Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৮, ৩০ কার্তিক ১৪২৫, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

ময়মনসিংহে কেন্দ্রীয় খাদ্য গুদামে মজুদ ঘাটতি অনুসন্ধানে তদন্ত টিম

ময়মনসিংহ ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৯ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

ময়মনসিংহে কেন্দ্রীয় খাদ্য সংরক্ষনাগারের একটি গুদামে মজুদ ঘাটতি অনুসন্ধানে নেমেছেন তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে ওই তদন্ত কমিটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় খাদ্য সংরক্ষনাগারের ব্যবস্থাপক মো. দিলুয়ার হোসেন। তিনি জানান, এ সংরক্ষনাগারে মোট ৫৬টি গুদাম রয়েছে। এর মধ্যে আঞ্চলিক খাদ্য কর্মকর্তা গুদাম পরিদর্শনকালে ৪৭নং গুদামে মজুদ ঘাটতির সন্দেহ করেছে। এনিয়ে খাদ্য বিভাগ কাজ করছে। বিস্তারিত পরে বলা যাবে।
তদন্ত কমিটির প্রধান জেলার সহকারী খাদ্য নিয়ন্ত্রক মো. ফজলে রাব্বী হায়দার জানান, ৪৭ নং গুদামে মজুদ সংরক্ষণ নিয়মে ব্যাতয় ঘটার কারনে ঘটনাটি অনুসন্ধানের জন্য তিন সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন কর্তৃপক্ষ। এখন তদন্ত চলছে। আগামী পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়ার নির্দেশনা রয়েছে। হয়ত রবি-সোমবারের মধ্যে প্রতিবেদন দেয়া হবে। তখন সঠিক বিষয়টি বলা যাবে।
তিনি আরো জানান, কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন- ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় খাদ্য সংরক্ষনাগারের ব্যবস্থাপক মো. দিলুয়ার হোসেন ও ট্যেকনিক্যাল কর্মকর্তা হুমায়ন কবীর।
তবে ৪৭ নং গুদামের ইনচার্জ ওয়াহেদুল আলম দাবি করেন, গুদামে কোন ঘাটতি নেই। সব ঠিক আছে। কিন্তু খামাল সংরক্ষণের গঠন প্রণালীতে ভুল হওয়ায় আঞ্চলিক খাদ্য কর্মকর্তা পরিদর্শনকালে মজুদ ঘাটতির সন্দেহ করেছেন।
এবিষয়ে আঞ্চলিক খাদ্য কর্মকর্তা মো. জামাল হোসেন বলেন, ওই গুদামে ঘাটতি আছে কিনা, এবিষয়টি অনুসন্ধান করতেই তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ