Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৮ আশ্বিন ১৪২৬, ২৩ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

পাক-চিন বাস পরিষেবায় ভারতের বিরোধিতা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:৪৮ পিএম

পাকিস্তান ও চিনের মধ্যে শুরু হতে যাওয়া বাস পরিষেবার তীব্র বিরোধিতা করেছে ভারত। আগামী শনিবার থেকে পাকিস্তানের লাহোর থেকে চিনের একদম পশ্চিমের শহর জিনজিয়াং পর্যন্ত এই বাস চলাচল করবে। জানা গিয়েছে, এই বাস যাবে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের রাস্তা দিয়ে।

বুধাবর এক সংবাদ সম্মেলনে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র রাভিশ কুমার জানান, “আমরা চিন ও পাকিস্তানের মধ্যে বাস পরিষেবা চালু করার তীব্র বিরোধিতা করেছি। চিন ও পাকিস্তানের অর্থনৈতিক সীমান্তের মধ্যে দিয়ে এই বাস পরিষেবাটি চালু হবে। বাসটি যাবে পাক অধিকৃত জম্মু ও কাশ্মীরের ওপর দিয়ে।”

এই চিন পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডোর বা সিপেক প্রকল্প নিয়ে ভারত বহুদিন ধরেই সরব। তার কারণ, এই করিডোরটি পাক অধিকৃত কাশ্মীরের যে অংশের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে তাকে ভারত নিজেদের অংশ বলেই মনে করে। তাদের দাবী, ওই জায়গাটি ভারতের মধ্যেই পড়েছে।

এই বিষয়ে রাভিশ কুমার বলেন, “১৯৬৩ সালে চিন ও পাকিস্তানের মধ্যে যে সীমান্ত চুক্তি হয়েছিল, তাকে ভারত চিরকালই অবৈধ বলে মনে করে এসেছে। ভারত সরকার ওই বিশেষ পথটিকে কোনওদিনই স্বীকৃতি দেয়নি।” তিনি আরও বলেন, “তাই খুব স্বাভাবিকভাবেই পাক অধিকৃত কাশ্মীরের ওপর দিয়ে এমন বাস পরিষেবা চালু হলে তাকে ভারত নিজের সার্বভৌমত্ব এবং রাষ্ট্রের অখণ্ডতার ওপর আক্রমণ বলেই মনে করে।”

প্রসঙ্গত, পাকিস্তান ও চিনের মধ্যে কোনও সীমান্ত নেই। পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মধ্যে দিয়ে কেবল একটি রাস্তা চলে গিয়েছে, যা ভৌগলিকভাবে পাকিস্তান ও চিনের যোগাযোগ তৈরি করতে পারে স্থলপথে। সূত্র: এনডিটিভি।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ