Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯, ০৭ কার্তিক ১৪২৬, ২৩ সফর ১৪৪১ হিজরী

ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মামলা মাঠে পিবিআই

| প্রকাশের সময় : ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৭ এএম

পার্টনারে অটো-রাইস মিলের ব্যবসা করতে গিয়ে পথে বসেছে টিপু সুলতান নামে এক তরুণ যুবক। যৌথ ব্যবসার মুনাফা তো দূরের কথা, এখন আসল টাকাই আত্মসাতের চেষ্টা করছেন আজাদ আমিন নামে এক ব্যবসায়ী। তিনি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার হাটগোপালপুরের আমিন উদ্দীন বিশ্বাসের ছেলে। টিপু সুলতান টাকা উদ্ধারের জন্য আজাদ আমিনের বিরুদ্ধে ঝিনাইদহের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ৪০৬/৪২০ ধারায় মামলা করেছেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করার নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী ১৫ দিসেম্বর মামলার পরবর্তী দিন রয়েছে। আদালতে দাখিল করা নালিশি অভিযোগ টিপু সুলতান উল্লেখ করেছেন, ২০০৯ সালে যৌথ বিনিয়োগে আজাদ আমিনের সাথে একটি বাছাই (অটো-রাইস) মিল স্থাপনের সিদ্ধান্ত নেন তিনি। সে মোতাবেক টিপু সুলতান ১৪ লাখ ৮০ হাজার টাকায় তার দুইটি ট্রাক বিক্রি করে ব্যাংকের মাধ্যমে আসামি আজাদ আমিনকে তার চলিতি হিসাব নং ৫৫২, হটিগোপালপুর শাখা সোনালী ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে দেন। সর্বমোট টিপু সুলতান বিন্নি সময় ৪৩ লাখ ৯৫০ টাকা আজাদ আমিনকে দেন। দুই বছর সাতমাস মিলটি চলার পর লাভ্যাংশ অংশ মোতাবেক ভাগাভাগি করে নেন। বাদীর সাথে আসামির সুসম্পর্ক থাকায় তাদের মধ্যে কোনো লিখিত ছিল না। কিছুদিন চলার পর বাদী টিপু সুলতান একটি মামলায় গ্রেফতার হলে তার অবর্তমানে মুক্তার মৃধা ও কবিরসহ পাঁচজনকে পার্টনার করে নতুন করে চুক্তিবদ্ধ হন আজাদ আমিন। বাদী জামিনে মুক্ত হয়ে আসামির সাথে যোগাযোগ করলে তিনি যৌথ ব্যবসার কথা অস্বীকারসহ বিনিয়োগ ও লাভের টাকাও দিতে অস্বীকার করেন। স্থানীয় ভাবে এ ব্যাপারে সালিস বৈঠক হলে তিনি বাদীর কাছ থেকে ওই টাকা লোন হিসেবে গ্রহণ করেছেন বলে স্বীকার করেন। পরবর্তীতে তিনি টাকা পর্যায়ক্রমে ফেরত দিতে অঙ্গীকার করেন। কিন্তু অদ্যাবধি আসামি কোনো টাকা পরিশেধ করেননি। উপরন্ত তিনি টাকা চাইলে টাকার কথা অস্বীকার করে বাদীকে খুন-জখমের হুমকি দিচ্ছেন। আজাদ আমিন অন্যায়ভাবে লাভবান হওয়ার জন্য টিপু সুলতানের টাকা আত্মসাতের চেষ্টা করছেন বলে বাদী তার আর্জিতে উল্লেখ করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন