Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩ পৌষ ১৪২৫, ৯ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

নির্বাচন পেছানো বিবেচনার আশ্বাস ইসির : ড. কামাল

নির্বাচনে থাকাটা ইসি ও সরকারের ওপর নির্ভর করছে : মির্জা ফখরুল

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

সংসদ নির্বাচন পেছানোর বিষয়টি নির্বাচন কমিশন (ইসি) বিবেচনা করে দেখার আশ্বাস দিয়েছে ঐক্যফ্রন্টকে। গতকাল ইসির সঙ্গে বৈঠক শেষে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন।
ড. কামাল বলেন, নির্বাচন কমিশন (ইসি) আমাদের নির্বাচনে সাহায্য সহযোগিতার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। তারা বলেছেন, নির্বাচন অবাধ-সুষ্ঠু হবে। তারা ধৈর্য ধরে আমাদের কথা শুনেছেন। আশা করি তারা সহযোগিতা দেবেন। ড. কামাল বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সংঘটিত সংঘর্ষের বিষয়েও কথা বলেন। তিনি বলেন, এটি সরকারি বাহিনীর উৎসাহী কাজ। নির্বাচন পেছানো হবে কি না, সে বিষয়ে কামাল হোসেন বলেন, ইসি বলেছে তারা বিষয়টি বিবেচনা করবে।
ব্রিফিংয়ে ইসির বৈঠক নিয়ে বিস্তারিত কথা বলেন ঐক্যফ্রন্টের মুখপাত্র ও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, বিরোধী দলের নির্বাচনে টিকে থাকাটা ইসি ও সরকারের আচরণের ওপর নির্ভর করছে। আমরা ইভিএম ব্যবহার করতে না করেছি। ইসি বলেছে, তারা সিটি করপোরেশন এলাকায় সীমিত আকারে এসব ব্যবহার করবে। সেনা মোতায়েন প্রসঙ্গে ইসি বলেছে, তারা স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে থাকবে। তবে প্রতি কেন্দ্রেই সেনা মোতায়েন করা যায় কি না, তা ইসি বিবেচনা করবে।
মির্জা ফখরুল বলেন, গণভবনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বাছাইয়ের কাজ চলছে। এটা সরকারি ভবন। এটা প্রধানমন্ত্রী পারেন কি না, সে বিষয়ে আমরা ইসির দৃষ্টি আকর্ষণ করেছি। ইসি বলেছে, তারা এটি খতিয়ে দেখবে।
ফখরুল বলেন, বৈঠকে জনপ্রশাসনে রদবদল, বদলি ও গায়েবি মামলা প্রভৃতি বিষয়ে ইসির দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে। তিনি বলেন, কেন্দ্র থেকে নির্বাচনের খবরাখবর সম্প্রচার নিয়ে ইসির সঙ্গে কথা হয়েছে। ইসি বলেছে, সাংবাদিকেরা নির্বাচন কেন্দ্রে প্রবেশ করতে পারবে। কিন্তু কেন্দ্রের ভেতরে থেকে সরাসরি স¤প্রচার করতে পারবে না।
মির্জা ফখরুল বলেন, আমরা ইসিকে বলেছি, খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিতে হবে। তাঁকে ছাড়া সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। ইসি বলেছে, তারা বিষয়টি দেখবে। তিনি বলেন, ইসি আমাদের সব কথা শুনেছে। প্রতিবারই শোনে। তবে তারা কতটা পালন করবে, তা জনগণ দেখবে।
প্রসঙ্গত, নির্বাচনের তারিখ এক মাস পেছানোর মূল দাবি নিয়ে গতকাল ইসির সঙ্গে বৈঠক করে ঐক্যফ্রন্ট। এতে ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ ১৪ নেতা অংশ নেন। বৈঠকে ঐক্যফন্টের প্রধান ড. কামাল হোসেন ও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ছাড়াও বিএনপির ড.খন্দকার মোশারফ হোসেন, মওদুদ আহমেদ, জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীর উত্তম, গণফোরামের এডভোকেট সুব্রত চৌধুরী, মোস্তফা মহসিন মন্টু, জেএসডির আবদুল মালেক রতন, গণফোরামের মোকাব্বির খান, নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, এস এম আকরাম, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমদ প্রমুখ। বৈঠকে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কেএম নুরুল হুদাসহ অন্য কমিশনাররা উপস্থিত ছিলেন। #



 

Show all comments
  • Md tetu ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ১:০০ এএম says : 0
    নির্বাচন পেছানো ১০০% দরকার। দেশের মানুষ তাই চায়
    Total Reply(0) Reply
  • গাজী ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ২:০৯ এএম says : 0
    নির্বাচন পেছাতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • আতিকুর রহমান ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ২:১০ এএম says : 0
    নির্বাচনে থাকাটা ইসি ও সরকারের ওপর নির্ভর করছে
    Total Reply(0) Reply
  • Monir ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ২:১১ এএম says : 0
    েইসির কিসের ভয়
    Total Reply(0) Reply
  • ইসরাফিল ১৫ নভেম্বর, ২০১৮, ১১:০৬ এএম says : 0
    ইসি যদি সরকারের হয় তা হলে ত আর কথাই নাই, সরকার যা বলবে তাই করবে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর