Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০১৯, ৫ বৈশাখ ১৪২৬, ১১ শাবান ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

বলেশ্বরে ইলিশ না পেয়ে জেলে পল্লিতে হতাশা

মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

নিষেজ্ঞার পর ইলিশ মিলছেন না বলেশ্বর নদে। দাদন এবং এনজিওর ঋণের কিস্তি পরিশোধের চিন্তায় বিশাদের ছায়া নেমে এসছে উপকূলীয় মঠবাড়িয়া জেলে পল্লী গুলোতে। মা ইলিশ ধরার দীর্ঘ ২২ দিন অবরোধের পর উপজেলার সোমবার থেকে মাছ ধরা শুরু করেছে জেলেরা। দাদানের টাকা ও ঋণের কিস্তি মাথায় নিয়ে তাদের উপার্জণের অন্যতম পণ্য ইলিশের আশায় জাল ফেলে ইলিশ শূণ্য জাল নিয়ে নিরাশ হয়ে ঘরে ফিরছে জেলেরা। শুক্রবার সরেজমিনে জেলে পল্লী খেতাছিড়া, কচুবাড়িয়া, ভাইজোড়া, ভোলমারা ও বড়মাছুয়া গিয়ে জেলেদের মুখে বিশাদের ছায়া দেখা গেছে। অবরোধের সময় জেলেদের উপার্জণ বন্ধ থাকায় সঞ্চয় এবং ঋণ নিয়ে কোনভাবে দিনাতিপাত করেছে। অবরোধের সময় সরকার জেলে পরিবার প্রতি ২২ কেজি চাল খাদ্য সহায়তা দিয়েছে। জেলেদের সাথে আলাপকালে এ খাদ্য সহায়তা অপ্রতুল বলে জানিয়েছেন। তারা সহায়তার পরিমান বৃদ্ধি করার দাবী জানিয়েছেন।

মৎস্য পল্লী খেতাছিড়ার জেলে আবুল কালাম খান (৪২) জানান, ভেবেছিলাম ইলিশ ধরে অবরোধের ক্ষতি কাটিয়ে উঠতে পারব। কিন্তু ইলিশের দেখা না পাওয়ায় জেলেদের মনে শান্তি নাই। দাদন ও ঋণের কিস্তি পরিশোধের চিন্তায় জেলেরা দু‘চোখে অন্ধকার দেখছে।
জাল তুলে তীরে আসা বড়মাছুয়া গ্রামের নজরুল ইসলাম তালুকদার (৩৫) জালে পাওয়া মাছ দেখিয়ে বলেন, ১ খেওয়ে ৩ টি ইলিশ ধরা পড়েছে, সারা দিনে ২/৩ খেওয়ে ৫/৬ টির বেশী ইলিশ পাওয়া যায় না। ডিম ছেড়ে ইলিশ মাছ সাগরে চলে গেছে বলে তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইলিশ

২৪ জুলাই, ২০১৮
২৩ জুন, ২০১৮
২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন