Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৪ পৌষ ১৪২৫, ১০ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

আশুলিয়ায় উত্যক্তকারীকে টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৪ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:২৮ এএম

ঢাকার সাভারের আশুলিয়ায় এক নারী পোশাক শ্রমিককে উত্যক্তের অভিযোগে মামুন নামে এক যুবককে আটকের তিন দিন পর টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে পুলিশের বিরুদ্ধে।
শুক্রবার এক নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে ঐ দিন বিকেলেই মামুন নামের এক যুবককে আটক করে থানায় নিয়ে আসে আশুলিয়া থানার এসআই সাজ্জাদ হোসেন। পরে সোমবার রাতে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।
ভুক্তভোগী নারী শ্রমিক জানান, আমি রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় প্রায়ই আমাকে উত্যক্ত করে মামুন। আমি তার প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় সে বিভিন্ন অশ্লিল ম্যাসেজসহ আমার আত্মীয় স্বজনের কাছে ফোন করে কুৎসা রটায়। এঘটনায় আমি থানায় অভিযোগ দিলে পুলিশ তাকে আটক করে আদালতে না পাঠিয়ে তিনদিন হাজতের ভিতরে রেখে দেয়। কারণ জানতে চাইলে এসআই সাজ্জাদ ও মামুনের লোকজন আমাকে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে জোরপূর্বক টাকার বিনিময়ে আমাকে আপোষ করতে বাধ্য করে এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর রেখে দেয়। এসময় ছেলের পক্ষের লোকজন পঞ্চাশ হাজার টাকা দিলেও তা এসআই সাজ্জাদ ও তৃতীয় পক্ষ আশুলিয়া থানা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য বাদল শেখ নিয়ে যায়।
তবে বাদল শেখ বলেন, পঞ্চাশ হাজার টাকা নয়, চল্লিশ হাজার টাকা দেয়ার কথা হয়েছে কিন্তু টাকার বিষয়টি আপোষনামায় লেখা না থাকায় ছেলের পরিবারের লোকজন টাকা না দিয়ে চলে গেছে।
তিনি আরও বলেন, এছাড়া আমি আরকিছু জানিনা তবে মো. আলমাস এবং লিটন মিয়া সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে আমাকে ফোন কেরে ডেকে আনে। পরে পুলিশের উপস্থিতিতে ও সকলের সম্মতিক্রমে আপোষনামা সম্পন্ন হলে তারা ছেলেকে নিয়ে চলে যায়।
আশুলিয়া থানার এসআই সাজ্জাদ হোসেন বলেন, লাবনী নামে এক নারীর উত্যক্তের অভিযোগে মামুনকে আটক করা হয়েছিলো। পরে দুই পরিবারের সম্মতিতে আপোষনামা করে তাকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে তিন দিন থানা হাজতে আটকে রেখে ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে ঐ যুবককে ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি অস্বীকার করেন তিনি।
আশুলিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) জাবেদ মাসুদ জানান, বিষয়টি জানা নেই। তবে প্রমাণিত হলে এ ব্যাপারে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ