Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৩ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

পঞ্চাশ বছরের সম্পর্কচ্ছেদ করে এসএলপিপিতে যোগ দিলেন রাজাপক্ষে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ নভেম্বর, ২০১৮, ৯:৪৫ পিএম

প্রায় ৫০ বছরের রাজনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে সম্প্রতি বিতর্কিতভাবে নিযুক্ত শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষে রোববার নতুন গঠিত শ্রীলংকা পিপলস পার্টিতে (এসএলপিপি) যোগ দিয়েছেন। শুধু নিজেই নয় এসএলএফপি থেকে আরো বেশ কিছু সদস্যকেও তিনি নতুন দলে নিয়ে এসেছেন। এর ফলে প্রেসিডেন্ট মৈত্রিপালা সিরিসেনার নেতৃত্বাধিন এসএলএফপি আনুষ্ঠানিকভাবে ভেঙ্গে গেলো।

এসএলপিপি’তে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগদানের ফলে এটা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে যে তিনি শ্রীলংকা ফ্রিডম পার্টির (এসএলএফপি) বদলে নতুন দল থেকে আগাম নির্বাচনে অংশ নিচ্ছেন। এসএলএফপি’তে রাজাপক্ষের রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের শুরু হয়।
সংসদ ভেঙ্গে দেয়া নিয়ে দেশটির বিরোধী দল যখন বড় ধরনের আইনি লড়াইয়ের প্রস্তুতি নিচ্ছে তখনই এই চমক দেখালেন সাবেক প্রেসিডেন্ট রাজাপক্ষে। তার উদ্যোগের মধ্য দিয়ে শ্রীলংকার রাজনীতিতে নতুন ধারার সূচনা হলো। প্রায় অর্ধ শতাব্দি ধরে যে দুটি দল শ্রীলংকার রাজনীতিকে নিয়ন্ত্রণ করে আসছিলো তার একটি এসএলএফপি। দলটিকে দীর্ঘ সময় নেতৃত্ব দেয় আইকনিক বন্দরনায়েক পরিবার। দলটি এখন বিলুপ্ত হওয়ার পথে।
রোববার নতুন দলে যোগদানের পর মাহিন্দা রাজাপক্ষে সাংবাদিকদের বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তার দল এই তড়িঘড়ি নির্বাচনে জিতবে বলেও তিনি দৃঢ় আশাবাদী। পার্লামেন্ট ভেঙ্গে দেয়া নিয়ে বিরোধী দলগুলোর আইনি চ্যালেঞ্জের কারণে যে প্রবল চাপ তৈরি হয়েছে তা ঠেকাতে আইনজীবীদের সঙ্গে আলোচনার কথা স্বীকার করে রাজাপক্ষে বলেন, নির্বাচন কেউ ঠেকাতে পারবে না।
এসএলএফপি’র সঙ্গে রাজাপক্ষের সম্পর্ক চুকিয়ে ফেলার সিদ্ধান্ত দেশটির রাজনৈতিক অস্থিতিশীলতায় নতুন মাত্রা যোগ করেছে। তার এসএলপিপি’তে যোগদানের কারণে বিলুপ্তির মুখে পড়ছে এসএলএফপি। দলটিকে বর্তামানে নেতৃ্ত্ব দিচ্ছেন প্রেসিডেন্ট সিরিসেনা।
শ্রীলংকার স্বাধীনতা পরবর্তী ইতিহাসে ছিলো প্রধানত দুটি দলের আধিপত্য। এসএলএফপি ছাড়া অন্য দলটি হচ্ছে ইউনাইটেড ন্যাশনাল পার্টি (ইউএনপি)। দলটিকে উদারপন্থী, পুঁজিবাদ-বান্ধব হিসেবে বিবেচনা করা হয়। অন্যদিকে এসএলএফপিকে বিবেচনা করা হয় মধ্য ডানপন্থী, দেশীয় ও সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী হিসেবে। সূত্র: এনডিটিভি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ