Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, ০৭ ফাল্গুন ১৪২৫, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪০ হিজরী।

রাসূল প্রেমের রৌশনী বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তে পৌঁছে গেছে

আরব আমীরাতে কাগতিয়ার এশায়াত মাহফিলে সৈয়দ মুনির উল্লাহ আহমদী

| প্রকাশের সময় : ৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

প্রেস বিজ্ঞপ্তি : আলহাজ্ব আল্লামা ছৈয়্যদ মুহাম্মদ মুনির উল্লাহ্ আহমদী বলেছেন, নবীর যুগের ১৪৫০ বছর পর এসে প্রিয় রাসুলের প্রেমের রৌশনিতে কাগতিয়ার নিভৃত পল্লী থেকে যে তরিক্বতের সূচনা হয়েছিল তা আজ বিশ্বের প্রতিটি প্রান্তরে পৌছে গেছে। এ যেন বিন্দু থেকে সিন্ধু। তিল তিল শ্রম সাধনায় গড়ে তুলেছেন বিশ্বজোড়া তরিক্বতের অদ্বিতীয় পাঠশালা কাগতিয়া দরবার শরীফ। বিশ্বের প্রান্তে প্রান্তে সমস্ত দিগন্তে নবীর নূরের ঐশী আলোতে দিশেহারা মানুষ আসলেন আল্লাহপ্রাপ্তির সামিয়ানায়।
ঘুমন্ত অন্তরাত্মায় জাগ্রত হল নবী প্রেমের প্রেরণা। কাগতিয়ার মরহুম পীর সাহেব ঘোষণা দিলেন, হে যুবক! নামাজ পড়, রোজা রাখ, নবী করিম (দঃ) এর উপর দরূদ পড়, মাতৃভূমি শান্ত কর। এ ডাক পৌঁছে গেল পৃথিবীর রন্ধ্রে রন্ধ্রে জনপদে লোকালয়ে। তারই ধারাবাহিকতায় জজিরাতুল আরব তথা আরব মরু প্রান্তরে মোখলেছ তরিক্বতপন্থীদের আনাগোনা।
তিনি গত শুক্রবার মিলাদুন্নবী (দ.) উপলক্ষে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি বাংলাদেশ, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ওমানের উদ্যোগে দুবাইস্থ আল মারাবিয়া স্ট্রিট, ডাসকু ক্লাবে আয়োজিত বিশাল এশায়াত মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।
তিনি বলেন, তথ্য প্রযুক্তির অপব্যবহারের মারাত্মক আগ্রাসন থেকে মুসলিম যুবক-যুবতীদের চরিত্র, ঈমান ও আক্বিদা রক্ষা করতে হলে গাউছিয়্যতের প্রযুক্তি গ্রহণ করা এখন সময়ের দাবি। তিনি সকলকে এ কালজয়ী দর্শন নিয়ে গবেষণা করার জন্য বিশেষ আহবান জানান। এছাড়াও তিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে আমিরাতের সর্ববৃহৎ ধর্মীয় এই মাহফিল করার সুযোগ করে দেয়ায় দুবাইসহ আমিরাতের সাতটি প্রদেশের শাসকদের ধন্যবাদ ও তাদের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।
কমিটির সাংগঠনিক তদারক পরিষদের আহবায়ক আলহাজ্ব নূর মুহাম্মদ সিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এশায়াত মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সংযুক্ত আরব আমিরাত ওলামা পরিষদের আহবায়ক আলহাজ্ব মাওলানা শফিউল আলম, মাওলানা মাহাবুবুল আলম বোগদাদীসহ আরো অনেকে। বিশেষ অতিথি ছিলেন কমিটির দুবাই শাখার সভাপতি আলহাজ্ব মনির উদ্দিন, মাহফিল বাস্তবায়ন পরিষদের আহবায়ক আলহাজ্ব হারুন এম. আজাদসহ আমিরাতের বিশিষ্ট কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ।
মাহফিলে দেশ, জাতি, বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর শান্তি, অগ্রগতি ও উপস্থিত সকলের ইহকালীন কল্যাণ, পরকালীন মুক্তি কামনা করে বিশেষ মুনাজাত করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মাহফিল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ