Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

মেকআপসহ ঘুম!

ফেরদৌসী রহমান | প্রকাশের সময় : ৩১ অক্টোবর, ২০১৮, ১২:১৪ এএম

মেকআপ করার প্রধান উদ্দেশ্য হল আমাদের চেহারার খুঁতগুলো ঢেকে আমাদের চেহারার প্লাসপয়েন্ট গুলো হাইলাইট করা। কিন্তু মেকআপ করার সময় যতটা উৎসাহ থাকে আমাদের মধ্যে , দিন শেষে মেকআপ পরিষ্কার করার ব্যাপারে তেমন আগ্রহ আমাদের থাকেনা। এর ফলে স্থায়ীভাবে আপনার ত্বকের ক্ষতি হতে পারে। জেনে নিন মেকআপ না তুলে ঘুমালে কী কী ক্ষতি হতে পারে।

১। চোখের মেকআপ না তুলে ঘুমিয়ে পড়লে চোখের সমস্যা দেখা দিতে পারে। চোখে মাসকারা কিংবা আইলাইনার নিয়ে নিয়মিত ঘুমাতে থাকলে চোখের পাতার তেলগ্রন্থিগুলো বন্ধ হয়ে যায়। এমনকি মাসকারার কারণে চোখের পাতায় ছোট ছোট ফুসকুড়ি বা সিস্ট হতে পারে। এঅবস্থায় সেখানে ব্যাকটেরিয়া জন্ম নেয় অনায়াসেই। চোখের জ্বালাপোড়াসহ বিভিন্ন রকমের যন্ত্রণা তৈরি হয় । এক্ষেত্রে চোখ ফুলেও যায় অনেক সময়।
২। মেকআপ না তুলে ঘুমিয়ে পড়লে ত্বকের রোমকূপ আটকে যায়। সারা দিনের ছোটাছুটিতে বাইরের ধুলাবালুসহ সব ধরনের জীবাণুই আপনার ত্বকে ভর করে। তার ওপর আপনি যখন মেকআপ নিয়ে ঘুমিয়ে পড়ছেন, তখন ওই জীবাণুগুলো আটকা পড়ে যাচ্ছে আপনার ত্বকে। তাদের বের হওয়ার সুযোগ তো দিলেনই না, বরং যেন পথটা আরও জোর করে বন্ধ করে রাখলেন। এতে আপনার ত্বকে বলিরেখা পড়তে থাকবে খুব সহজেই। আর অকালেই যেন বয়সটাও বাড়িয়ে দেবে। দেখা দেবে ব্রনের সমস্যা,এমনকি ব্রনের দাগও পড়ে যেতে পারে। ত্বক রুক্ষ এবং নির্জীব হয়ে পড়ে।
৩। শুধু লিপস্টিক ভালোভাবে না তুলে ঘুমাতে গেলেও সমস্যা হতে পারে। লিপস্টিকে থাকা উপাদানগুলো ঠোঁট শুষ্ক করে ফেলে। আর লিপস্টিকের উপাদানগুলোর কারণে ঠোঁটের আশেপাশে ডেড সেল বা মৃত কোষ দেখা দিতে পারে।
মাসে অন্তত দুবার স্ক্রাবার দিয়ে মুখ পরিষ্কার করে নেবেন । আমাদের চোখের চার পাশের ত্বক অনেক নরম ও স্পর্শকাতর থাকে। তাই চোখের মেকআপ আলতো করে মুছে ফেলবেন। চোখের মেকআপ তোলার জন্য বিশেষ মেকআপ রিমুভার পাওয়া যায়। সেটাই ব্যবহার করুন কিংবা এক টুকরো তুলোতে লোশন নিয়ে চোখের চারপাশ হালকা করে ম্যাসাজ করে চোখের মেকআপ তুলে নিন।উজ্জ্বল, নিখুঁত ত্বক চাইলে অবশ্যই রাতে মেকআপ তুলে তারপর ঘুমাতে হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর