Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল বিধায়ককে লক্ষ্য করে গুলি : নিহত ৩

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পশ্চিমবঙ্গের দক্ষিণ ২৪ পরগণার জয়নগরে তৃণমূল বিধায়ক বিশ্বনাথ দাসের গাড়ি লক্ষ্য করে দুষ্কৃতীরা হামলা চালালে বিধায়কের সঙ্গী ৩ জন নিহত হয়েছেন। অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছেন তৃণমূল বিধায়ক। নিহতদের স্থানীয় তৃণমল নেতা, ‘জয়হিন্দ বাহিনী’র সভাপতিও রয়েছেন। অপর দু’জনের মধ্যে রয়েছেন বিধায়কের ভাড়া-করা গাড়ির চালক ও স্থানীয় এক বাসিন্দা। তারাও তৃণমূল করত বলে দাবি করা হয়েছে।
ঘটনার সময় জয়নগরের পেট্রলপাম্পে দাঁড়িয়ে ছিল বিধায়কের গাড়ি। সেই সময় অতর্কিতে হামলা হয়। দুষ্কৃতীরা বিধায়কের গাড়ি লক্ষ্য করে ঝাঁকে ঝাঁকে গুলি করার সঙ্গেই বোমা ছোড়ে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। নিহতদের মধ্যে দু’জনের নাম জানা গেছে। সাইফুদ্দিন খান ও সেলিম খান। তবে, ভাড়ার গাড়ির চালকের নাম জানা যায়নি। এই সাইফুদ্দিন খানই ‘জয় হিন্দ বাহিনী’র সভাপতি।
ঘটনার পর বিধায়ক বলেন, দুষ্কৃতীরা আমাকেই টার্গেট করেছিল। ভেবেছিল আমি গাড়িতেই রয়েছি। কিন্তু, আমি ঘটনার কিছুক্ষণ আগেই গাড়ি থেকে নেমে গিয়েছিলাম। পেট্রলপাম্পে দাঁড় করানো গাড়িতে তৃণমূলের আরও তিন নেতা ছিলেন। তাদের ঝাঁঝরা করে দেয় দুষ্কৃতীরা।
বিশ্বনাথ দাস জানান, রোজ সন্ধ্যায় নিয়ম করেই তিনি জয়নগরের ওই পেট্রলপাম্পে গিয়ে সঙ্গীসাথীদের সঙ্গে চা খান। সেখান থেকে পার্টি অফিসে যান। এদিন একটি সভা থেকে ফিরছিলেন বলে পেট্রলপাম্পের আগে বহডুতে নেমে যান। গাড়িটি পেট্রোলপাম্পে গিয়েছিল তেল তুলতে। তখনই গাড়ি লক্ষ্য করে এই হামলা চালানো হয়। তিনি যে গাড়িতে ছিলেন না, হামলাকারীরা তা বুঝতে পারেনি।
কারা এই হামলা চালাল, তদন্ত শেষ না-হওয়া পর্যন্ত দক্ষিণ ২৪ পরগণা পুলিশ এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে রাজি হয়নি। তবে, সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তীর মতো বিরোধীদের দাবি, এই খুন রাজ্যের শাসকদলের গোষ্ঠীদ্ব›েদ্বর পরিণতি। সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত

২০ এপ্রিল, ২০১৯
১৯ এপ্রিল, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন