Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৫ পৌষ ১৪২৫, ১১ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

জাতীয় পার্টি থেকে নির্বাচন করছেন লে. জে. (অব.) মাসুদ চৌধুরী

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২১ নভেম্বর, ২০১৮, ১:৫৫ পিএম | আপডেট : ৩:১২ পিএম, ২১ নভেম্বর, ২০১৮

অবশেষে এরশাদের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টিতে (জাপা) জায়গা হলো আলোচিত সেনা কর্মকর্তা লে. জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর। অর্থাৎ জাতীয় পার্টি থেকেই নির্বাচন করছেন তিনি।

গতকাল আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জাতীয় পার্টিকে ৪০টি আসন দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করার পরই মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর বিষয়টি স্পষ্ট হয়।

এর আগে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ফেনী-৩ আসন (সোনাগাজী-দাগনভূঞা) থেকে প্রথমে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে মনোনয়ন ফরম নেন তিনি। তার পাঁচ দিনের মাথায় গত বুধবার তিনি জাতীয় পার্টির (জাপা) মনোনয়ন ফরম কেনেন।

এর পরদিন জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে তাকে সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য করা হয়।

সম্প্রতি জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে আওয়ামী লীগের কাছে প্রার্থী চূড়ান্ত করতে দর কষাকষির অংশ হিসেবে যে চিঠি দেওয়া হয়, তার সঙ্গে দলটির সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকাও দেওয়া হয়। সেই তালিকায় নাম ছিল আলোচিত ওই সেনা কর্মকর্তার।

এরপর গতকাল মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে জাতীয় পার্টিকে যে ৪০টি আসন দেওয়ার কথা বলা হয়েছে, সে তালিকাতেও নাম রয়েছে মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর। সেখানে ফেনী-৩ আসন থেকে তার নির্বাচন করার কথা বলা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে ৪০ জনের এই তালিকা দেওয়ার পরই এটি স্পষ্ট হয় যে, সাবেক সেনা কর্মকর্তা মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী জাতীয় পার্টি থেকেই নির্বাচন করছেন।

২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারি তখনকার তত্ত্বাবধায়ক সরকার দায়িত্ব নেয়ার সময় সাভারের নবম পদাতিক ডিভিশনের জিওসি ছিলেন মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। ওই বছরই লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি পান তিনি। তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দেশের দুর্নীতি-অনিয়ম দূর করতে ‘গুরুতর অপরাধ দমন সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি’ গঠন করা হয়। লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীকে এ কমিটির প্রধান সমন্বয়ক হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়। দুই বছর বিভিন্ন অভিযান পরিচালনা করে গুরুতর অপরাধ দমন সংক্রান্ত জাতীয় কমিটি। এতে নেতৃত্ব দেন তিনি।

২০০৮ সালের ২ জুন মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীকে ডিফেন্স কলেজের কমান্ড্যান্ট পদে বদলি করা হয়। ৮ জুন তার চাকরি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ন্যস্ত করা হয়। একই বছরের ২ সেপ্টেম্বর অস্ট্রেলিয়ায় বাংলাদেশের হাইকমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান তিনি। ওই বছরের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরীর চাকরির বয়সসীমা শেষ হয় ২০১১ সালের ২৯ জুন। এরপর প্রথমে তিন মাস করে দুই দফায় তার চাকরির মেয়াদ বাড়ানো হয়। পরবর্তী সময়ে আরো দুই দফায় এক বছর তার চাকরির মেয়াদ বাড়ে। ২০১৪ সালে অবসরে যান তিনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ