Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৫ ফাল্গুন ১৪২৫, ১১ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

আগুন নেভাতে সুপার ট্যাংকার

ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রাণঘাতী ক্যাম্প ফায়ারে মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই

ইনকিলাব ডেস্ক : | প্রকাশের সময় : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

ক্যালিফোর্নিয়ার উত্তরাঞ্চল জুড়ে বাড়তে থাকা দাবানল নেভাতে অগ্নি-নির্বাপণ কর্মীদের সাথে যোগ দিয়েছে বিশ্বের সবচেয়ে বড় উড়ন্ত ট্যাংকার। বিশ্ব জুড়ে আগুন নেভানোর জন্য সুপার ট্যাংকারে রূপান্তরিত এই বোয়িং ৭৪৭ বিমান রোববার সকালে বিস্তৃত এলাকাজুড়ে ক্যালিফোর্নিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে ভয়াবহ এই দাবানল নেভানোর কাজে যোগ দেয়। শনিবার রাতের বাতাসে উত্তর-পূর্ব এলাকায় দাবানল ছড়িয়ে পড়ায় সেখানে আগুনের প্রকোপ এখন বেশী। এজন্য, পার্শ্ববর্তী স্যাকরামেন্টো ম্যাকক্লিলান বিমানবন্দর থেকে এসে আরও কয়েকটি বড় এয়ার ট্যাংকার সেখানে ‘রেড রেটারডেন্ট’ (আগুন নেভানোর কাজে ব্যবহৃত রাসায়নিক) ফেলছে। এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় পৃথক দুটি দাবানলে মৃতের সংখ্যা ৩১ জনে দাঁড়িয়েছে এবং এখনো দু’শতাধিক নিখোঁজ রয়েছেন বলে জানিয়েছেন দেশটির কর্মকর্তারা। অঙ্গরাজ্যটির উত্তরাঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া ক্যাম্প ফায়ার নামের দাবানলে পুড়ে মারা যাওয়া আরও ছয় জনের লাশ রোববার পাওয়া যায় রোববার সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে বিউট কাউন্টির শেরিফ কোরি হোনেয়া জানান, পুড়ে যাওয়া একটি বাড়িতে পাঁচ জনের লাশ পেয়েছেন কর্মকর্তারা এবং একটি গাড়িতে আরেকটি লাশ পাওয়া গেছে। ওই পর্যন্ত আরও দু’শতাধিক নিখোঁজ ছিলেন বলে জানিয়েছেন তিনি। ক্যাম্প ফায়ার দাবানলটি ইতোমধ্যেই ক্যালিফোর্নিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে প্রাণঘাতী দাবানল গ্রিফিথ পার্ক দাবানলের সমান প্রাণঘাতী হয়ে গেছে বলে গণমাধ্যমের প্রতিবেদনগুলোতে বলা হয়েছে। এর দক্ষিণে উয়ুলজি নামের আরেকটি দাবানল দুজনের প্রাণ নিয়েছে। এই দাবানলটির কারণে সাগরতীরবর্তী কয়েকটি অবকাশ কেন্দ্রে হুমকির মুখে রয়েছে, এগুলোর মধ্যে মালিবু অন্যতম। ক্যালিফোর্নিয়ার তিনটি অংশে পৃথক তিনটি দাবানল থেকে বাঁচতে প্রায় আড়াই লাখ মানুষ তাদের ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ জায়গায় সরে গেছে। বাড়তে থাকা বাতাসের কারণে দাবানলগুলো আরও ছড়িয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে ক্যালিফোর্নিয়ার গভর্নর জেরি ব্রাউন দাবানলের তাণ্ডবকে বড় ধরনের দুর্যোগ ঘোষণার জন্য প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ট্রাম্প তার এই আহ্বানে সাড়া দিলে কেন্দ্র থেকে বেশি পরিমাণ জরুরি তহবিল পাওয়ার পথ উন্মুক্ত হবে। কিন্তু একদিন আগেই ট্রাম্প এই দাবানলগুলোর জন্য ক্যালিফোর্নিয়ার দুর্বল বন ব্যবস্থাপনাকে দায়ী করে কেন্দ্র থেকে অঙ্গরাজ্যটিকে দেওয়া তহবিল হ্রাস করার হুমকি দিয়েছিলেন। নিউজ রিপাবলিক, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দাবানল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ