Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

সংবিধান অনুযায়ী নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের সুযোগ আছে

জেল হত্যা দিবসের স্মরণ সভায় ড. কামাল হোসেন

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ৪ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

গণফোরাম সভাপতি ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ী নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচনের সুযোগ আছে। তবে সেটি কোন পদ্ধতিতে হবে, তা নির্ভর করবে আলোচনার ওপর, সবার ঐক্যমতের ভিত্তিতে। আলোচনায় অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে একমত হওয়া যায়। কাজেই আমরা আশা করি, সরকার বিষয়টি ভাববে এবং ফের সংলাপে বসবে। গতকাল রাজধানীর আরামবাগে গণফোরাম কার্যালয়ে জাতীয় জেলহত্যা দিবস উপলক্ষে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
ড. কামাল হোসেন বলেন, ষড়যন্ত্র করে জাতীয় ঐক্য ধ্বংস করা যাবে না।
এ ঐক্য জনগণের ঐক্য। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর জনগণের স্বার্থেই এ ঐক্য তৈরি হয়েছে। এতটা বছর পার হয়েছে, কিন্তু জনগণ স্বাধীনতার সুফল পায়নি। সোনার বাংলা গড়া ও বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলা গড়তেই জাতীয় ঐক্য তৈরি হয়েছে। গণফোরাম সভাপতি বলেন, স্বাধীনতার স্বপ্ন ছিল এদেশ হবে সবার। থাকবে না কোনো ভেদাভেদ, থাকবে না কোনো বৈষম্য, আর ধনী-দরিদ্রের পার্থক্য। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পর এসে ভাবতে হচ্ছে, জনগণ কী পেল। যারা উন্নয়নের কথা বলেন, তারাই বিদেশে টাকা পাচার করেছেন। কেউ আঙুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে, আবার কেউ নিঃস্ব হয়েছে। তাই নতুন করে বাঁচতে জনগণের স্বার্থেই জাতীয় ঐক্য তৈরি করা হয়েছে। আগামী দিনে উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ অপেক্ষা করছে।তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, এ দেশের সব ক্ষমতার উৎস জনগণ। জনগণই এ দেশের মালিক। ১৯৭১ সালেও এ জনগণই অস্ত্র ছাড়াই রুখে দিয়েছে পাকিস্তানিদের। আমরা ভয় করি না। জনগণ আবার জেগেছে দুঃশাসনের বিরুদ্ধে ও স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে। বৈষম্যমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত ও দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ গড়াই জাতীয় ঐক্যের লক্ষ্য।
সংলাপ শেষ হয়েছে, এখন আপনারা কী করবেন এমন প্রশ্নের উত্তরে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ এই নেতা বলেন, সংলাপ চলমান প্রক্রিয়া। আমরা আমাদের কথাগুলো প্রধানমন্ত্রীর কানে দিয়েছি। মানবেন কি মানবেন না, সেটি উনাদের ব্যাপার। আমাদের দাবির আন্দোলন চলবেই। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেছেন, সংবিধান অনুযায়ীই নির্বাচন হবে, এর বাইরে যাওয়ার সুযোগ নেই। আসলেই কি সুযোগ নেই জানতে চাইলে ড. কামাল বলেন, অবশ্যই সংবিধান অনুযায়ী নিরপেক্ষ নির্বাচনের সুযোগ আছে। তবে সেটি কী পদ্ধতিতে হবে, তা নির্ভর করবে আলোচনার ওপর। সবার ঐক্যমতের ওপর। সংবিধান অনুযায়ী সেনাবাহিনী রাখা যায়। আলোচনায় অনেকগুলো বিষয় সম্পর্কে একমত হওয়া যায়। কাজেই আমরা আশা করি, সরকার বিষয়টি ভাববে এবং ফের সংলাপে বসবে।



 

Show all comments
  • Syed Rakib ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ১১:৫৪ এএম says : 0
    হ্যাঁ শুধুমাত্র সততা এবং আগ্রহ থাকা দরকার।।
    Total Reply(0) Reply
  • Nazrul Haque ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ১১:৫৪ এএম says : 0
    রাইট
    Total Reply(0) Reply
  • Javed Bhuiyan ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:২০ পিএম says : 0
    Go ahead
    Total Reply(0) Reply
  • লাভলু ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ২:০১ পিএম says : 0
    একটি সফল সংলাপের মাধ্যমে একটি সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন নিশ্চিত করা যেতে পারে বলে আমি মনে করি।
    Total Reply(0) Reply
  • পাবেল ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ২:০৮ পিএম says : 0
    সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচন করা সংবিধানসম্মত এবং তা ওয়েস্টমিনস্টার মডেলের সংসদীয় রীতি মেনে চলা বিশ্বের সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশের অনুশীলনের সঙ্গেও সংগতিপূর্ণ।
    Total Reply(0) Reply
  • জামান ৩ নভেম্বর, ২০১৮, ২:০৯ পিএম says : 0
    ১৯৭৩ সালে গণপরিষদ ভেঙে দিয়েই প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচন হয়।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ড. কামাল হোসেন


আরও
আরও পড়ুন