Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩ পৌষ ১৪২৫, ৯ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

দেবর-ভাবীর মনোনয়নযুদ্ধ

বগুড়া-৩ (দুপচাঁচিয়া-আদমদীঘি) আসন

দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২০ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বগুড়া-৩ (দুপচাঁচিয়া-আদমদিঘী) আসনে নির্বাচনের আগেই মনোনয়ন প্রত্যাশী ভাবি মাছুদা মোমিন ও দেবর আব্দুল মোহিত তালুকদার মনোনয়নযুদ্ধে নেমেছেন।

বিএনপির ঘাটি হিসেবে পরিচিত বগুড়া-৩ (দুপচাঁচিয়া-আদমদিঘী) আসনে এবার বিএনপির দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ভাবী-দেবরসহ মোট ১০ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এরা হলেন, বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আলহাজ্ব আব্দুল মোমিন তালুকদার খোকার পত্মি মাছুদা মোমিন ও তার দেবর আদমদিঘী থানা বিএনপির সভাপতি আব্দুল মোহিত তালুকদার। এ ছাড়া বগুড়া শহর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হামিদুল হক চৌধুরী হিরু, জেলা বিএনপির কার্যনির্বাহী সদস্য অ্যাডভোকেট মো. আতাউর রহমান খান মুক্তা, বিশিষ্ট শিল্পপতি বগুড়া জেলা শ্রমিকদলের উপদেষ্টা আলহাজ্ব সুলতান মাহমুদ চৌধুরী ওরফে আমীর চৌধুরী, বগুড়া জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি ফজলুর রহমান তালুকদার বেলাল ও বগুড়া জেলা বিএনপি আইনজীবী ফোরামের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. মোকলেছুর রহমান, সান্তাহার পৌর বিএনপির সভাপতি ফিরোজ মো. কামরুল ইসলাম, সান্তাহার পৌরসভার পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু ও শ্রমিকদলের কেন্দ্রীয় নেতা লায়ন ফরিদ আহম্মেদ মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন।

গত রোববার মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাৎকার ঢাকার গুলশান বিএনপির চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে। ভোট যুদ্ধের শুরুতেই মনোনয়নযুদ্ধে এ সাক্ষাতকারে মুখোমুখি হয়েছেন দেবর-ভাবি।

উল্লেখ্য, বিএনপি অধ্যুসিত এই আসনটিতে বরাবরই দখলে ছিল ধানের শীষ প্রতিকের। ১৯৭৯ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে মরহুম আব্দুল মজিদ তালুকদার বিএনপি থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৮৬ ও ১৯৮৮ সালে বিএনপি জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে। সেই সময় জাতীয় পার্টির সাবেক পাট প্রতিমন্ত্রী এবিএম শাহজাহান এ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে পুনরায় বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মরহুম আলহাজ্ব আব্দুল মজিদ তালুকদার নির্বাচিত হন। তার মৃত্যুর পর তার পুত্র বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আলহাজ্ব মোমিন তালুকদার খোকা ১৯৯৬, ২০০১ ও ২০০৮ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী হিসেবে পরপর তিনবারই বিজয়ী হন। ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনে বিএনপি নির্বাচনে অংশ না নেয়ায় বিনা প্রতিদ্ব›িদ্বতায় জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য আলহাজ্ব অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম তালুকদার নির্বাচিত হন। আসন্ন ২০১৮ সালের নির্বাচনে বিএনপির এই হেভিওয়েট প্রার্থী দলের রাজশাহী বিভাগীয় কমিটির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য আলহ্জ্বা আব্দুল মোমিন তালুকদার আইনী জটিলতার কারণে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করতে না পারায় তার পত্মী মাছুদা মোমিন এই আসনটিতে বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী হিসেবে মনোনয়নপত্র উত্তোলন করে জমা দিয়েছেন। শ্বশুর ও স্বামীর উত্তরারাধিকারীনী হিসেবে মাছুদা মোমিনই এই আসনটিতে দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে এলাকায় আলোচনা চলছে। দুই উপজেলার হাট-বাজার, হোটেল রেস্টুরেন্ট, বাসস্ট্যান্ড, রেল-ষ্টেশনসহ জনবহুল এলাকায় আলোচনা চলছে আসন্ন নির্বাচনে ২০ দলীয় জোটের তথা বিএনপির ধানের শীষের কান্ডারি কে হচ্ছেন? বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীসহ সবার মাঝেই আলোচনায় বিএনপিসহ সব দলের একমাত্র নারী প্রার্থী মাছুদা মোমিন।



 

Show all comments
  • Md. Kamrul Hasan ২০ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:২৩ পিএম says : 0
    কেউ কেউ মনে করেন যে রাজনীতি একটা পচা নর্দমা কিন্তু যারা রাজনীতিতে বসবাস করছেন তারা কিন্তু এই পচা নর্দমাকেই কাজে লাগিয়ে ফায়দা লুটতে চান। এই রাজনীতি নামক সাধুতার পিছনে কত যে নোংরা লাগিয়ে আছে তা আজ পর্যন্ত কেউ সাফ করতে চায়না। আর সে কারণেই আজ রাজনীতিকে কেন্দ্র করে ঘরে ঘরে গৃহযুদ্ধের প্রক্রিয়া চলছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর