Inqilab Logo

ঢাকা শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ১১ রবিউস সানি ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

দুই স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ আহত ৩

প্রকাশের সময় : ২৭ জানুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম

অভ্যন্তরীণ ডেস্ক : দুই স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছে ২ জন ও আহত হয়েছে ৩ জন। এ সংক্রান্ত আমাদের সংবাদদাতাদের পাঠানো রির্পোট-
ভালুকা (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের ভালুকা উপজেলার মেহেরাবাড়ি নামক স্থানে গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে লাশবাহী এম্বুলেন্সকে পিছন থেকে একটি ট্রাক চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই এয়াকুব আলী নামের বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্র মারা যান এবং অপর ২ যাত্রী আহত হন । প্রত্যক্ষদর্শী ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, চট্টগ্রাম হাসপাতালে ভূমিষ্ঠ মৃত ভাগিনার লাশ নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এয়াকুব আলী, এম্বুলেন্সে গফরগাঁও উপজেলায় বাড়ি যাওয়ার পথে ওই স্থানে পৌঁছলে পিছন থেকে একটি ট্রাক (ঢাকা মেট্রো ট-১৮-১১৮০) ধাক্কা দিলে এম্বুলেন্সটি রাস্তার নিচে পড়ে যায়। এতে ঘটনা স্থলেই এয়াকুব আলী মারা যান। নিহত এয়াকুব আলী গফরগাঁও উপজেলার লক্ষণপুর গ্রামের মোসলেম মাস্টারের পুত্র। এ সময় দুর্ঘটনায় আহতরা হলো- ত্রিশাল উপজেলার মাগুরজোড়া গ্রামের মফিজুল ইসলামের পুত্র মোজাম্মেল হক ও চট্টগ্রাম জেলার খুলশি উপজেলার মৃত আহাম্মদ আলীর পুত্র ইন্তাজ আলী। আহতদের ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ভরাডোবা হাইওয়ে পুলিশ ঘাতক ট্রাক ও চালক ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের চান মিয়ার পুত্র বাচ্চু ও এম্বুলেন্স চালক নোয়াখালী জেলার মাইজদি থানার বর্মপুর গ্রামের ফারুক মিয়ার পুত্র স্বপনকে আটক করেছে।
দৌলতপুর (কুষ্টিয়া) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের আল্লারদর্গায় ট্রাকচাপায় কেরামত আলী (৭৫) নামে এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছে এবং রেনিস আলী (২৬) নামে যুবক আহত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয়রা জানায়, সিমেন্ট বোঝাই একটি ট্রাক (খুলনা মেট্রো উ-১১-০০৭৮) আল্লারদর্গা বাজারে যাওয়ার পথে বিপরীত দিক থেকে আসা পথচারী রেনিস আলীকে প্রথমে ট্রাকটি ধাক্কা দিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সাইকেল আরোহী কেরামত আলীকে ধাক্কা দেয়। এ সময় বৃদ্ধ কেরামত আলী ট্রাকের চাকায় পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় এবং রেনিস আলী গুরুতর আহত হলে তাকে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। ট্রাকের চাপায় হতাহতের ঘটনায় বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী সড়কে গাছের গুঁড়ি ফেলে অবরোধ করলে প্রায় এক ঘণ্টা সড়কে যান চলাচল বন্ধ থাকে। পরে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনলে যানবহন চলাচল স্বাভাবিক হয় এবং নিহত কেরামত আলীর মৃতদেহ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করে। নিহত কেরামত আলী উপজেলার আমদহ গ্রামের মৃত আলীজানের ছেলে এবং আহত রেনিস আলী পাটুয়াকান্দি গ্রামের একরাম হোসেনের ছেলে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: দুই স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২ আহত ৩
আরও পড়ুন