Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

সউদী আরবের বিরুদ্ধে ইইউ’র অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ অক্টোবর, ২০১৮, ৪:৫৪ পিএম

সাংবাদিক জামাল খাশোগি হত্যাকাণ্ডের প্রতিক্রিয়ায় সউদী আরবের বিরুদ্ধে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞাসহ হত্যাকাণ্ডের সন্দেহভাজনদের বিরুদ্ধে আলাদা আলাদা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করতে যাচ্ছে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন। বৃহস্পতিবার ইউরোপীয় পালামেন্টে নিষেধাজ্ঞার প্রস্তাব পাস হয়। উল্লেখ্য, ইউরোপীয় পার্লামেন্টের পাস হওয়া প্রস্তাবের আইনগত ভিত্তি নেই। পাস হওয়া প্রস্তাব মানার ক্ষেত্রে ইইউ-এর সদস্য রাষ্ট্রগুলোর জন্য কোনও আইনগত বাধ্যবাধকতা থাকে না।
খাশোগির হত্যাকাণ্ড নিয়ে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে প্রস্তাব পাসের পর দেওয়া বিবৃতিতে বলা হয়েছ, ‘সউদী আরব থেকে দেওয়া ব্যাখ্যা এখন পর্যন্ত বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জনে ব্যর্থ হয়েছে। খাশোগির হত্যাকাণ্ড সউদী আরবে মানবাধিকারকর্মী, নারী অধিকারকর্মী, আইনজীবী, সাংবাদিক, লেখক ও ব্লগারদের ওপর ধারাবাহিক নিপীড়নের অংশ।’
কয়েকদিন আগেই প্রথম ইউরোপীয় দেশ হিসেবে সউদী আরবে অস্ত্র বিক্রি বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছিলো জার্মানি। রবিবার চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা ম্যার্কেল বলেছিলেন, ‘খাশোগির হত্যাকাণ্ডের ঘটনার পর বর্তমান পরিস্থিতিতে অস্ত্র বিক্রি সম্ভব না।’ যুক্তরাষ্ট্রের পর ব্রিটেন ও ফ্রান্সের কাছ থেকেই সবচেয়ে বেশি অস্ত্র কেনে সউদী আরব। দুই দেশই খাশোগি হত্যাকাণ্ড নিয়ে সউদী আরবের সমালোচনা করেছে। তবে এখনও জার্মানির মতো অস্ত্র বিক্রি বন্ধের ঘোষণা দেয়নি তারা। যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক বাণিজ্য বিষয়ক দফতরের মতে, সউদী আরবের কাছ গত বছর ১৪০ কোটি ডলারের অস্ত্র বিক্রি করেছে তারা। বাস্তাবে এর পরিমাণ আর বেশি হতে পারে। আর ফ্রান্স বিক্রি করছে ১৪৭০ কোটি ডলারের অস্ত্র। ইইউর এই প্রস্তাব পাশের পর ফরাসি প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাখো ও ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা দুজনই সউদী বাদশাহর সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী আরব

২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ