Inqilab Logo

ঢাকা, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯, ৭ বৈশাখ ১৪২৬, ১৩ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

এখনো জমেনি নির্বাচনী পরিবেশ

আ.লীগে কোন্দল : পিছিয়ে বিএনপি

আরিচা সংবাদদাতা : | প্রকাশের সময় : ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

মানিকগঞ্জ-১ (শিবালয়, ঘিওর, দৌলতপুর) আসনে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রচার-প্রচারণা এখনো জমে উঠেনি। প্রতীক পেয়ে প্রার্থী ও নেতা-কর্মীদের একযোগে মাঠে ব্যাপক প্রচারণায় নামার দৃশ্য দেখতে পাচ্ছেন না এলাকার ভোটাররা। এ আসনের সংসদ সদস্য ও আওয়ামী লীগের দলীয় প্রার্থী সাবেক ক্রিকেট তারকা এএম নাঈমুর রহমান দুর্জয়ের পক্ষে প্রচারণা পরিলক্ষিত হলেও বিএনপি প্রার্থী মানিকগঞ্জ জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এসএ জিন্নাহ কবিরের পক্ষে প্রচারণা তেমন একটা পরিলক্ষিত হচ্ছে না। নৌকা প্রার্থীর পক্ষে সাংগঠনিক সভা, উঠান বৈঠক, পোস্টার, ব্যানার টাঙ্গানো, কেন্দ্র ভিত্তিক কমিটি গঠন করা হলেও ধানের শীষের প্রার্থীর পক্ষে তেমন তৎপরতা নেই।
এ আসনে ২০০৮ এ নির্বাচিত আওয়ামী লীগের দলীয় এমপি ইঞ্জিনিয়ার এবিএম আনোয়ারুল হক সিংহ প্রতীকে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্ব›দ্বীতা করছেন। তার পক্ষে কিছু এলাকায় পোস্টার সাটানো হলেও প্রার্থীর দেখা পাচ্ছেন না এলাকার ভোটাররা। এ আসনে অপর দু’প্রার্থী রয়েছেন ইলামী আন্দোলনের আলহাজ মো. খোরশেদ আলম (হাতপাখা) এবং মুসলিমলীগের মো. ফারুক হোসেন মাসুদ (হারিকেন)। এ দু’প্রার্থীর মধ্যে হাতপাখার পক্ষে চরমোনাই পীরের অনুসারিরা এলাকায় ঘুরে ভোট প্রার্থনা করলেও দেখা মিলছে না হারিকেন প্রার্থীর।
বিএনপি’র একজন সাবেক নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ক্ষোভের সাথে জানান, বিএনপির সাবেক মহাসচিব মরহুম খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের এ আসনে তিন উপজেলায় প্রায় ২০বছর ধরে অনুমোদিত বিএনপির পূর্ণাঙ্গ কোন কমিটি নেই। অঙ্গসংগঠন যুবদল, শ্রমিকদল, ছাত্রদলসহ অন্যান্য অঙ্গ-সহযোগী সংগঠনের অবস্থা একই রকমের। কোনটির অনুমোদিত পুরনো কমিটি থাকলেও তা প্রায় নিস্ক্রিয়। এছাড়া, পুলিশি আতঙ্কে অধিকাংশ নেতা-কর্মী সমর্থক দলীয় কার্যক্রম থেকে দূরে রয়েছে। আবার অনেকেই এলাকা ছাড়া। তাছাড়া, এ আসনের সাবেক এমপি খোন্দকার দেলোয়ার হোসেনের পুত্র আব্দুল হামিদ ডাবলু মনোনয়ন না পাওয়ায় তার সমর্থক নেতা-কর্মীরা এবারের নির্বাচনে অনেকটা নিস্ক্রিয় হয়ে গেছে। ফলে ধানের শীষের পক্ষে প্রচারণায় ভাটা পড়েছে। এদিকে, বিএনপি’র প্রার্থী এস এ জিন্নাহ কবির অভিযোগ করেছেন তার প্রচারণায় বাধা দেওয়া হচ্ছে, পোস্টার ছিড়ে-পুড়িয়ে ফেলা হচ্ছে। অপরদিকে, আওয়ামী লীগের বর্তমান এমপি ও সাবেক এমপি মুখোমুখী প্রতিদ্ব›দ্বী হওয়ায় নেতা-কর্মীদের মধ্যে নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ সরব উপস্থিতি পাচ্ছেন না এলাকার ভোটাররা। ফলে এ আসনে নির্বাচন এখনো জমে উঠেনি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ