Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬, ০১ রজব ১৪৪১ হিজরী
শিরোনাম

রোহিঙ্গা ইস্যু এড়িয়ে গেলেন সু চি

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৭ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে বিশ্বনেতারা মিয়ানমারকে তাগাদা দিলেও আসিয়ান সম্মেলনে তা এড়িয়ে গেছেন দেশটির নেত্রী অং সান সু চি। বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত চার দিনব্যাপী আসিয়ান সম্মেলনের সমাপনী দিনেও রাখাইনের রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে আলোচনা করেন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডাসহ বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিরা। এদিকে, আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের অনীহার কারণে পূর্বনির্ধারিত প্রত্যাবাসন শুরু করা না গেলেও রাখাইনে ফেরার পথ উন্মুক্ত রয়েছে বলে জানিয়েছে মিয়ানমার। চারদিনব্যাপী আসিয়ান সম্মেলনের শেষদিন বৃহস্পতিবার আঞ্চলিক বিভিন্ন সমস্যার পাশাপাশি রোহিঙ্গা ইস্যুতে কথা বলেন বিশ্বনেতারা। সংকট সমাধানে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার পাশাপাশি গণহত্যায় জড়িত সেনাকর্মকর্তাদের বিচারের মুখোমুখি করতে মিয়ানমার নেত্রী অং সান সু চিকে তাগাদা দেন মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স বলেন, মিয়ানমার সেনাবাহিনীর অত্যাচার নির্যাতনের শিকার হয়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। আমরা দেশটির সেনাবাহিনীর এমন ঘৃণ্য কর্মকান্ডের তীব্র নিন্দা জানাই। প্রত্যাবাসনের পাশাপাশি রাখাইন সংকটের জন্য যারা দায়ী তাদের অভিযুক্ত করে বিচারের মুখোমুখি করতে অং সান সু চি কে ইতোমধ্যে আমি আহ্বান জানিয়েছি। এদিকে, এশিয়ার সবচেয়ে বড় সম্মেলন এসোসিয়েশন অব সাউথ এশিয়ান নেশনসে (আসিয়ান) যোগ দেননি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এতে গুরুত্ব বেড়েছে পুতিনের। ব্লমবার্গ এক প্রতিবেদনে জানায়, সিঙ্গাপুরে এবার আসিয়ানের ৩৩ তম সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ট্রাম্পের পরিবর্তে এতে যোগ দিয়েছেন দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স। ফলে এশিয়ার বড় দেশগুলোর কাছে পুতিন বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। সম্মলেন শেষে গ্রুপ ফটোতে দেখা গেছে, আয়োজক দেশ সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি হাসিয়েন লংয়ের ঠিক পাশেই দাঁড়িয়েছেন পুতিন। আর অন্যপাশে একজনের পরে দাঁড়িয়েছেন মাইক পেন্স। থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রেয়ুথ চান ওচা এবং অস্ট্রেলিয়ার প্রতিনিধি স্কট মরিসনের মাঝখানে দাঁড়িয়েছিলেন পেন্স। আর এতেই নাকি গুরুত্বের বিষয়টি বোঝা যাচ্ছে বলে দাবি করছে ব্লমবার্গ। সংবাদমাধ্যমটির দৃষ্টিতে, যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে রাশিয়াকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিয়েছে এশিয়ার দেশগুলো। এদিকে বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক বিশ্লেষকের বারত দিয়ে সিএনবিসি এক প্রতিবেদনে জানায়, ট্রাম্প আসিয়ানে না আসায় প্রমাণ হয়েছে তিনি এশিয়ার প্রতি খুব একটা মনোযোগী নন। অবশ্য ট্রাম্প এশিয়ার প্রতি মুখ ফিরিয়ে নিয়েছেন কীনা তা নিশ্চিত করতে পারেনি সংবাদমাধ্যমটি। অনেকে বলছেন, ট্রাম্পের কাজ মাইক পেন্স করতে পেরেছেন। কিন্তু এটা মানতে নারাজ অন্য একটি পক্ষ। রয়টার্স, ব্লমবার্গ, সিএনবিসি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সু চি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ