Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার ১৯ জুলাই ২০১৯, ০৪ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৫ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

মধ্যপ্রাচ্য হতে পারে ‘নতুন ইউরোপ’

পাঁচ বছরের মধ্যে সউদী আরব হবে সম্পূর্ণ ভিন্নতর : সউদী যুবরাজ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৫ অক্টোবর, ২০১৮, ৯:৫৪ পিএম | আপডেট : ১২:৫৮ এএম, ২৬ অক্টোবর, ২০১৮

৫শ’ বিলিয়ন ডলারের নিওম ও ৩৩৪ বর্গকিলোমিটার বিস্তৃত কিদ্দিয়া প্রকল্পে বিনিয়োগে আগ্রহী বিশ্বের প্রসিদ্ধ সব ব্র্যান্ড

 

মধ্যপ্রাচ্য হতে পারে ‘নতুন ইউরোপ’ এমন আশা পোষণ করে সউদী যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন, তিনি অঞ্চলটিকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ দেখতে চান। তিনি গত বুধবার রিয়াদে ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট ইনিশিয়েটিভ ফোরামে ভিড়ে ঠাঁসা শ্রোতাদের উদ্দেশে বলেন, তিনি এই অঞ্চলের অর্থনৈতিক রূপান্তর তার জীবনকালের মধ্যে ঘটতে দেখতে চান।
তিনি বলেন, তার ‘যুদ্ধ’ মধ্যপ্রাচ্যের পূর্ব গৌরব ফিরিয়ে আনছে। ‘আমি বিশ্বাস করি নতুন ইউরোপ হবে মধ্যপ্রাচ্য, -বলেন প্রিন্স মোহাম্মদ। ‘পাঁচ বছরের মধ্যে সউদী আরবের রাজতন্ত্র হবে সম্পূর্ণ ভিন্ন।’
অর্থনৈতিক ও সামাজিক সংস্কারের জন্য সউদী যুবরাজ সউদী আরবের ভিশন-২০৩০ পরিকল্পনা পরিচালনা করছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা আগামী পাঁচ বছরে সফল হলে অন্যান্য দেশ আমাদের সাথে যোগ দেবে’। ‘এমনকি কাতারও, এর সাথে আমাদের পার্থক্য সত্তে¡ও একটি শক্তিশালী অর্থনীতি রয়েছে এবং এটি পাঁচ বছরের মধ্যে হবে সম্পূর্ণ ভিন্ন’।
যুবরাজ বলেন, সউদী আরব ইতিমধ্যেই নিজস্ব অর্থনীতির বিকাশের জন্য ‘খুব বড় পদক্ষেপ’ গ্রহণ করেছে। তিনি বলেন, ‘আমাদের তেল বহির্ভূত আয় প্রায় তিনগুণ হয়েছে’।
প্রিন্স মোহাম্মদ বলেন, দেশটি তার উচ্চাকাক্সক্ষী ভিশন-২০৩০ সংস্কার পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাবে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, এ বছর অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হবে ২.৫ শতাংশ এবং পরবর্তী বছর তা আরো বৃদ্ধি পাবে।
তিনি সউদী আরবের তেল নির্ভর অর্থনীতির রূপান্তর, আরও অবকাঠামো নির্মাণ এবং সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের সকল প্রকল্প এগিয়ে যাচ্ছে, সংস্কার এগিয়ে যাচ্ছে, চরমপন্থার বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ এগিয়ে যাচ্ছে, সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আমাদের যুদ্ধ এগিয়ে যাচ্ছে ... কেউ আমাদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করুক না কেন, আমাদের প্রচেষ্টা বন্ধ করব না’।
সরকারি তথ্য অনুযায়ী, অশোধিত তেলের উচ্চমূল্য ও তেল বহির্ভূত অর্থনীতির স¤প্রসারণে সউদী আরবের অর্থনীতি এক বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে দ্বিতীয় ত্রৈমাসিকে দ্রæততম গতিতে বৃদ্ধি পেয়েছে।
যুবরাজ দুবাইয়ের শাসক শেখ মোহাম্মদ বিন রাশিদের প্রশংসা করেন, যিনি তার ভাষায়, মধ্যপ্রাচ্য সমাজের জন্য একটি মান নির্ধারণ করেছেন। বাহরাইনের যুবরাজ সালমান বিন হামাদ ও লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ হারিরির সাথেও প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান মঞ্চে বসে কথা বলেন।
যুবরাজ সালমান বলেন, সউদী আরবের প্রবৃদ্ধি পুরো অঞ্চলের জন্য ভালো ছিল। সউদী আরব আমাদের অঞ্চলের প্রবৃদ্ধির চালিকা শক্তি এবং দেশটির সাফল্য আমাদের উপর প্রতিফলিত হবে,’ বলেন তিনি।
লেবাননে নতুন সরকার গঠনের গুরুত্ব সম্পর্কে সাদ হরিরি বলেন - তিনি স্বীকার করেন যে, কিছু সময় লাগবে। তিনি বলেন, ‘আমরা এমন একটি সরকার গঠনের অপেক্ষায় আছি যা লেবাননের জনগণের চাহিদা ও প্রত্যাশা পূরণ করবে’।
গত বছর সউদী রাজধানীতে হরিরিকে আটকের অভিযোগ সম্পর্কে প্রিন্স মোহাম্মাদ হাস্যরস করেন এবং বলেন, লেবাননের প্রধানমন্ত্রী শিগগরিই সউদী আরব ছেড়ে চলে যাবেন।
যুবরাজ বলেন, ‘লেবাননের প্রধানমন্ত্রী সাদ দুই দিন ধরে সউদীতে অবস্থান করছেন, তাই আশাকরি কেউ গুজব ছড়াবে না যে, তিনি অপহৃত হয়েছেন’।
লোহিত সাগর প্রকল্পে হবে ৫০টি হোটেল
সউদী আরবের লোহিত সাগর প্রকল্পে ৫০টি হোটেল অংশ নেবে, যার জন্য আগামী কয়েক মাসে বিনিয়োগ অংশীদারদের নিয়োগ দেওয়া হবে। উচ্চ পর্যটন উন্নয়নের পরিকল্পনা, যা লোহিত সাগর উপকূলে ৫০টি দ্বীপপুঞ্জ বিস্তৃত করবে, এতে প্রকৃতির রিজার্ভ এবং ঐতিহ্যবাহী স্থান অন্তর্ভুক্ত থাকবে।
লোহিত সাগর ডেভেলপমেন্ট কোম্পানির সিইও জন পাগানো বলেন, আগামী বছর প্রকল্পটি শুরু হবে এবং ২০২২ সালে প্রথম পর্যায়টি চালু করার লক্ষ্য নির্ধারিত হবে ।
রিয়াদের ভবিষ্যত বিনিয়োগ উদ্যোগ (এফআইআইআই) ফোরামের পাশাপাশি আরব নিউজকে তিনি বলেন, ‘এই প্রকল্পটিতে অনেকগুলো হোটেল হতে পারে - সম্ভবত ৪০ বা ৫০টি’।
‘বাজারে বিদ্যমান সব বিলাসবহুল ব্র্যান্ডের প্রতিনিধিত্ব থাকবে এই প্রকল্পে এবং আরো কিছু নতুন ব্র্যান্ড যোগ হবে যারা বর্তমানে নেই’। ২০১৯ সালে নির্মাণ কাজ শুরু করার জন্য মাস্টারপ্ল্যান শিগগিরই সম্পন্ন করা হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
‘আমরা ২০২২ সালে চালু করব। প্রথম পর্যায়ের প্রকল্পটা কতটা বড় হবে তা এখনই চূড়ান্ত করছি না, তবে এটিতে আরো ১০ বা তারও বেশি হোটেল সংযুক্ত হতে পারে।
সউদী আরবের নিজস্ব তহবিল দ্বারা প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। পাগানো বলেন, ‘অনেক লোক (ইতিমধ্যে) ইতিমধ্যেই আমাদের পাশাপাশি সহ-বিনিয়োগকারী হবার আশা নিয়ে এগিয়ে এসেছে।’ তিনি বলেন, কোম্পানি চলতি বছরের শেষ দিকে এবং ২০১৯ সালের গোড়ার দিকে ‘সক্রিয়ভাবে’ এই বিনিয়োগকারীদের সন্ধান শুরু করবে।
এফআইআই ইভেন্টকে সম্বোধন করে পাগানো বলেন, লোহিত সাগর প্রকল্পটি ৩৫ হাজার লোকের কর্মসংস্থান করবে বলে আশা করা হচ্ছে। টেকসই এবং ইকোবান্ধব উল্লেখ করে পেগানো বলেন যে, এটিকে ‘ভালোর জন্য একটি শক্তি’ হিসাবে অভিহিত করা হয়েছে। তিনি এফআইআই ইভেন্টে ‘গিগাপ্রজেক্ট’ অধিবেশনে বক্তৃতার সময় এসব কথা বলেন। গতকাল অধিবেশনটি শেষ হয়েছে।
অন্যান্য প্রকল্পগুলির মধ্যে রয়েছে ৫০০ বিলিয়ন ডলারের নিওম উন্নয়ন এবং রিয়াদের বাইরে কিদ্দিয়া প্রকল্প। নিওমের প্রধান নির্বাহী নজমি আল-নাসর বলেন, ইস্তাম্বুলের সউদী কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাসোগীর হত্যার ঘটনায় কিছুটা বাধাগ্রস্থ হলেও সম্ভাব্য অংশীদারদের সঙ্গে আলোচনা চলছে।
‘গত কয়েক বছরে আমরা যেসব অংশীদারদের সাথে কথা বলছিলাম তাদের সঙ্গে আমি গত কয়েক দিনের বৈঠক করেছি। অনুভূতি হচ্ছে ‘এগিয়ে চল’, ‘আল-নাসরি এফআইআই-এর শ্রোতাদেরকে জানান।
কিদ্দিয়ার প্রধান নির্বাহী মাইকেল রেইনিংয় নিশ্চিত হয়েছেন যে, ৬টি প্রসিদ্ধ ব্র্যান্ড একটি থিম পার্ক খোলার পরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। কিদ্দিয়া প্রকল্পটি হতে যাচ্ছে ৩৩৪ বর্গকিলোমিটার এলাকা জুড়ে বিস্তৃত। সূত্র : আরব নিউজ।



 

Show all comments
  • মাহবুব ৮ নভেম্বর, ২০১৮, ১:৫৫ এএম says : 0
    এখানে আপনি আপনার মন্তব্য করতে পারেন হতে পারে অনেক কিন্তু বাস্তবতা বিশ্লেষণ কি বলে,তা কি অস্বীকার করা যাবে ।মিতব্যয়ী,সততা,দক্ষতা ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা টেকসই অর্থনীতির মূল ভিত্তি ।অথচ এ সবের শূণ্যতা মধ্যপ্রাচ্যের পরিলক্ষিত ।কোটি-কোটি নিরাপরাথ বনি আদমের আর্তচিৎকার যেখানে আকাশ-বাতাস ভারি করে,বৈশ্বিক সমস্যার উত্তাপে ঘৃত ছিটিয়ে যাচ্ছে,সেখানে অর্থনীতির বিলাসবিভোর স্বপ্ন কেমন জানি কষ্টকর মনে হচ্ছে ।ব্যথিত,বঞ্চিত,অসহায়,ক্ষতবিক্ষত মানব হতে যে লাভা নির্গত হবে,তা নিয়ন্ত্রণের উপায় খোঁজাই বর্তমান আসল কাজ ।এমন কি বিশ্বের জন্য ধারনার চেয়েও দ্রুত সংকট সৃষ্টির সহায়ক উপাদান জীবন্ত হতে পারে বলে মনে হয় ।আল্লাহ উত্তম জানেন ।আমরা ভুলও অনুভব করতে পারি ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী যুবরাজ


আরও
আরও পড়ুন