Inqilab Logo

ঢাকা বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ৬ কার্তিক ১৪২৭, ০৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

টাঙ্গাইলে ঋণ খেলাপীর দায়ে ঐক্যফ্রন্ট নেতা বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়পত্র বাতিল

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ২ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৩:৪৯ পিএম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টাঙ্গাইলের ৮টি আসনে ১৪টি মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়েছে। টাঙ্গাইল ৪ ও ৮ আসনে ঋণ খেলাপীর দায়ে ঐক্যফ্রন্ট নেতা ও কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তমের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে জেলা রিটানিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মোঃ শহিদুল ইসলাম। রবিবার দুপুর ২টায় মনোনয়ন যাচাই বাছাই ও শুনানী শেষে এই মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

এদিকে মনোনয়নপত্র বাতিল বিষয়ে কৃষক শ্রমিক জনতালীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী বীরোত্তম আপিল করবেন বলে জানান। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, এনিয়ে তিনবার আমার মনোনয়নপত্র বাতিল করা হলো। যতদিন এই সরকার থাকবে ততদিন আমি ভোটে দাঁড়াতে পারবো না। সরকার প্রতিহিংসার বশবতি হয়ে আমার ঋণ পরিশোধের অন্তরায় সৃষ্টি করেছে। তিনি বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সময় সবাই আমার বিপক্ষে ছিল শুধু জনগণ আমাদের পক্ষে ছিল। আজ সরকার আমার বিপক্ষে কিন্ত জনগণ আমার পক্ষে রয়েছে।
এছাড়া ঋণ খেলাপীর দায়ে টাঙ্গাইল-১ আসনে বিএপির প্রার্থী ফকির মাহাবুব আনাম স্বপন ও টাঙ্গাইল-৬ আসনে বিএপির প্রার্থী নুর মোহাম্মদ খানের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়। এছাড়া যাদের মনোনয়ন পত্র বাতিল হয়েছে, তারা হলেন টাঙ্গাইল-৩ আসনে মোঃ চাঁন মিয়া(এনপিপি),আতাউর রহমান খান (বিএনএফ), টাঙ্গাইল-৪ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী মোঃ বাকির আলী ও আবুল কাশেম, টাঙ্গাইল-৬ আসনে মোঃ সুলতান মাহমুদ(বিএনএফ), মামুনুর রহমান(এনপিপি), টাঙ্গাইল ৭ আসনে মজিবর রহমান(খেলাফত মজলিস), টাঙ্গাইল ৮ আসনে আশরাফ সিদ্দিকী(জাতীয় পার্টি), স্বতন্ত্র প্রার্থী কাজী শহীদুল ইসলাম, আব্দুল লতিফ(খেলাফত মজলিস)।
টাঙ্গাইলে সর্বমোট আটটি আসনে ৮৩জন প্রার্থীর মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। রোববার যাচাই বাছাই ও শুনানী শেষে ১৪টি মনোনয়নপত্র জেলা রিটানিং অফিসার বাতিল করেছেন। এই নিয়ে টাঙ্গাইলের আটটি আসনে বর্তমানে বৈধ প্রার্থীর সংখ্যা ৬৯ জন। টাঙ্গাইল-২ আসনে আওয়ামী লীগের দুইজন প্রার্থী ও টাঙ্গাইল-৫ আসনে আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পাটির প্রার্থী রয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ