Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার ২৬ জুন ২০১৯, ১২ আষাঢ় ১৪২৬, ২২ শাওয়াল ১৪৪০ হিজরী।

উচ্চ শিক্ষায় অবদান রাখতে চায় ঢাকা স্কুল অব ইকনোমিকস

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১১ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৫:৪২ পিএম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অঙ্গীভূত প্রতিষ্ঠান ঢাকা স্কুল অব ইকনোমিকস (ডিএসসিই) দেশের উচ্চ শিক্ষার গুণগতমান চালুর মাধ্যমে অর্থনৈতিক উন্নয়নে অবদান রাখতে চায়। এজন্য দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশে যেসব বিভাগ বা কোর্স চালু হয়নি এমন সব বিষয় পড়ানোর উদ্যোগ নিবে। কর্ম উদ্যোগী মানব সম্পদ ও উদ্যোক্তা তৈরি করতে নতুন নতুন পাঠ্যক্রম চালু করবে। স্নাতকোত্তর পর্যায়ে তিনিটি প্রোগ্রাম চালু থাকলে চলতি শিক্ষাবর্ষে প্রথমবারের মতো স্নাতক পর্যায়ে উন্নয়ন অর্থনীতি এবং উদ্যোক্তা অর্থনীতি চালু করবে।

মঙ্গলবার (১১ ডিসেম্বর) রাজধানীতে প্রতিষ্ঠানটির সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন ডিএসসিইর গভর্নিং কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ও পল্লী কর্ম সহায়ক ফাউন্ডেশনের (পিকেএসএফ) ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ। ডিএসসিইর উদ্যোক্তা অর্থনীতি বিভাগের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহবুব আলী স্বাগত বক্তব্য রাখেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, ইতোমধ্যে দেশে প্রথমবারের মত চালু হয়েছে স্নাতকোত্তর কোর্স মাষ্টার্স অব এন্ট্রাপ্রিনিয়র ইকোনমিক্স বা উদ্যোক্তা অর্থনীতি প্রোগ্রামস। যা দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম। এদিকে উদ্যোক্তা অর্থনীতির ব্যাপক চাহিদার কারণে সার্টিফিকেট কোর্স চালুর ব্যাপারটি বিবেচনাধীন। অন্যান্য বিভাগে স্বল্প মেয়াদী সার্টিফিকেট কোর্স চালুর মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষায় অবদান রাখতে চায় প্রতিষ্ঠানটি।

ড. কাজী খলীকুজ্জমান আহমদ বলেন, পাঠ্যক্রম এমনভাবে তৈরি করা হয়েছে যাতে শিক্ষার্থীরা নিজেদের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলার মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে ভূমিকা রাখতে পারে। নিজেরা স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি কর্মসংস্থান সৃষ্টি করে বেকারত্ব হ্রাসে সহায়তা করতে পারে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক করা হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে বিশ্বভারতীর অর্থনীতি বিভাগ, থাইল্যান্ডের নারিসুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়। এসব বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে ডিএসসিইর শিক্ষার্থীরা গবেষণা ও পড়ালেখার সুযোগ পাবেন। পাশাপাশি বিভিন্ন জার্নালে গবেষণা নিবন্ধ প্রকাশের সুযোগ পাবে। সার্বিকভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিকে একটি সেন্টার অব এক্সিলেন্স হিসেবে গড়ে তোলা হবে।

প্রফেসর ড. মুহম্মদ মাহবুব আলী বলেন, সামগ্রিক অর্থে উদ্যোক্তা অর্থনীতির বিকাশ দেশের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা সমৃদ্ধার করবে। দেশে উচ্চ শিক্ষার গুণগত মান বজায় রাখতে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর পর্যায়ে নিবিড়ভাবে ছাত্র-ছাত্রীদের বিশেষ তত্ত্বাবধানে বর্তমানে পড়ানো হচ্ছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: উচ্চ শিক্ষায়
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ