Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২১ এপ্রিল ২০১৯, ৮ বৈশাখ ১৪২৬, ১৪ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

টাঙ্গাইলের লতিফ সিদ্দিকীর গাড়ি বহরে হামলা, প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি

টাঙ্গাইল জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৭:২১ পিএম | আপডেট : ৭:২৯ পিএম, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮

টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের গোহালিয়া ইউনিয়নের বিয়ারা মারুয়া এলাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় টাঙ্গাইল জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছেন লতিফ সিদ্দিকী। এসময় তিনি প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, আমি কোন হানাহানি চাই না। আমি কোন সন্ত্রাসী কার্যকলাপ দেখতে চাই না। আমি নির্বাচন করছি। নির্বাচনে অংশ গ্রহণ করা সকল নাগরিকের অধিকার আছে। আমি তাই স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে নির্বাচন করছি। আমি সরকারের বিরুদ্ধে কোন কাজ করছি না। আমি বর্তমান সাংসদ হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। তার ইশারায় আজ আমার উপর হামলা হয়েছে। আমার গাড়ি বহরে হামলা করেছে।
তিনি আরো বলেন, এতদিন এমপি থেকে সোহলে হাজারী অনেক লুটপাট করেছে। আমি যখন এমপি নির্বাচন করতে মাঠে নেমেছি তখন সে পাগল হয়ে গেছে। আমাকে নির্বাচন করতে বাঁধা প্রদান করছে। আমি শান্তি চাই। আমি কারো কোন ক্ষতি চাই না। আমি চাইলে অনেক কিছুই হতো। কিন্তু আমি সাধারণ মানুষের কথা চিন্তা করে সুষ্ঠভাবে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। আমি এর বিচার চাই। এরআগেও কালিহাতী থানার ওসিসহ অনান্যদের বিরুদ্ধে তিনবার অভিযোগ দিয়েছি কিন্তু কোন কাজ হয়নি। তাই আজ বাধ্য হয়ে আমি অবস্থান নিয়েছি। আমি মৃত্যুকে ভয় পাই না। আমি এর সুষ্ঠ বিচার চাই। দোষীদের শাস্তি চাই। সেই সাথে কালিহাতী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)’র প্রত্যাহার চাই। যে পর্যন্ত নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ তৈরি না হবে ততক্ষন পর্যন্ত আমি অবস্থান কর্মসূচী পালন করবো। প্রয়োজনে অনশন করবো।
এদিকে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শহিদুল ইসলাম এ নিয়ে কয়েক দফায় আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর সাথে কথা বলেন এবং এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্তসহ দোষীদের আইনের আওতায় এনে বিচারের আশ্বাস দিলেও আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী অবস্থান থেকে সরে আসেনি।
সর্বশেষ এ ঘটনার বিষয়ে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী নিজে একটি লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন।
জানা যায়, টাঙ্গাইল-৪ (কালিহাতী) আসনের গোহালিয়া ইউনিয়নের বিয়ারা মারুয়া এলাকায় সতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর নির্বাচনী প্রচারনায় বের হন। পরে কালিহাতীর গোহালিয়া বাড়ি এলাকায় নির্বাচনী প্রচারনায় যাওয়ার সময় সেখানকার স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা বর্তমান সংসদ সদস্য হাসান ইমাম খানের ইন্দনে তার গাড়ি বহড়ে হামলা করে। এতে তার ব্যক্তিগত গাড়িসহ আরো তিনটি গাড়ি ভাংচুর করা হয়। এসময় ইট পাটকেলের আঘাতে তার কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হয়।
এ ঘটনায় আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী ওই আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হাসান ইমাম খান সোহেল হাজারীকে দায়ী করে এ হামলার প্রতিবাদে জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তার অফিসের সামনে কর্মী সমর্থকদের নিয়ে অবস্থান ধর্মঘট পালন করছেন।
এ রির্পোট লেখা পর্যন্ত অবস্থান কর্মষূচি পালন করছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ