Inqilab Logo

ঢাকা, রবিবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮, ০২ পৌষ ১৪২৫, ৮ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী
শিরোনাম

কেউ ভ্রান্ত আকিদা পোষণ করলে ইবাদতও হবেনা, মুসলমানও থাকবেনা -আল্লামা শফি

বিশেষ সংবাদদাতা, কক্সবাজার | প্রকাশের সময় : ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৩:১২ পিএম | আপডেট : ৩:১৯ পিএম, ১৬ নভেম্বর, ২০১৮

হেফাজতে ইসলামের আমীর শাইখুল ইসলাম আল্লামা শাহ আহমদ শফি বলেন, জাহেরী আমালের চেয়ে ক্বালবী আমালের কার্যকারিতা অনেক বেশী। আকিদা সহিহ না হলে কোন আমলই গ্রহণযোগয্য হয় না।

সম্প্রতি বিভিন্ন পীরের আস্তানায় ইসলামী আকিদার পরিপন্থী ওয়াজ নসিহত এর নামে মানুষকে গোমরাহীর পথ ঠেলে দেয়া হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন 'লাইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মদুর রসুলুল্ললাহ' এই আকিদার বাইরে কেউ ভ্রান্ত আকিদা পোষণ করলে কোন ইবাদত গ্রহণযোগ্য হবেনা। কেউ মুসলমানও থাকবেনা।

আল্লামা আহমদ শফি আজ জুমার আগে কক্সবাজারে এক 'ইসলাহী জলসায়' প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

সকালে কলাতলীর হোটেল মোটেল জোনের লাইট হাউজ মাদরাসা মাঠে আয়োজিত ইসলাহী জলসায় সভাপতিত্ব করেন মাওলানা মুহাম্মদ মুসলিম।
আল্লামা শফি বলেন, মুসলমানদেরকে ভ্রান্ত পথ থেকে বের করে সঠিক পথে পরিচালিত করার দায়িত্ব হক্কানী আলেম ওলামা ও পীর মাশায়েখদের।
য়ে কোন পরিস্থিতিতে ওলামায়ে কেরাম ও পীর মশায়েখদের এই দায়িত্ব পালন করতে হবে।

তিনি বলেন, বড় পীর আব্দুল কাদের জিলানী, হোসাইন আহমদ মাদানী, পটিয়ার আল্লামা আজিজুল হক, মরহুম হাজী সাহেবসহ সকল হক্কানী ওলামারা এই দায়িত্ব পালন করেছেন।

ফরজ নামাজ রোজার পাশাপাশি নফল ইবাদাত ও নফল রোজা, নামাজ আদায় করে আল্লাহর নৈকট্য লাভ করতে হবে জানিয় তিনি বলেন, সর্বাবস্থায় আল্লাহর জিকির মানুষের মর্যাদা বৃদ্ধি করে।
কাউমী সনদের স্বীকৃতির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান।
এর আগে স্তানীয় এমপি সাইমুম সরওয়ার কমল আল্লামা ঢ়ফির সাথে সাক্ষাত করে তাঁর দোয়া কামনা করেন।

এসময় তাঁর সপর সঙ্গী, স্থানীয় হেফজত নেতৃবৃন্দ ও ওলামায়ে করাম উপস্থিত ছিলেন।
উল্লেখ্য বৃহস্পতিবার থেকে আল্লামা শফি দুই দিনের কক্সবাজর সফরে রয়েছেন।

অনুষ্ঠান শেষে দেশ ও জাতির কল্যাণে মোনাজাত করেন তিনি।



 

Show all comments
  • Md Sahajahan ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০২ পিএম says : 0
    আপনার ওয়াজ শুনে মানুষ হুতি গেছে
    Total Reply(0) Reply
  • Rana Masud ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৩ পিএম says : 0
    শাপলা চত্বর এ মহামান্য আলেম সমাজ কেন গিয়েছিলেন? সচিবালয় দখল করতে? রাষ্ট্র নিজেদের করে নিতে? তাঁরা গিয়েছিলেন সর্ব কালের সর্বশ্রেষ্ঠ মহামানব, মুসলমানদের জান্নাত, আল্লাহর হাবিব হযরত মুহাম্মাদ সঃ এর সন্মানে আঘাত প্রদানকারী ব্লগার রাজিবের ফাঁসি চাইতে। শাপলা চত্বরে কি হয়েছিল সেদিন তা কম বেশি সবাই জানে। শাপলা চত্বরের রক্তের দাগ কি শুকিয়েছে? অথচ প্রধানমন্ত্রী সেই রাজিব কে শহীদ হিসেবে খেতাব দিলেন। শাপলা চত্বরের রক্তের বদলা নিতে গিয়ে, নিজেদের পিঠ বাঁচাতে উল্টা কওমি খেতাব দিয়ে আসলেন আল্লামা শফি। এটা কোন ধরনের সন্ধি? এ রকম সন্ধি ইসলাম কি বলে? এরকম আত্নসমর্পন ইসলাম আমাদের শিক্ষা দেয় না।
    Total Reply(0) Reply
  • Live Projapti ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৪ পিএম says : 0
    বাবুনগরী যে বলছেন, উনার সামনে শাফলা চত্ত্বরে আটটি লাশ পরেছিল। চারিদিকে অজস্র, আপনিতো স্বীকারই করছেননা। আকীদা ঠিক থাকে কিভাবে?
    Total Reply(0) Reply
  • Main Uddin Feni ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৪ পিএম says : 0
    আর যারা মানুষের রক্তের সাথে বেইমানী করেছে টাকার জন্য নিজের ঈমান বিএি করেছে তাদের নাম আল্লাহ পাক মুসলিমের খাতায় রাখবে তো
    Total Reply(0) Reply
  • Rahman Jamir ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৫ পিএম says : 0
    কিয়ামতের আগে আগে এইসব হুজূরে ভরে যাবে দেশ। এরা ফেতনা করবে, ৭৩ কাতারে ভাগ হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Mamun Shahadat ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৬ পিএম says : 0
    আপনি মুসলমান এর তালিকায় আছেন তো?
    Total Reply(0) Reply
  • Mirza Arafat ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ৫:০৬ পিএম says : 0
    আর যদি কেউ মুনাফিকী করে???
    Total Reply(0) Reply
  • তাৱেক ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ১০:৩১ পিএম says : 0
    এখআনএ সবাই ওনাৱ সম্পৰ্কে বলেন ওনাৱ টআ ঠিক আছে কি না । আৱে ভাই আগে নিজেৱ টা দেখুন ।
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ রাকিব সিকদার ১৬ নভেম্বর, ২০১৮, ১০:৪৩ পিএম says : 0
    কথাগুলি আমার সঠিক মনে হয়েছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ