Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার ২১ জুলাই ২০১৯, ০৬ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৭ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।

চীনা জোটের টাকা সদস্যদের বুঝিয়ে দিচ্ছে ডিএসই

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৩০ অক্টোবর, ২০১৮, ৮:৩২ পিএম

কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছ থেকে পাওয়া টাকা সদস্যদের বুঝিয়ে দিচ্ছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। মঙ্গলবার (৩০ অক্টোবর) বিকেল থেকে সদস্যদের চেক দেয়া শুরু হয়েছে বলে ডিএসই’র দুই পরিচালক নিশ্চিত করেছেন। ডিএসইর ২৫০ সদস্যকে দুই ভাগে এ চেক দেয়া হচ্ছে। এদিকে এক অংশের সদস্যদের পাওনা টাকা থেকে কোনো ট্যাক্স কাটা না হলেও অপর অংশের সদস্যদের টাকা থেকে ৫ শতাংশ হারে ক্যাপিটাল গেইন ট্যাক্স কাটা হচ্ছে। ট্যাক্স কাটা হচ্ছে না ডিএসইর এমন সদস্য রয়েছেন ৩৬ জন। এ ৩৬ সদস্যের প্রত্যেকে তিন কোটি ৭৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা করে পাচ্ছেন। বাকি ২১৪ সদস্য পাচ্ছেন তিন কোটি ৫৯ লাখ ৮৬ হাজার টাকা।

ডিএসইর পরিচালক শরিফ আতাউর রহমান বলেন, যারা প্রথম দিকে সদস্য পদ কিনেছেন তাদের লেগেছিল এক লাখ টাকা। কিন্তু পরবর্তীতে সদস্য পদ কিনতে খরচ হয় ৩২ কোটি টাকার ওপরে। ‘৩২ কোটির ওপরে খরচ করে সদস্য পদ কেনাদের কোনো ক্যাপিটাল গেইন হয়নি। বরং তাদের আরও লোকসান হয়েছে। এমন সদস্য রয়েছে ৩৬ জন। সুতরাং এ ৩৬ সদস্যের কাছ থেকে কোনো ট্যাক্স কাটা হচ্ছে না। কিন্তু এক লাখ টাকায় সদস্য পদ কেনাদের ক্যাপিটাল গেইন হয়েছে। যে কারণে তাদের পাওনা থেকে পাঁচ শতাংশ হারে ট্যাক্স কেটে রাখা হচ্ছে।’

ডিএসই’র পরিচালক মিনহাজ মান্নান ইমন বলেন, কৌশলগত বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে পাওয়া টাকা সদস্যদের বুঝিয়ে দেয়া শুরু হয়েছে। যাদের ট্যাক্স টাকা হচ্ছে না তারা প্রায় তিন কোটি ৮০ লাখ টাকা করে পাচ্ছেন। আর যাদের ট্যাক্স টাকা হচ্ছে তারা পাচ্ছেন তিন কোটি ৬০ লাখের মতো।

ডিএসই’র কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনের দুই প্রতিষ্ঠান শেনঝেন ও সাংহাই স্টক এক্সচেঞ্জ কনসোর্টিয়াম (জোট) ডিএসইর ২৫ শতাংশ শেয়ারের বিপরীতে ৯৬২ কোটি টাকা জমা দেয়। এরমধ্যে সরকারি কোষাগারে স্ট্যাম্প ডিউটি বাবদ ১৫ কোটি টাকা জমা দেয় ডিএসই। বাকি ৯৪৭ কোটি টাকা সদস্য ব্রোকারদের পাওয়ার কথা।

কিন্তু কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছে শেয়ার বিক্রির বিপরীতে ক্যাপিটাল গেইন হওয়ায় ১৫ শতাংশ ট্যাক্সের বিষয় চলে আসে। এ ট্যাক্স ছাড় চেয়ে অর্থমন্ত্রীর কাছ আবেদন করা হলে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের শর্তে ১০ শতাংশ ট্যাক্স ছাড়া দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। বেশ কিছুদিন ঝুলে থাকার পর মঙ্গলবার তা অনুমোদন করে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। এনবিআরের এ সিদ্ধান্ত হাতে পাওয়ার পরেই সদস্যদের চেক দেয়া শুরু করে ডিএসই।

এদিকে কৌশলগত বিনিয়োগকারীর কাছ থেকে পাওয়া টাকা সদস্যদের বুঝিয়ে দেয়ায় তা বাজারে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করছেন ডিএসইর সাবেক সভাপতি আহসানুল ইসলাম টিটু। তিনি বলেন, সদস্যদের আজ থেকে চেক দেয়া হচ্ছে, কাল থেকেই হয়তো এ টাকা পুঁজিবাজারে বিনিয়োগ শুরু হয়ে যাবে। এটা বাজারে অবশ্যই ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে। বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, টাকা বাজারে আসলে ইতিবাচক প্রভাব পড়বে। তবে কেউ যেন পেনিক হয়ে ক্ষতিগ্রস্ত না হয়।

চীনা জোটটিকে ডিএসইর কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চলতি বছরের ৩ মে অনুমোদন দেয়া নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিএসইসি। বিএসইসির অনুমোদনের পর কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে গত ১৪ মে চীনা জোটের সঙ্গে চুক্তি সই করে ডিএসই। ওই চুক্তি অনুযায়ী, কৌশলগত বিনিয়োগকারী হিসেবে চীনা জোট ডিএসইর ২৫ শতাংশ বা ৪৫ কোটি ৯ লাখ ৪৪ হাজার ১২৫টি শেয়ার কিনে নিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডিএসই

২৭ মার্চ, ২০১৯
২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ