Inqilab Logo

সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৩ মাঘ ১৪২৮, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

পছন্দের শীর্ষে নর্দান জুট আগ্রহ হারাল আমান কটন

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ২১ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

গত সপ্তাহজুড়ে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের কাছে পছন্দের শীর্ষে ছিল ‘জেড’গ্রুপের প্রতিষ্ঠান নর্দান জুট ম্যানুফ্যাকচারিং। অন্যদিকে আগ্রহ হারানোর তালিকায় শীর্ষ স্থান দখল করেছে আমান কটন ফাইবার লিমিটেড। ফলে সপ্তাহজুড়ে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) এ কোম্পানিটির শেয়ার মূল্যে বড় ধরনের উত্থান ঘটেছে।

শেয়ার মূল্য বড় ধরনের উত্থান হওয়ায় বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার বিক্রি করতে চাননি। ফলে সপ্তাহজুড়ে নর্দান জুটের শেয়ার লেনদেন হয়েছে ৬ কোটি ৮৮ লাখ টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড়ে লেনদেন হয়েছে ১ কোটি ৩৭ লাখ টাকা। এদিকে কোম্পানিটির শেয়ার দাম সপ্তাহজুড়ে বেড়েছে ২৪ দশমিক ৬৮ শতাংশ। টাকার অংকে বেড়েছে ১০২ টাকা ৯০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম দাঁড়িয়েছে ৫১৯ টাকা ৯০ পয়সা, যা আগের সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ছিল ৪১৭ টাকা।

নর্দান জুটের পর গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের পছন্দের তালিকায় ছিল ‘জেড’গ্রুপের আর এক প্রতিষ্ঠান বিচ হ্যাচারি। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ২৩ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ। এর পরেই ছিল রিপাবলিক ইন্স্যুরেন্স। সপ্তাহজুড়ে কোম্পানিটির শেয়ার দাম বেড়েছে ১৭ দশমিক ৪৫ শতাংশ। এছাড়া গত সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহের শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় থাকা ‘জেড’গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ইমারেল্ড ওয়েলের ১৭ দশমিক ২৪ শতাংশ, আলহাজ টেক্স টাইলসের ১৪ দশমিক ৩১ শতাংশ, জেড গ্রুপের আর এক প্রতিষ্ঠান ইনফরমেশন সার্ভিসেসের ১৩ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ, শাহজালাল ইসলামী ব্যাংকের ১২ দশমিক ৬৪ শতাংশ, তসরিফা ইন্ডাস্ট্রিজের ১২ দশমিক ৪৪ শতাংশ, ‘জেড’গ্রুপের প্রতিষ্ঠান কে অ্যান্ড কিউ’র ১২ দশমিক শূন্য ৭ শতাংশ, সোনালী আঁশ ইন্ডাস্ট্রিজের ১১ দশমিক ৪৯ শতাংশ এবং ভিএফএস থ্রেড ডাইংয়ের ১১ দশমিক ১৬ শতাংশ দাম বেড়েছে।

গত সপ্তাহে পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ হারানোর তালিকায় শীর্ষ স্থান দখল করেছে আমান কটন ফাইবার লিমিটেড। বিনিয়োগকারীরা কোম্পানিটির শেয়ার কিনতে আগ্রহী না হওয়ায় সপ্তাহজুড়েই দাম কমেছে। এতে শেয়ারের দামে বড় ধরনের পতন হয়েছে। আর বিনিয়োগকারীদের একটি অংশ কোম্পানিটির শেয়ার কিনতে আগ্রহী না থাকায় সপ্তাহজুড়ে লেনদেন হয়েছে ২ কোটি ৬০ লাখ টাকা। আর প্রতি কার্যদিবসে গড় লেনদেন হয়েছে ৫২ লাখ ১৫ হাজার টাকা। অপরদিকে শেয়ারের দাম কমেছে ১২ দশমিক ৬০ শতাংশ। টাকার অংকে প্রতিটি শেয়ারের দাম কমেছে ৭ টাকা ৭০ পয়সা। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস শেষে কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ার দাম দাঁড়িয়েছে ৫৩ টাকা ৪০ পয়সায়, যা আগের সপ্তাহ শেষে ছিল ৬১ টাকা ১০ পয়সা। ডিএসইর তথ্য অনুযায়ী, এ কোম্পানিটির মোট শেয়ারের ৭২ দশমিক ২০ শতাংশ রয়েছে উদ্যোক্তা ও পরিচালকদের হাতে। বাকি শেয়ারের মধ্যে ১৬ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ রয়েছে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের কাছে। আর প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে আছে ১১ দশমিক ৫২ শতাংশ এবং বিদেশিদের কাছে আছে দশমিক ২০ শেয়ার।

এদিকে শেষ সপ্তাহে আমান কটনের পরেই বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ হারানোর তালিকায় ছিল সামিট পাওয়ার। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম কমেছে ১২ দশমিক ৫৫ শতাংশ। এর পরেই রয়েছে ইস্টার্ন হাউজিং। সপ্তাহজুড়ে এ কোম্পানিটির শেয়ার দাম কমেছে ১১ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

এ ছাড়া শেষ সপ্তাহে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ হারানোর শীর্ষ ১০ কোম্পানির তালিকায় থাকা আর্গন ডেনিমসের ১০ দশমিক ৪৭ শতাংশ, শাহিনপুকুর সিরামিকের ১০ দশমিক ২৪ শতাংশ, ইমাম বাটনের ৯ দশমিক ৭৭ শতাংশ, রহিম টেক্সটাইলের ৯ দশমিক ৬৭ শতাংশ, স্টাইল ক্রাফটের ৯ দশমিক ১৯ শতাংশ, ফাইন ফুডের ৮ দশমিক ৮৫ শতাংশ এবং ম্যাকসন স্পিনিংয়ের ৮ দশমিক ৭০ শতাংশ দাম কমেছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডিএসই


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ