Inqilab Logo

শুক্রবার, ০১ জুলাই ২০২২, ১৭ আষাঢ় ১৪২৯, ০১ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

ফুলবাড়ীতে কোটি টাকার বিয়ে ও বৌভাত

প্রকাশের সময় : ১৬ এপ্রিল, ২০৩০, ১২:০০ এএম

ফুলবাড়ী (দিনাজপুর) সংবাদদাতা : দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে শনিবার অনুষ্ঠিত হলো কোটি টাকা ব্যায়ের বিয়ে ও বৌভাত আয়োজন। পৌর এলাকার উত্তর সুজাপুর গ্রামের কথিত তেল ব্যবসায়ী যুগলচন্দ্র দত্ত এর ছেলে শ্রীমান সুমন দত্তের বিয়ে ও বৌভাতে কোটি টাকা ব্যয় করে ফুলবাড়ী পৌরবাসীসহ উপজেলা বাসিন্দাদের তাক লাগিয়ে দিয়েছে। 
জানা গেছে, গত ২৮ এপ্রিল ২০১৬ তারিখ বৃহস্পতিবার কথিত তেল ব্যবসায়ী যুগলচন্দ্র দত্ত এর ছেলে সুমন চন্দ্র দত্তের বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী রংপুর জেলার বদরগঞ্জ উপজেলার ডাংগাপাড়া গ্রামের শ্রী হেমন্ত সরকারের মেয়ে জয়ীতা সরকার ঐশির সাথে। সে বিয়েতে বরযাত্রী হিসেবে যান,ফুলবাড়ী পৌরশহরের ব্যবসায়ী,জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ। সেদিন থেকে ফুলবাড়ী পৌরশহরের উত্তর সুজাপুর যুগলচন্দ্র দত্তের বাড়ীতে চলে রাতভর নানা উৎসব এবং রাতভর আতশবাজিতে প্রকম্পিত হতে থাকে উত্তর সুজাপুর এলাকা। শনিবার শহরের রাবেয়া কমিউনিটি সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয় বৌভাত। সেখানেও বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ী,জনপ্রতিনিধি ও প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতাদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠে। এতে অবাক হয়ে যায় ফুলবাড়ী পৌরবাসী। 
ফুলবাড়ীর বিশিষ্ট স্বর্ণ ব্যবসায়ীরা বলেন, যুগলচন্দ্র দত্ত প্রায় ২০ বছর আগে ১৯৯৫ সালে তার জন্মভূমি সিরাজগঞ্জ ছেড়ে ফুলবাড়ীতে এসে বসতি স্থাপন করে। সে সময় যুগল চন্দ্র দত্ত স্বর্ণের দোকানে দিন মজুরীর কাজ করত। এরপর সে ফুলবাড়ী কাঁচা বাজার সংলগ্ন ফুটব্রীজের পশ্চিম পার্শ্বে একটি তেলের মিল স্থাপন করে। এর পর যুগলচন্দ্র দত্তকে আর পেছন ফিরে তাকাতে হয়নি। তেল ব্যবসা করে এখন সে কোটিপতি। এলাকায় অভিযোগ রয়েছে,যুগলচন্দ্র দত্ত তেলের মিলের আড়ালে চালায় দাদন ও ভেজাল তেলের ব্যবসা। অবশ্য যুগলচন্দ্র দত্ত ভেজাল তেল বিক্রি করার দায়ে কয়েকদফায় ভ্রাম্যমান আদালতের দন্ড জরিমানারও শিকার হন। একইভাবে দাদন ব্যবসা করতে গিয়েও বিভিন্ন জায়গায় অপদস্তের শিকার হয়। কিন্তু সেই যুগলচন্দ্র দত্ত কোটি টাকার মালিক হওয়ায় এখন তার সঙ্গে মিশে গেছে প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি। এতে যুগলচন্দ্র দত্ত এখন সেই সমাজের একজন হয়ে উঠার জন্যই তার ছেলের বিয়ে ও বৌভাতে কোটি টাকার আয়োজন করেছেন বলে একাধিক সূত্রে জানা যায়। এই ঘটনাটি ফুলবাড়ীতে টক অফ দ্যা টাউনে পরিণত হয়েছে। অনেকে বলছে টাকায় কি না হয়। 
এ বিষয়ে,যুগলচন্দ্র দত্তের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন,সবাই আমাকে ভালোবাসে এজন্য আমার ছেলের বিয়েতে তাদের নিমন্ত্রন করেছি,আর তাই এই আয়োজন করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, তার ছেলের বিয়ে ও বৌভাতের আয়োজনটি ফুলবাড়ীতে সেরা আয়োজন হবে এটাই তার লক্ষ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ