Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

ভোটারদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

সাতক্ষীরায় ইভিএমের ব্যবহার

আক্তারুজ্জামান বাচ্চু, সাতক্ষীরা থেকে : | প্রকাশের সময় : ২৮ নভেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সাতক্ষীরা সদর-২ সংসদীয় আসনে ইভিএম ব্যবহারকে কেন্দ্র করে ভোটারদের মাঝে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। অনেকেই এ পদ্ধতিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখলেও কেউ কেউ আবার এ নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করছেন। এমনকি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এবং প্রার্থীদের মাঝেও নতুন এই প্রযুক্তি নিয়ে রয়েছে কৌত‚হল।

সাধারণ ভোটাররা জানায়, ইভিএমের ব্যবহার সম্পর্কে তাদের সঠিক ধারণা নেই। এপ্রযুক্তিতে তারা কখনো ভোটও দেইনি। হঠাৎ করে এমন মেশিনে কার ভোট কোথায় দিয়ে বসবো তাই নিয়ে ভাবনার শেষ নেই। কয়েকজন বয়স্ক ভোটার এ প্রতিনিধিকে প্রশ্ন করে বলেন, ‘খোকা যে প্রতীকে ভোট দেবো, আমার ভোটটি সেই প্রতীকে যাবে তো’? তবে নির্বাচন কর্মকর্তারা জানান, অল্পসময়ের মধ্যে দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের উপযুক্ত প্রশিক্ষণ ও সাধারণ ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টি করা হবে।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, এই প্রযুক্তি নির্বাচনে ব্যবহারের মাধ্যমে ১০টি সুবিধা পাওয়া যাবে। এর মধ্যে ভোটগ্রহণের আগে মেশিন চালু না হওয়া ও মেশিন ছিনতাই হলেও অবৈধ ভোটদান বন্ধ, পাসওর্য়াড সুরক্ষিত থাকায় অনুমোদিত ব্যক্তির বাইরে মেশিন চালু করা সম্ভব নয়। ভোট শুরুর আগে-পরে শূন্য ভোটিং ও প্রিন্টিং করার সুবিধা। স্বয়ংক্রীয়ভাবে ফলাফল প্রিন্ট, ঘোষণা ও বিতরণ করার ব্যবস্থা। ভোট সম্পন্ন হওয়ার পর ভোটারের সন্তুষ্টির জন্য ধন্যবাদ শব্দ যুক্ত করা হয়েছে এই ইভিএমে।

সাতক্ষীরা সদর-২ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় প্রার্থী ও সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি বলেন, এই প্রযুক্তি নতুন। তবে সামরিক বাহিনীর সদস্যরা নির্বাচনী কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষনের ব্যবস্থা করবে। জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে এই পদ্ধতির মাধ্যমে অতি অল্প সময়ের মধ্যে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারবেন।

সাতক্ষীরা জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক এস এম মোস্তফা কামাল বলেন, ইভিএম নিয়ে ভোটারদের মাঝে নানা কৌতুহল রয়েছে। এই প্রযুক্তি যদি যথাযথভাবে প্রয়োগ করতে পারি তাহলে ভোটাররা ইভিএমে আকৃষ্ট হবেন বলে তিনি মনে করেন। তিনি আরো বলেন, আমরা যে উন্নত বিশ্বের স্বপ্ন দেখি তা একদিন বাস্তবায়িত হবে।

প্রসঙ্গত, ভারত সীমান্ত ঘেষা সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত সাতক্ষীরা-২ আসন। এই আসনে ৩ লাখ ৫৬ হাজার ২৬৯ জন ভোটার রয়েছে। যার মধ্যে ১ লাখ ৭৮ হাজার ৯৭৮ জন পুরুষ ভোটার ও ১লাখ ৭৭ হাজার ২৯৮ জন নারী ভোটার রয়েছে। এই আসনে ভোট কেন্দ্র রয়েছে ১৩৭ টি। বুথের সংখ্যা ৬৯৮টি



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ