Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২১ অক্টোবর ২০২০, ৫ কার্তিক ১৪২৭, ০৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪২ হিজরী

শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি প্রেসিডেন্ট-প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৩ এএম

শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন প্রেসিডেন্ট আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল সকালে নগরীর মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তারা ।
পুষ্পস্তবক অর্পণের পর তারা উভয়ই যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ বুদ্ধিজীবী পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের খোঁজ-খবর নেন। ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের চূড়ান্ত বিজয়ের একদিন আগে দেশ ও জাতির জন্য আত্মোৎসর্গকারী মহান বীরদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে সকাল ৭টা ৫ মিনিটে প্রেসিডেন্ট পুষ্পার্ঘ্য অর্পণ করেন। শ্রদ্ধা নিবেদনের পর প্রেসিডেন্ট সেখানে কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় বিউগলে করুণ সুর বেজে ওঠে।
এরপর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শহীদ বুদ্ধিজীবীর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সেখানে কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় মন্ত্রী পরিষদের সদস্যবৃন্দ, সংসদ সদস্য, তিন বাহিনীর প্রধান, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র এবং উচ্চ পর্যায়ের সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনা দলীয় প্রধান হিসেবে কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশে নিয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিসৌধে আরেকটি পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। পরে প্রধানমন্ত্রী রাজধানীর ধানমন্ডিতে যান এবং শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি জাদুঘরের সামনে স্থাপিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন এবং সেখানে কিছুক্ষণ নিরবে দাঁড়িয়ে থাকেন।
শেখ হাসিনা দলীয় প্রধান হিসেবে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের পাশে নিয়ে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে আরেকটি পুস্পস্তবক অর্পণ করেন।
১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীর সদস্যরা তাদের স্থানীয় দোসরদের সহায়তায় শিক্ষক, সাংবাদিক, চিকিৎসক, শিল্পী, প্রকৌশলী ও লেখকসহ দুই শতাধিক বুদ্ধিজীবীদের ধরে নিয়ে যায়।
পাকিস্তানী সৈন্যরা বুদ্ধিজীবীদের ধরে মিরপুর, মোহাম্মদপুর, নাখালপাড়া, রাজারবাগসহ বিভিন্নস্থানে হানাদার বাহিনীর নির্যাতন কেন্দ্রে নিয়ে নির্যাতন করে তাদের ওপর হত্যাযজ্ঞ চালায়। এ সবের মধ্যে রায়েরবাজার ও মিরপুর ছিল উল্লেখযোগ্য। এরপর থেকেই দিনটি শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।
এদিকে দিবসটি উপলক্ষে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী রংপুরের পীরগঞ্জ শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণ করেন। এ সময় তিনি বলেন, নতুন প্রজন্মকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণ করে দেশ গড়তে এগিয়ে আসতে হবে। শহীদ বুদ্ধিজীবীদের আত্মত্যাগ ও স্বাধীনতার প্রকৃৃত ইতিহাস তরুণ প্রজন্মকে জানাতে হবে।
তিনি বলেন, জাতিকে মেধাশূন্য করার হীন চক্রান্ত চরিতার্থ করতে বিজয়ের ঠিক আগ মুহূর্তে ১৯৭১ সালের ১৪ ডিসেম্বর জাতির সূর্য সন্তানদের নির্মমভাবে হত্যা করে স্বাধীনতা বিরোধী রাজাকার আল বদররা। সেই সব বরেণ্য বুদ্ধিজীবীদের জাতি শ্রদ্ধাভরে চিরদিন স্মরণ করবে। এ সময় পৌরসভার মেয়র তাজিমুল ইসলাম শামীম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান রাঙ্গা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কেন্দ্রীয় কমান্ড এর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন শিক্ষা, সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান এবং সর্বস্তরের নাগরিক সমোজের প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে শহীদ বুদ্ধিজীবিদের মাগফেরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।
স্টাফ রিপোর্টার গোপালগঞ্জ থেকে জানান, গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে শহিদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে একাডেমিক ভবনে স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ স্মরণ সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. খোন্দকার নাসিরউদ্দিন।
স্মরণ সভায় অন্যান্যের বক্তব্য রাখেন সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. গোলাম শাহি আলম, জীববিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. এম এ সাত্তার, আইন অনুষদের ডীন আবদুল কুদ্দুস মিয়া, মনোবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি মুহাম্মদ রবি উল্লাহ, প্রমুখ
পাবনা থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, পাবনা জেলা আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠন ও অন্যান্য রাজনৈতিক, সংগঠন বিনম্র শ্রদ্ধায় শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করে। পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে দিনটি যথাযথ মর্যাদায় ও ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশে পালন করা হচ্ছে। প্রথম প্রহরে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানাতে প্রশাসন ভবনের সামনে থেকে শোক র‌্যালি বের হয়। র‌্যালি ক্যাস্পাস প্রদক্ষিণ শেষে স্বাধীনতা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান ভিসি প্রফেসর ড. এম রোস্তম আলী, প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. আনোয়ারুল ইসলাম ও ট্রোজারার প্রফেসর ড মোঃ আনোয়ার খসরু পারভেজ। এছাড়া পাবনা সরকারি এডওয়ার্ড কলেজ, সরকারি শহীদ বুলবুল কলেজ, শহীদ এম. মনসুর আলী ডিগ্রী কলেজ, সরকারি পাবনা কলেজ, বেসরকারি পাবনা কলেজ, সিটি কলেজ, পাবনা আইনজীবী সমিতি, পাবনা প্রেসক্লাসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করেছে গভীর শ্রদ্ধায়।
রাজবাড়ী জেলা সংবাদদাতা জানান, রাজবাড়ীতে জেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে সকালে বুদ্ধিজীবী দিবস পালিত হয়েছে। শহীদ বুদ্ধিজীবি দিবস উপলক্ষে সকালে জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে কালো পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন এবং জাতীর জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়।
ভোলা জেলা সংবাদদাতা জানান, ভোলা ওয়াপদা কলনীর বধ্যভ‚মিতে ও ভোলা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রঙ্গনে শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের স্মৃতিস্তম্ভে ভোলা জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুস্পস্তবক প্রদান করা হয়েছে।
ভোরে ভোলা জেলা প্রশাসন এর পক্ষ থেকে বধ্যভ‚মি ও স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা জানান স্থানীয় সরকার উপ-পরিচালক মাহমুদুর রহমান, ভোলা জেলা অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মৃধা: মো: মোজাহিদুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মো: সেলিম রেজা, পুলিশ প্রশাসনের পক্ষে সহকারী পুলিশ সুপার শেখ সাব্বির এর নেতৃত্বে পুলিশের একটি দলসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বুদ্ধিজীবী দিবস

১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৪ ডিসেম্বর, ২০১৭

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ