবি তুলে ধরা হয়।
দাবিগুলো হলো- ১. যাচাই বাছাই সাপেক্ষে পরীক্ষা পুনরায় নেওয়া অথবা উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশেষ ভর্তি পরীক্ষার ব্যাপারে স্পষ্ট প্রশাসনিক সিদ্ধান্তে আসা। ২. ডিজিটাল জালিয়াতি বা প্রশ্নফাঁস বা যে কোন ধরনের অসদুপায় অবলম্বনকারীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রশাসনিক ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া। ৩. স্পষ্ট তথ্য-প্রমাণ সাপেক্ষে জালিয়াতি, প্রশ্নফাঁস বা অসদুপায়ের মাধ্যমে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের ছাত্রত্ব বাতিল ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া। ৪. আধুনিক, যুগোপযোগী ও মানসম্মত ভর্তি পরীক্ষার স্বার্থে শিক্ষাবিদ, সিনেট, সিন্ডিকেট, অংশীজন এবং ছাত্র সংগঠনগুলোর প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে পলিসি ডিবেটের মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষা পদ্ধতির সংস্কার করা। তবে সাধারণ শিক্ষার্থী ও ছাত্রলীগের এমন দাবির প্রেক্ষিতে এখনো কোন সাড়া মেলেনি বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসনের তরফ থেকে।
অন্যদিকে ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল ও পুনরায় পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে গত মঙ্গলবার থেকে রাজু ভাষ্কর্যের পাদদেশে অনশনরত বিশ^বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী আকতার টানা তৃতীয় দিনের মতো অনশনরত অবস্থায় গতকাল দুপুরে অসুস্থ হয়ে পড়েন।
বৃহস্পতিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো ভিসি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামাদ ও প্রক্টর অধ্যাপক ড. গোলাম রব্বানী, আইন অনুষদের ডিন অধ্যাপক রহমত উল্লাহ ও বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগরে সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসাইন আখতারের সাথে দেখা করে তার অনশন ভাঙ্গাতে চেষ্টা করে। সে সময় তারা তাকে ডাবের পানি খাইয়ে অনশন ভাঙ্গানোর চেষ্টা করলে সে হাত পা ছোড়াছুড়ি করতে থাকে। এক পর্যায়ে আকতার অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে তাৎক্ষণিক ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্তর করা হয়। সেসময় প্রক্টরসহ অন্যান্য শিক্ষকরাও তার সাথে মেডিকেলে যান এবং তার চিকিৎসার ব্যবস্থা করে দেন। আখতারের সাথে দেখা করে প্রক্টর রব্বানী আকতারের দাবিকে ‘স্বাগত জানিয়ে’ বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করার প্রতিশ্রুতি দেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ঢাবি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ