Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১৭ ডিসেম্বর ২০১৮, ০৩ পৌষ ১৪২৫, ৯ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে বড় বাধা অদক্ষ জনশক্তি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৫ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে উন্নত দেশগুলো ব্যাপক ভাবে এগিয়ে গেছে। কিন্তু বাংলাদেশে সে হারে এগুচ্ছে না। এর পেছনে প্রধান প্রতিবন্ধকতা দক্ষ মানব শক্তির ঘাটতি। বেশির ভাগ মানুষই বিষয়টি বোঝে না। যারা বোঝে তারা এ বিষয়ে খুব একটা দক্ষ না। যদিও ডিজিটাল মার্কেটিংই বিজ্ঞাপনী সংস্থার ভবিষ্যৎ। এ অবস্থায় দেশে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রসারের সঙ্গে দক্ষ মানব শক্তি গড়ার প্রতি জোর তাগিদ দিলেন বিশেষজ্ঞরা।

রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে গতকাল শনিবার দিনব্যাপী পঞ্চম ডিজিটাল মার্কেটিং সামিটের বিভিন্ন সেশনে দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞদের বক্তব্যে এসব কথা উঠে আসে। এবারের সম্মেলনের প্রতিপাদ্য ‘ডেলভিং ডিপ ইনটু ডিজিটাল।’ কন্টেন্ট ম্যাটারসের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশ ব্র্যান্ড ফোরাম এ সামিটের আয়োজন করে।

সম্মেলনের সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছে মেঘনা গ্রæপ অব ইন্ডাস্ট্রিজ। অনুষ্ঠানে ডিজিটাল প্রফেশনালসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রের প্রায় ৪০০ অতিথি অংশ নেন। ছিলেন ডিজিটাল মার্কেটিং খাতের দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ। সকাল থেকেই সম্মেলন স্থল রূপ নেয় ডিজিটাল মার্কেটারদের মিলনমেলায়
বক্তরা বলেন, বাংলাদেশে পণ্য বা সেবার প্রচার খাতটি নতুন হলেও উন্নত বিশ্বে তা ব্যাপকভাবে এগিয়ে গেছে। তবে দেশে এখনও ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে দক্ষ কর্মী সেভাবে গড়ে ওঠেনি। আর দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে প্রয়োজন প্রশিক্ষণ ও অধিক কর্মশালা। পাশাপাশি বিজ্ঞাপনী সংস্থার প্রচলিত ধারা পরিবর্তনে প্রয়োজন মানসিকতার পরিবর্তনও।

উদ্বোধনীতে ব্র্যান্ড ফোরামের প্রতিষ্ঠাতা ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘ডিজিটাল ধারণার মাধ্যমে আমরা এখন যেকোনো ব্র্যান্ডকে ভাঙতে বা গড়তে পারি। আমরা বর্তমানে একটি বিস্তৃত ডিজিটাল ইকোসিস্টেমের পৃষ্ঠভাবে দাঁড়িয়ে আছি। এ সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা বিশ্বব্যাপী প্রচলিত বিভিন্ন দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরার এবং প্রশ্ন উত্থাপনের চেষ্টা করছি।

এবারের সামিটে ৫ জন বিদেশি মার্কেটার অংশ নেন। এছাড়াও আসরে ছিলেন ২২ জন দেশি বিশেষজ্ঞ। ছিলেন একাধিক প্যানেল। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন ফিলিপাইনের ডেন্টুস এজিস নেটওয়ার্কের কান্ট্রি সিইও ডোনাল্ড প্যাট্রিক লিম। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের প্রতিবন্ধকতা তুলে ধরে বক্তারা বলেন, বিজ্ঞাপনী সংস্থার ৫০ থেকে ৬০ শতাংশ কর্মী পূর্বের, যারা প্রচলিত বিজ্ঞাপনে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন। এ ছাড়াও বড় সমস্যা হচ্ছে মানসিকতা। তাই ডাটা ব্যবহারে মানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে।
বক্তারা বলেন, বিজ্ঞাপনের প্ল্যাটফর্ম ও ডিজিটাল বিজ্ঞাপনের সঠিক ব্যবহারের অভাব রয়েছে। অনেক ক্ষেত্রে ডিজিটাল মার্কেটিংয়ে আসা তরুণেরা মার্কেট সম্পর্কে ধারণা রাখে না। তাদের জন্য মার্কেট ওরিয়েন্টেশন দরকার। প্রথমেই তাদের মার্কেটিং শেখানো উচিত এবং পরে ডিজিটাল মার্কেটিং। সবমিলিয়ে দক্ষতা বাড়িয়ে তোলার কথা বলেন বক্তারা।
সম্মেলনে আরও বক্তব্য দেন যুক্তরাজ্যের ওয়ান এজেন্সির প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক উবাহ বাটার, নিভিয়া ইন্ডিয়া প্রাইভেট লিমিটেডের এক্সপোর্টস অ্যান্ড ই-কমার্সের বাণিজ্যিক পরিচালক যোগেশ শ্রফ, স্পাইরাল কন্টেন্ট সলিউশন্সের প্রতিষ্ঠাতা রাজন শ্রীনিবাস, নিয়েলসেন ইন্ডিয়ার নির্বাহী পরিচালক ডলি ঝা প্রমুখ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ