Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ০৯ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী

ছোট যমুনার পাড় কেটে বালু উত্তোলন

হুমকিতে ফসলি জমি

দিনাজপুর অফিস | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে ছোট যমুনা নদীর পাড় কেটে বালু উত্তোলন করায় হুমকিতে পড়েছে ফসলি জমির মাঠ। উপজেলা প্রশাসনে অভিযোগ করেও মেলেনি কোনো প্রতিকার। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার রাজারামপুর ও জাফরপুর গ্রাম এলাকায়। সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, বালুমহাল ইজারাদার ইমরুল হুদা (ইনু) চৌধুরী ছোট যমুনা নদীর বেলতলি ও গোপলপুর ঘাটের বালুমহল ইজারা নিলেও সেখান থেকে বালু উত্তোলন না করে, রাজারামপুর-জাফরপুর মৌজার মাঝ দিয়ে বয়ে যাওয়া ছোট যমুনা নদীর উত্তর পাড়ে, জাফরপুর মৌজার পাড় কেটে বালু উত্তোলন করছেন। এতে করে নদীর পাড় ভেঙে আগামী বর্ষা মৌসুমে পাড়ের সাথে থাকা জাফরপুর মৌজার ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। ভুক্তভোগী জমির মালিক জাফরপুর গ্রামের বাসিন্দা প্রভাষক হামিদুল হকসহ জাফরপুর গ্রামের বাসিন্দারা উপজেলা নির্বাহী
অফিসারের কাছে অভিযোগ করেও কোনো প্রতিকার পাননি বলে গ্রামবাসী অভিযোগ তুলেছেন।

আবেদনকারী জাফরপুর গ্রামের বাসিন্দা প্রভাষক হামিদুল হক বলেন, বালুমহাল ইজারাদার, তার নির্দিষ্ঠ বালুমহাল রেখে, নদীর পাড় কেটে নতুন নদী তৈরি করছে। এতে করে বর্ষাকালে গ্রামবাসীর ফসলি জমি নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যাবে। এই ঘটনায় তিনি চলতি সনের ২০ অক্টোবর উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেছেন, কিন্তু এখন পর্যন্ত উপজেলা প্রশাসন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এদিকে বালু মহল ইজারাদার ইমরুল হুদা চৌধুরী ইনু বলেন, নদীর পাড় নয়, তিনি তার নিজস্ব জায়গা কেটে বালু উত্তোলন করছেন।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২০১৮-১৯ অর্থবছরের জন্য উপজেলার দুটি বালুমহাল ছোট যমুনা নদীর গোলাপপুর ঘাট আতিয়ার রহমান মিন্টু ও বেলতলী ঘাট ইমরুল হুদা চৌধুরী (ইনু) ইজারা গ্রহণ করেছে। সরকারিভাবে ছোট যমুনা নদীর গোপালপুর ও বেলতলী ঘাট বালুমহাল হিসেবে ইজারা প্রদান করা হলেও উপজেলার খয়েরবাড়ী, দৌলতপুর, লালপুর, কুশলপুরসহ বিভিন্ন ঘাট থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন করা হচ্ছে। এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আব্দুস সালাম চৌধুরীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি গ্রামবাসীর অভিযোগের কথা স্বীকার করে বলেন, ইজারাকৃত জায়গা ব্যতীত বালু উত্তোলন সম্পূর্ণ অবৈধ, অল্প সময়ের মধ্যে অবৈধ বালু উত্তোলনকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেবেন বলেও তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বালু উত্তোলন


আরও
আরও পড়ুন