Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ১৮ জুন ২০১৯, ৪ আষাঢ় ১৪২৬, ১৪ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

চট্টগ্রামে নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহের দাবিতে বিএনপির স্মারকলিপি

প্রকাশের সময় : ২৬ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চট্টগ্রাম ব্যুরো : মহানগরীতে চলমান গ্যাস সংকটের দ্রæত অবসানের লক্ষ্যে ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি। গতকাল (সোমবার) কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবরে দেয়া স্মারকলিপিতে এ দাবি জানানো হয়। স্মারকলিপি প্রদান শেষে নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা: শাহাদাত হোসেন বলেন, চট্টগ্রাম বন্দর নগরী বাণিজ্যিক রাজধানী। বন্দর নগরীতে গড়ে উঠেছে শত শত শিল্প কারখানা। চট্টগ্রাম ন্যায্য অধিকার থেকে বঞ্চিত। ইতিমধ্যে গ্যাস সংকটের কারণে চট্টগ্রামের অনেক শিল্প কারখানা বন্ধ হয়ে গেছে। বাসাবাড়ীতেও গ্যাস সরবরাহ নেই। নগরীতে প্রায় ৬ লক্ষ বার্নারের মধ্যে ৪ লক্ষ বার্নারের গ্যাস পাওয়া যাচ্ছে না। কিন্তু কিছু কিছু এলাকায় ক্ষণিকের জন্য গ্যাস আসে আবার চলে যায়। এতে বরং কষ্ট বেড়ে যায়। ফলে আবাসিক ও শিল্প খাতের গ্রাহকরা চরম দুর্দশার শিকার হতে হচ্ছে।
ডা: শাহাদাত হোসেন বলেন, চট্টগ্রামের চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস সরবরাহ না করে চট্টগ্রামের সাথে বিমাতাসুলভ আচরণ করছে। সরকার বারবার গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধি করছে। কিন্তু জনগণের চাহিদা অনুযায়ী গ্যাস সরবরাহ দিতে পারছে না। সারা দেশে গ্যাসের চাহিদা রয়েছে ২৭০০ মিলিয়ন ঘনফুট, চট্টগ্রামে ৪৫০-৫০০ মিলিয়ন ঘনফুট, চাহিদার বিপরীতে গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে ২২০-২৩০ মিলিয়ন ঘনফুট। অথচ ঢাকাতে ১৭২০ মিলিয়ন ঘনফুট, কুমিলায় ৩৭০ মিলিয়ন ঘনফুট, সিলেটে ২৬০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করা হচ্ছে। চট্টগ্রামের প্রতি বিমাতাসূলভ আচরণ করছে সরকার। চট্টগ্রামে পর্যাপ্ত পরিমাণ গ্যাস সরবরাহ না হওয়ার কারনে বিরাজমান গ্যাস সংকটহেতু চট্টগ্রাম শিল্প খাতে উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে এবং বিদেশী ক্রেতাদের চাহিদা মোতাবেক পণ্য রপ্তানীতে বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। তাছাড়া মহানগরী গ্যাস নির্ভর হাজার হাজার বাসাবাড়ি, রেস্তোঁরা এবং খাবারের দোকানগুলোতে গ্যাসের অভাবে রান্না করা যাচ্ছে না। বিশেষ করে শিশু, বয়স্ক নারী-পুরুষ, ক্লিনিক ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রোগী সবচেয়ে বেশী সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। চাহিদার তুলনায় অর্ধেক গ্যাস সরবরাহের কারণে শিল্পায়ন বন্ধ রয়েছে। চলমান শিল্প কারখানাগুলোর অবস্থাও নাজুক। এ অবস্থায় গ্যাসের সরবরাহ কম হওয়ায় উদ্ভুত পরিস্থিতিতে চট্টগ্রাম মহানগরের আবাসিক ও শিল্পসহ সর্বক্ষেত্রে চরম অচল অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। তিনি চট্টগ্রামে জরুরী ভিত্তিতে ১০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করার দাবি জানান। অন্যথায় চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপি জনগণের অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে তীব্র গ্যাস সংকট নিরসন না হলে হরতাল অবরোধ সহ লাগাতার কঠিন কর্মসূচী ঘোষণা করবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মোঃ আলী, ইসকান্দর মির্জা, কামরুল ইসলাম, গাজী মুহাম্মদ সিরাজ উলাহ, শাহ আলম, নূর হোসেন, এ কে এম পেয়ারু, জিয়াউর রহমান জিয়া, মাহমুদা সুলতানা ঝর্ণা, আসাদুর রহমান টিপু, আবু বক্কর সিদ্দিকী, ফজলুল হক জাবেদ, আমিনুল ইসলাম, এম এ হাশেম, সালাউদ্দিন সাহেদ প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ