Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ১০ ডিসেম্বর ২০১৮, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৫, ২ রবিউস সানী ১৪৪০ হিজরী

বিএনপির প্রার্থী নিয়ে ধূম্রজাল

সুনামগঞ্জ-১ আসন

সুনামগঞ্জ জেলা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সুনামগঞ্জ-১ আসনে বিএনপি তিন জনকে মনোনয়নপত্র দাখিলের চিঠি দেওয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের মধ্যে ধু¤্রজাল দেখা দিয়েছে। এ তিন জন রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে মনোনয়নপত্র দাখিলও করেছেন। এরা হচ্ছেন, সাবেক এমপি নজির হোসেন, জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনিসুল হক ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল। 

এদিকে, মনোনয়নপত্র যাচাই বাছাইয়ে কামরুজ্জামান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে পদত্যাগ না করার কারণে রিটার্নিং অফিসার কামরুজ্জামানের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন। যাচাই বাছাইয়ে নজির হোসেন ও আনিসুল হকের মনোনয়নপত্র বৈধ হওয়ায় তারা এখন মাঠ চষে বেড়াচ্ছেন।

সুনামগঞ্জের ৫টি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগ ৪টি আসনে একক প্রার্থী দিয়েছে। কিন্তু বিপরীতে বিএনপির এ চারটি আসনে একাধিক প্রার্থী মনোনয়ন দেওয়ায় তৃণমূল নেতাকর্মীরা কিছুটা বিভ্রান্তির মধ্যে রয়েছেন।
জেলার ধর্মপাশা, তাহিরপুর ও জামালগঞ্জ উপজেলা নিয়ে গঠিত সুনামগঞ্জ-১ আসন। এ আসনে মোট ভোটার সংখ্যা ৩ লাখ ৯৯ হাজার ৩৫৯ জন। এরমধ্যে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৮৮৯ জন পুরুষ ও ১ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭০ জন নারী ভোটার রয়েছেন। এ আসনে মোট ভোট কেন্দ্র হচ্ছে ১৫০টি ।
নজির হোসেন : এক সময়ের ডাকসাইটে এই বাম নেতা ১৯৯১ সাল পর্যন্ত সুনামগঞ্জ জেলা কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৯১ সালে ৮ দলীয় জোটের প্রার্থী হিসাবে নৌকা প্রতীক নিয়ে প্রথম সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। পরে এই বাম নেতা নজির হোসেন কৃষক, শ্রমিক, মসৎ্যজীবী ও মজুরের স্বপ্ন ও অধিকার বাস্তাবায়নের আদর্শকে জলাঞ্জলি দিয়ে বিএনপিতে যোগদেন। বিএনপিতে যোগদান করে নজির হোসেন দলের নীতি নির্ধারক বিশেষ করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব তারেক রহমানের ঘনিষ্টজন হিসেবে পরিচিত হন। এক পর্যায়ে সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এবং পরে সভাপতিও হন নজির হোসেন। ওয়ান-ইলিভেনের পট পরিবর্তনের সময় তিনি সংস্কারপন্থী কেন্দ্রীয় নেতার পরিচিতি লাভ করেন। ওয়ান-ইলেভেন পরবর্তী সময়ে বেকায়দায় পড়েন এক সময়ের এই বাম নেতা। বিএনপি ও অংগসংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংস্কারপন্থী নেতা হিসেবে পরিচিত লাভ করেন এমনকি বিএনপি’র জেলা কমিটি থেকেও বাদ পড়েন তিনি। ২০০৮ এর জাতীয় নির্বাচনে বিএনপি থেকে মনোনয়ন না পেয়ে সুনামগঞ্জ-১ (জামালগঞ্জ-ধর্মপাশা ও তাহিরপুর) ও সুনামগঞ্জ-৪ (সদর উত্তর ও বিশ্বম্ভরপুর) আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করেন।
আনিসুল হক : তাহিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর এ নেতা এলাকায় জনপ্রিয় হয়ে উঠেন। বিগত একযুগ তিনি তাহিরপুর, জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চল চষে বেড়িয়েছেন। তিনি বিএনপি ও অংগঠনের নেতাকর্মীদের সক্রিয় রেখেছেন তার গণসংযোগের মাধ্যমে।

এদিকে, বর্তমান সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র দাখিল করছেন।
অপরদিকে, বিএনপি থেকে বিকল্পধারায় সদ্য যোগদানকারি ডা. রফিকুল ইসলাম চৌধুরী বিকল্পধারার প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দাখিল করেছেন। একারণে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে জল্পনা কল্পনা চলছে বিকল্পধারার প্রার্থী রফিক মহাজোটের প্রার্থী হয়ে যাচ্ছেন কিনা।



 

Show all comments
  • ক্ষমতার রাজনীতি ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২৬ এএম says : 0
    কেন্দ্র থেকে যাকেই চূড়ান্ত ভাবে মনোনয়ন দেয়া হবে তার পক্ষে সকল নেতাকর্মীকে কাজ করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Abdul Mazed ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২৩ এএম says : 0
    আশা করি সময় হলে সব ঠিক হয়ে যাবে। ধানের শীষ যেই পাবে তার পক্ষেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • অর্ণব ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২৪ এএম says : 0
    আনিসুল হক জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে ভালো অবস্থানে রয়েছে। সে ধানের শীষকে বিজয়ী করতে পারবে, ইনশায়ল্লাহ।
    Total Reply(0) Reply
  • আমজনতা ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২৬ এএম says : 0
    স্বৈরাচারকে ক্ষমতা থেকে বিদায় করতে হলে বিএনপির সকল নেতাকর্মী ও সমর্থকদের ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। ব্যক্তি নয় প্রতীককে বিজয়ী করে দেশকে আরেকবার স্বাধীন করতে হবে।
    Total Reply(0) Reply
  • গাজী ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২৭ এএম says : 0
    বিএনপি ধুম্রজালে পড়ে থাক, মাঝ খান দিয়ে আওয়ামী লীগ আসন দখল করবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Engr Amirul Islam ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১০:৩৬ এএম says : 0
    insha'Allah if there is fair election BNP will win as people will vote them.
    Total Reply(0) Reply
  • Mohammed.karim ৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৩:৫৩ পিএম says : 0
    Wait and see
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর