Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৮, ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ৬ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

খাশোগির খুন সত্যেও সউদীর পাশে থাকার ঘোষণা ট্রাম্পের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২১ নভেম্বর, ২০১৮, ১:০১ পিএম

সাংবাদিক জামাল খাশোগির খুনের বিষয়ে আন্তর্জাতিক মহলের নিন্দা সত্যেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সউদী আরবের সঙ্গে মিত্রতার পক্ষে জোরালো অবস্থান নিয়েছেন।

বিবিসি জানিয়েছে, মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেছেন, “যুক্তরাষ্ট্রে রেকর্ড পরিমাণ অর্থ বিনিয়োগে প্রতিশ্রুত সউদী আরব আমাদের একনিষ্ঠ মিত্র।”

খাশোগির খুনের বিষয়ে সউদী ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ‘পুরোপুরি জ্ঞাত’ থাকতে পারেন বলেও বিবৃতিতে স্বীকার করেছেন তিনি।

তারপরও বলেছেন, “যাই ঘটুক, আমাদের সম্পর্ক সউদী আরবের সঙ্গে।”

খাশোগি ২ অক্টোবর ইস্তাম্বুলের সউদী কনসুলেটে যাওয়ার পর খুন হন।

এই হত্যাকাণ্ডের জন্য ‘অসৎ গোয়েন্দাদের’ দায়ী করেছে সউদী আরব তবে ক্রাউন প্রিন্স এ খুনের পরিকল্পনার বিষয়ে কিছু জানতেন না বলে দাবি করেছে।

কিন্তু ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানই ওই খুনের আদেশটি দিয়েছিলেন, মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা সিআইএ-র এমনটি বিশ্বাস বলে জানিয়েছে মার্কিন গণমাধ্যম।

বিবৃতিতে ট্রাম্প বলেছেন,“এই শোচনীয় ঘটনার বিষয়ে ক্রাউন প্রিন্স হয়তো সবই জানতেন, হয়তো তিনি করেছেন অথবা হয়তো তিনি করেননি!”

মঙ্গলবারই পরে তিনি বলেছেন, “সিআইএ ওই হত্যাকাণ্ডের বিষয় ১০০% নিশ্চিত হতে পারেনি।”

ইরানের বিরুদ্ধে সউদী আরব যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র, বিবৃতিতে এ কথা বলার আগে ট্রাম্প বলেছেন, “এই বিশ্ব অত্যন্ত বিপজ্জনক একটি জায়গা!”

সউদী আরব ‘র‌্যাডিক্যাল ইসলামিক টেরোরিজমের বিরুদ্ধে লড়াই পরিচালনা করতে বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার’ খরচ করেছে, অপরদিকে ইরান ‘মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে বহু মার্কিন ও অন্যান্য নিরপরাধ লোককে হত্যা করেছে’, বিবৃতিতে বলেছেন তিনি।

বিবৃতিতে সউদী বিনিয়োগ প্রতিশ্রুতি ও অস্ত্র ক্রয়চুক্তির বিষয়ে জোর দিয়েছেন ট্রাম্প।

বলেছেন, “আমরা যদি বোকার মতো এসব চুক্তি বাতিল করি তবে এর সুবিধাভোগী হবে রাশিয়া ও চীন।”

খাশোগির হত্যাকাণ্ডকে ‘ভয়ানক’ বলে স্বীকার করেও ট্রাম্প লিখেছেন, “এই মৃত্যুর বিষয়ে আমরা হয়তো কখনোই সব কিছু জানাতে পারবো না।

“আমাদের দেশ, ইসরায়েল ও ওই অঞ্চলের অন্যান্য অংশীদারদের স্বার্থ নিশ্চিত রাখতে যুক্তরাষ্ট্র সউদী আরবের মতো একনিষ্ঠ অংশীদারের সঙ্গেই থাকতে ইচ্ছুক।”

পরে ট্রাম্প জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহে আর্জেন্টিনায় জি২০ বৈঠকে ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান উপস্থিত থাকলে তিনি তার সঙ্গে বৈঠক করবেন।

এর আগে রোববার ফক্স নিউজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প জানিয়েছিলেন তিনি তুরস্কের দেওয়া খাশোগির খুনের টেপ শুনতে রাজি হননি। এ সময় ওই টেপটিকে ‘পীড়াদায়ক টেপ’ বলে অভিহিত করেছিলেন তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ