Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ জানুয়ারি ২০১৯, ১১ মাঘ ১৪২৫, ১৭ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

মহান বিজয় দিবস আজ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৮ এএম

আজ মহান বিজয় দিবস। মহান বিজয়ের ৪৭ বছর পূর্ণ হল আজ। বাঙালি জাতির হাজার বছরের শৌর্যবীর্য এবং বীরত্বের এক অবিস্মরণীয় দিবস। বীরের জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার দিন। পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশ নামে একটি স্বাধীন ভূখন্ডের নাম জানান দেয়ার দিন।
২৬ মার্চ থেকে শুরু হল চূড়ান্ত লড়াই। দীর্ঘ ৯ মাস মুক্তিসংগ্রামের পর পরাজয় মেনে নেয় পাকিস্তান সেনাবাহিনী। জাতির স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে নয় মাস সশস্ত্র মুক্তিযুদ্ধের পর ১৯৭১ সালের আজকের দিনে রেসকোর্স ময়দানে (সোহরাওয়াদী উদ্যান) ৯১ হাজার ৪৯৮ জন নিয়মিত অনিয়মিত এবং আধা সামরিক সৈন্য নিয়ে ইস্টার্ন কমান্ডের প্রধান লে. জেনারেল আমীর আব্দুল্লাহ খান নিয়াজী আত্মসমর্পণ করেন সম্মিলিত বাহিনীর প্রধান জেনারেল জগজিত সিং অরোরা’র কাছে।
শুরু হয় বিশ্বের মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটা নতুন রাষ্ট্র বাংলাদেশের পথচলা। সেই থেকে ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস পালিত হয়ে আসছে। এই মুক্তিযুদ্ধে পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, ভুটান, সাবেক সোভিয়েত ইউনিয়নসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ সাহায্য-সহযোগিতা করে। আজ সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে জনতার ঢল নামবে। শ্রদ্ধার সাথে তারা শহীদের উদ্দেশে নিবেদন করবেন পুষ্পাঞ্জলি। রাজধানী ঢাকাসহ সারাদেশের সব প্রান্তের মানুষ অংশ নেবে বিজয় দিবসে। বঙ্গবন্ধুর বজ্র নিনাদ ভাষণ আর মুক্তিযুদ্ধের সময়ের জাগরণী গানে আকাশ-বাতাস হবে মুখরিত। মহান বিজয় দিবসে ঊপলক্ষে পৃথক বানীতে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন।
যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস-২০১৮ উদ্যাপনের লক্ষ্যে এবার জাতীয় পর্যায়ে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। ১৬ ডিসেম্বর ঢাকায় প্রত্যুষে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা হবে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। এরপর মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রীর নেতৃত্বে উপস্থিত বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার, যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা ও বীর মুক্তিযোদ্ধাগণ পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি কূটনীতিকবৃন্দ, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনসহ সর্বস্তরের জনগণ পুষ্পস্তবক অর্পণ করে মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।
আজ সরকারি ছুটির দিন। সকল সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হবে এবং গুরুত্বপূর্ণ ভবন ও স্থাপনাসমূহ আলোক সজ্জায় সজ্জিত করা হয়েছে। ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন শহরের প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপসমূহ জাতীয় পতাকা ও অন্যান্য পতাকায় সজ্জিত করা হয়েছে। ঢাকার বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিভিন্ন বাহিনীর বাদক দল বাদ্য বাজাবেন।
দিবসটি উপলক্ষে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি, বাংলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘর, বাংলাদেশ শিশু একাডেমিসহ বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক আলোচনা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের চিত্রাঙ্কন, রচনা ও ক্রীড়া প্রতিযোগিতা এবং মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনের আয়োজন করবে।
এছাড়া, মহানগর, জেলা ও উপজেলায় বীর মুক্তিযোদ্ধা এবং শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে। বাংলাদেশ ডাক বিভাগ স্মারক ডাক টিকিট প্রকাশ করবে। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানসমূহে দেশের শান্তি, সমৃদ্ধি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ দোয়া ও উপাসনার আয়োজন করা হবে এবং এতিমখানা, বৃদ্ধাশ্রম, হাসপাতাল, জেলখানা, সরকারি শিশুসদনসহ অনুরূপ প্রতিষ্ঠানসমূহে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন করা হবে। দেশের সকল শিশু পার্ক ও জাদুঘরসমূহ বিনা টিকিটে প্রবেশর জন্য উন্মুক্ত রাখা হবে।
দিবসটি উপলক্ষে দুদিনব্যাপী কর্মসূচির হাতে নিয়েছে আওয়ামী লীগ। সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়, বঙ্গবন্ধু ভবন ও সারাদেশের সংগঠনের কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও দলীয় পতাকা উত্তোলন। সকাল ৬টা ৩৪ মিনিটে সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে পুষ্পার্ঘ্য নিবেদন (প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর পর)। সকাল ৮টায় বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন। সকাল দশটায় টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদনসহ জিয়ারত, দোয়া ও মিলাদ মাহফিল। পরের দিন ১৭ ডিসেম্বর বিকেল ৩টায় বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বিজয় দিবসের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
মহান বিজয় দিবস যথাযথ মর্যাদায় পালন উপলক্ষে কেন্দ্রীয় ১৪ দল আজ থেকে মাসব্যাপী দেশের সকল জেলা-উপজেলায় ‘বিজয় মঞ্চ’ স্থাপন করে নানা কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এই ‘বিজয় মঞ্চে’ স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ভিত্তিক আলোচনাসভা, বিজয় র‌্যালি, আলোকচিত্র, ডকুমেন্টারি ও চলচ্চিত্র প্রদর্শন, মুক্তিযুদ্ধের গান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বিলবোর্ড, ব্যানার, ফেস্টুন ও পোস্টার প্রকাশ করা হবে।
এদিকে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সকাল ৮টায় বিএনপি’র কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দসহ সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী সাভারস্থ জাতীয় স্মৃতি সৌধে পুস্পস্তবক অর্পণ করবেন। এছাড়া সকাল ১০টায় নয়াপল্টনস্থ বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে বর্নাঢ্য বিজয় র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।
বিজয়ের এই ৪৭ বছর অনেক চরাই-উতরাই পেরিয়েছে জাতি। কখনো সামনে এগিয়েছে, আবার পিছিয়ে গেছে নানা রাজনৈতিক টানাপোড়নে। তবুও হতোদ্যম হয়নি জাতি। হার না মানা বাঙালি অর্থনৈতিক-সামাজিক এবং ক্রীড়াতেও উড়াচ্ছে বিজয় নিশান।#



 

Show all comments
  • Mohiuddin Ahmed ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৪৭ এএম says : 0
    বিজয়ের ...৪৭ বছর। মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা !!! বিজয়ের এই মাসে সকল শহীদের প্রতি আমার বিনম্রশ্রদ্ধা...
    Total Reply(0) Reply
  • Razib Ahmed ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৪৭ এএম says : 0
    মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। সকল শহীদদের প্রতি রইলো বিনম্র শ্রদ্ধা
    Total Reply(0) Reply
  • Musharouf Opurbo ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৪৯ এএম says : 0
    সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা। আজকের বিশেষ দিনে আমাদের প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হতে হবে, যেন সমাজের সকল শ্রেণির মানুষেরা সমান সুবিধা ভোগ করতে পারে। স্বাধীনতার প্রায় চার যুগ পরেও আমরা বাংলাদেশকে সফল রাষ্ট্র হিসেবে গড়তে পারিনি। গণতন্ত্র, মানবাধিকার, আইনের শাসন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা প্রায় নেই ববললেই চলে! দেশের শিক্ষার্থীরা টেকসই, যুগোপযোগী, শিক্ষা গ্রহণ করতে পারছে না। পরীক্ষার পূর্বে প্রশ্নফাস রুটিনে পরিণত হয়েছে। দেশের লাখ লাখ শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষা থেকে বঞ্চিত। যারা পড়াশোনা করছে, তাঁরা শিক্ষাজীবন শেষ করে হচ্ছে বেকার। কর্মসংস্থানের কোন সুযোগ নেই। এমন ব্যর্থ রাষ্ট্র কী চেয়েছিলাম? স্বাধীনতার চার যুগ পরেও বাংলাদেশ একাত্তরের আদর্শ থেকে যোজন যোজন দূরে, যা অপ্রত্যাশিত। সরকারের একার পক্ষে রাষ্ট্রের সকল সমস্যা দূর করা সম্ভব নয়, আমাদের সকলের নিজ নিজ অবস্থান থেকে দেশের জন্য; দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে হবে। বাংলাদেশকে সফল, সমৃদ্ধ, গণতান্ত্রিক, বৈষম্যহীন, মানবিক রাষ্ট্র হিসেবে দেখতে চাই। আজকের বিশেষ দিনে এটাই আমার প্রত্যাশা।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Ratan Khan ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫০ এএম says : 0
    Bijoyer mash..bijoyer sobbessa ...deske balobasun .deser manuske balobasun..vlo thakun ..shustho thakun
    Total Reply(0) Reply
  • Khan Rafiqul Islam, Prof. Dhaka College ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫১ এএম says : 0
    ১৯৭১সালের ১৬ ডিসেম্বর বাঙালি জাতির ইতিহাসে চিরঅম্লান, গৌরবজ্জল ও অহংকারের একটি দিন। আজকের এদিনে ৩০লাখ শহিদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধাঞ্জলি।সবাইকে মহান বিজয় দিবসের রক্তিম শুভেচ্ছা।
    Total Reply(0) Reply
  • Ariyen Sagor ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫২ এএম says : 0
    ভালোবাসি বাংলাদেশ তোমায়,,,
    Total Reply(0) Reply
  • মোঃ শাহীন মি য়া ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫৩ এএম says : 0
    এক সাগর রক্তের বিনিময়ে, বাংলার স্বাধীনতা আনলো যারা, আমরা তোমাদের ভুলবো না। ১৯৪৭ সাল থেকে ১৯৭১ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে এবং ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনে আহত, নিহত সকল মুক্তিযুদ্ধাদের জানাই বিনম্র শ্রদ্ধা ও লাল সালাম। আমরা তোমাদের ভুলবো না। জাতি তোমাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছে।
    Total Reply(0) Reply
  • Ekushey ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫৪ এএম says : 0
    আজ মহান বিজয় দিবস। বাঙালি জাতির হাজার বছরের শৌর্যবীর্য এবং বীরত্বের এক অবিস্মরণীয় দিন। বীরের জাতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করার দিন।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Golam Mostofa ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৫৪ এএম says : 0
    আজ ১৬ ডিসেম্বর । মহান বিজয় দিবস । ১৯৭১ সালের এই দিনে ৩০ লক্ষ শহীদের তাজাপ্রাণ এবং দীর্ঘ ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের বিনিময়ে আমরা পেয়েছি আমাদের প্রাণতুল্য মাতৃভূমি , বাংলাদেশ । সবাইকে মহান বিজয় দিবসের শুভেচ্ছা আর যাদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে এ বিজয় তাদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ।
    Total Reply(0) Reply
  • Shihab_U ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৭:১৭ এএম says : 0
    মহান বিজয় দিবসে আমরা সকলেই গর্বিত।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ