Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

প্রশাসন একাডেমিতে যেতে প্রধানমন্ত্রীকে অনাপত্তি, অর্থমন্ত্রীকে নিষেধ ইসির

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০৬ এএম

বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতি বিষয়ে অবহিত করা হলে অনাপত্তি জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। তবে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতকে একটি অনুষ্ঠানে উপস্থিতির ব্যাপারে আপত্তি জানানো হয়েছে।
গতকাল বৃহস্পতিবার ইসির যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহাম্মদ খান স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে এ অনাপত্তির কথা জানানো হয়। এর আগে জনপ্রশাসস মন্ত্রণালয় থেকে ইসির অনুমতি চেয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছিল। যেখানে বলা হয়েছিল- আগামী ৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমিতে ১০৭তম, ১০৮তম এবং ১০৯তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে।
প্রধানমন্ত্রীর বিষয়ে ফরহাদ আহাম্মদের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়, আগামী ছয় ডিসেম্বর বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমিতে ১০৭, ১০৮ এবং ১০৯তম আইন ও প্রশাসন কোর্সের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতির বিষয়ে ইসি অনাপত্তি জানিয়েছে।
নির্বাচন কমিশন ফিরতি চিঠিতে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতির বিষয়ে অনাপত্তির কথা জানিয়েছে। চিঠিতে বলা হয়েছে, বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস প্রশাসন একাডেমির ওই অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রীর উপস্থিতির বিষয়ে নির্বাচন কমিশন অনাপত্তি দিয়েছে।
অন্যদিকে ঐতিহ্য অন্বেষণ (প্রত্মতাত্তি¡ক গবেষণা কেন্দ্র) সংস্থার একটি অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের অংশ নেওয়ার বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছে ইসি। আগামী কাল শনিবার ঢাকায় ‘ভাই গিরিশচন্দ্র সেন মিউজিয়াম, পাঁচদোনা, নরসিংদী’ নামক প্রকল্পের উদ্বোধন করা হবে। ভারতীয় হাইকমিশনের অর্থায়নে আয়োজিত অনুষ্ঠানটি অরাজনৈতিক হওয়ায় সেটির বিষয়ে অনাপত্তি জানিয়েছে কমিশন। কিন্তু অনুষ্ঠানে অর্থমন্ত্রীর প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার বিষয়ে আপত্তি জানানো হয়েছে।
সংস্থাটিকে পাঠানো ফিরতি চিঠিতে নির্বাচন কমিশন বলেছে- অর্থমন্ত্রী ওই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি উপস্থিত থাকতে পারবেন না। চিঠিটি পাঠিয়েছেন ইসির উপ-সচিব মো. আতিয়ার রহমান। সংসদ নির্বাচনে রাজনৈতিক দল ও প্রার্থীর আচরণ বিধিমালা অনুযায়ী, নির্বাচনপূর্ব সময়ে কোনো সরকারি, আধা-সরকারি বা স্বায়ত্ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানের রাজস্ব বা উন্নয়ন তহবিলভুক্ত কোনো প্রকল্পের অনুমোদন, ঘোষণা বা ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কিংবা ফলক উন্মোচন করা যায় না। নির্বাচনপূর্ব সময় বলতে তফসিল ঘোষণার পর থেকে ফলাফল গেজেট আকারে প্রকাশ করা সময় বোঝানো হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ