Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার ২২ জুলাই ২০১৯, ০৭ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৮ যিলক্বদ ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

মধুর সমস্যায় রোডস

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

বাংলাদেশ ক্রিকেট দলে ওপেনিংয়ের সমস্যা দীর্ঘদিনের। তামিম ইকবালের সঙ্গী খুঁজতে গিয়ে বিসিবি কেবল তালিকাটাই দীর্ঘঅয়িত করেছে। জুনায়েদ সিদ্দিক, এনামুল হক বিজয়দের ধুমকেতুর মত আসা-যাওয়ার মাঝে কিছুটা আশা জাগিয়েছিলেন ইমরুল কায়েস ও সৌম্য সরকার। কিন্তু কেউই স্থির হতে পারেননি। হালে তাদের সঙ্গে যোগ হয়েছেন লিটন দাশ। এশিয়া কাপে তামিমের অনুপস্থিতিতে ‘পরীক্ষা’ চালানো হয়েছে নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়েও। এরপর নতুন ওপেনিং জুটিতে জিম্বাবুয়ে বিপক্ষে সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। এবার ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজকে সামনে রেখে মধুর সমস্যায় পড়তে হচ্ছে টাইগার দলকে। ওপেনিং পজিশনে খেলা সব ব্যাটসম্যানই যে রয়েছেন রানের মধ্যে।
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সবশেষ ওয়ানডেতে ওপেনিংয়ে নেমেছিলেন ইমরুল ও লিটন। তিনে খেলেছিলেন সৌম্য সরকার, যিনি মূলত ওপেনার। প্রস্তুতি ম্যাচে ঝোড়ো সেঞ্চুরি দিয়ে চোট কাটিয়ে ফিরেছেন চলতি বছর ওয়ানডেতে দারুণ ছন্দে থাকা তামিম ইকবাল। এমতাবস্থায় প্রশ্ন এসেই যাচ্ছে আগামীকাল থেকে শুরু হতে যাওয়া তিন ম্যাচের সিরিজে ওপেনিংয়ে নামছে কোন দুই জন?
বাংলাদেশ কোচ স্টিভ রোডস এর সঠিক জবাব দিতে পারেননি, ‘এটা খুব কঠিন একটা সিদ্ধান্ত হবে। কিন্তু কী অসাধারণ একটি পরিস্থিতিতে আমরা আছি। আমরা বাংলাদেশের ক্রিকেটে গভীরতার জন্য মরিয়া ছিলাম। অবশেষে আমরা এর খানিকটা নমুনা দেখছি।’ তিনি যোগ করেন, ‘জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচে ইমরুল ৩৪৯ রান করেছিল। চোট কাটিয়ে ফেরা তামিম ছন্দে আছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে লিটন ৮৩ রানের একটা ইনিংস খেলেছিল, এশিয়া কাপের ফাইনালে ভারতের বিপক্ষে করেছিল সেঞ্চুরি। সৌম্য তিনে নেমে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছিল,প্রস্তুতি ম্যাচেও সেঞ্চুরি করল। এটা দলের জন্য খুব স্বাস্থ্যকর।’
বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে গত বৃহস্পতিবার প্রস্তুতি ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ডাকওয়ার্থ ও লুইস পদ্ধতিতে ৫১ রানে হারায় বিসিবি একাদশ। এই দলে ছিলেন ওয়ানডে সিরিজের স্কোয়াডের সাত ক্রিকেটার। তাদের দেখতে জাতীয় দলের অনুশীলন রেখে তাই বিকেএসপিতে উপস্থিত ছিলেন রোডস। ম্যাচ সম্পর্কে তার মূল্যায়ন, ‘কয়েক জন খেলোয়াড়ের জন্য এই প্রস্তুতি ম্যাচ খুব গুরুত্বপূর্ণ ছিল। চোট কাটিয়ে ফেরার পর মাঠে কিছু সময় কাটানো তামিমের জন্য খুব জরুরি ছিল। যদিও খেলার বাইরে ছিল তবুও মনে হয়েছে ও নিজের সেরা ছন্দে আছে। এটা আমাদের জন্য বাড়তি সুবিধা। ও আমাদের ওয়ানডে দলে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি অংশ, সৌম্যও তাই।’
কেবল মধুর এই সমস্যা নিয়ে মেতে নেই রোডস। বাংলাদেশ সফরে এসে এখন পর্যন্ত জয়হীন থাকা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে নিয়ে একটু বেশিই ভাবতে হচ্ছে। একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচেও ক্যারিবীয়রা হারে বিসিবি একাদশের কাছে। রোডস মনে করেন, বাংলাদেশের দেখানো পথ ধরেই হাঁটতে চাইবে সফরকারীরা, ‘এই তিন ম্যাচ খুব কঠিন হবে। জিততে হলে আমাদের সেরা ক্রিকেট খেলতে হবে। আমরা ওয়েস্ট ইন্ডিজকে সমীহ করি। টেস্ট সিরিজে হেরে ওরা তেতে আছে। ক্যারিবিয়ানে টেস্ট সিরিজ হারার পর আমরা ওয়ানডে সিরিজে দৃঢ়ভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছিলাম। ওরাও এই ধরনের কিছু করতে চাইবে। ওদের ব্যাপারে আমাদের খুব সতর্ক থাকতে হবে। ওরা ভালো একটি দল।’
প্রস্তুতি ম্যাচে দাপুটে ব্যাটিংয়ে সেঞ্চুরি করেন তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। বাঁহাতি টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান সৌম্য মনে করেন, এই জয় ওয়ানডে সিরিজে স্বাগতিকদের আত্মবিশ্বাস অনেক বাড়িয়ে দেবে, ‘এই ধারাবাহিকতা যদি সবাই ধরে রাখতে পারি, এই আত্মবিশ্বাস যদি সবার মাঝে থাকে পরের ম্যাচগুলোতে এই জয় অবশ্যই সাহায্য করবে। প্রস্তুতি ম্যাচে তিনশ রানের ওপরের লক্ষ্য তাড়ায় সহজেই জিতেছি। তো মূল ম্যাচেও যদি আমরা এভাবে ভালো শুরু করতে পারি তাহলে তিনশ রানের লক্ষ্য সেখানেও কোনো ব্যাপার হবে না।’

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন