Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার, ২৩ জানুয়ারি ২০১৯, ১০ মাঘ ১৪২৫, ১৬ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

বগুড়ায় বাণিজ্য মেলার নামে কোটি টাকার জুয়া হাউজি লটারি

প্রকাশের সময় : ৬ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

মহসিন রাজু, বগুড়া থেকে : প্রায় ১ মাস ধরে বগুড়ার টেলিভিশন দর্শকরা টিভি সিরিয়াল দেখা ছেড়ে দিয়েছে। কারণ সন্ধ্যা হলেই এখন বগুড়ার বাণিজ্য মেলা থেকে সরাসরি “কেবল টিভি নেটওয়ার্কের” মাধ্যমে প্রচারিত হচ্ছে দোকান পাট ছাড়া বাণিজ্য মেলার দৈনিক লটারির ফলাফল ঘোষণা!
যেখানে লটারির ড্র’ পরিচালক “ওঠাও বাচ্চা, নেড়ে চেড়ে ওঠাও”Ñ বলে আকর্ষণীয় ঢং এ ঘোষণা করছে ফলাফল। আর বগুড়া শহর ও শহরতলীর প্রায় ৯৮ শতাংশ টিভি দর্শক লটারির নেশায় বুঁদ হয়ে দেখছে ওই দৃশ্য। বাণিজ্য মেলার যৌথ আয়োজক বগুড়া চেম্বার অব কমার্স এবং জেলা প্রশাসন। দুঃসহ গরমের কারণে কথিত এই আন্তর্জার্তিক বাণিজ্য মেলা চত্বরে কোন দেশী/বিদেশী স্টল যেমন নেই, তেমনি কোন দর্শক/ ক্রেতার সমাগম নেই। তবে শুধু উল্লাস লটারি নাম দিয়ে প্রতিদিন প্রায় কোটি টাকার টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে মেলা চত্বরের বাইরে পুরো জেলার মোট ১শ’৩০টি স্পটে। এছাড়াও এই নামকাওয়াস্তের বাণিজ্য মেলার পাশেই রয়েছে ভিন্ন আয়োজনে জুয়া হাউজির বিশাল আয়োজন। এধরনের লটারি ও জুয়া হাউজির কোন বৈধ অনুমতি না থাকলেও আয়োজকরা আওয়ামী লীগ/যুবলীগ/শ্রমিক লীগের সাথে সরাসরি জড়িত থাকায় প্রশাসন এসব প্রতিরোধে কোন ভুমিকায় যাচ্ছেনা।
এই বেআঈনী কর্মকাÐ সম্পর্কে জানতে চাইলে বগুড়া চেম্বার সভাপতি মাসুদার রহমান মিলন সাংবাদিকদের জানান, “মেলার অনুমতি তাদের নামে নেওয়া হলেও সেটা তারা পরিচালনার জন্য টাকার বিনিময়ে অন্যদের সাবলেট দিয়েছেন। তাই সাবলেট গ্রহণকারীরা মেলার ভেতরে বাইরে কি করছে তার সেটা জানা নেই। তবে অবৈধ কিছু হয়ে থাকলে সেটা প্রতিকারের দায়িত্ব পুলিশ/প্রশাসনের, চেম্বারের নয়।
একই বিষয়ে বগুড়া জেলা প্রশাসক মোঃ আশরাফ উদ্দিন সাংবাদিকদের বলেছেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও প্রশাসন শুধু মেলার অনুমোদন দিয়েছে লটারি কিংবা জুয়ার জন্য অনুমোদন দেয়নি। পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান বলেছেন অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
শহরের কামারগাড়ীতে চলমান মেলায় আগত কলোনী, সুত্রাপুর, রহমান নগর, জলেশ্বরীতলা এলাকার কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা গেল বাণিজ্য মেলায় কেনাকাটা করার জন্য এসে দেখলাম নামকা ওয়াস্তে এমন কিছু দোকান পাট থাকলেও সেখানে কেনাকাটার জন্য কিছুই নেই। তবে জুয়া ও লটারির জন্য লোকজন এসেছে মেলায়। পুলিশ পাহারাও দিচ্ছে সেখানে। পুলিশ সম্ভবত জুয়া হাউজি ও লটারির আয়োজকদের নিরাপত্তা দিতেই সেখানে অবস্থান করছে... এমন মন্তব্য করলেন কেউ কেউ।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ