Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯, ১১ ভাদ্র ১৪২৬, ২৪ যিলহজ ১৪৪০ হিজরী।

বিজয় দিবস উদযাপিত

সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে লাখো মানুষের ঢল

সেলিম আহমেদ, সাভার | প্রকাশের সময় : ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৬ এএম

যথাযথ মর্যাদা, বিনম্র শ্রদ্ধা আনন্দ-উদ্বেলের মধ্যদিয়ে উদযাপিত হলো বিজয় দিবস। লাখো শহীদ স্মরণে হাতে লাল সবুজের পতাকা আর রং-বেরঙের ফুল, হৃদয় নিংরানো গভীর শ্রদ্ধা আর ভালোবাসা নিয়ে লাখো মানুষের ঢল নেমেছিলো সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে। যাদের রক্তের বিনিময়ে ২২ বছর পাকিস্তানি শাসনের অবসান ঘটেছিল, বিশ্বের মানচিত্রে অভ্যুদয় ঘটেছিল বাংলাদেশের; বিজয়ের সেই ৪৭তম বার্ষিকীতে দেশের সূর্য্য সন্তানদের স্মরণ করছে জাতি। গতকাল রোববার সকাল ৬টা ৩৮মিনিটে প্রেসিডেন্ট মোঃ আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে সেই মুক্তিসেনাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। এসময় তিন বাহিনীর একটি চৌকস দল সামরিক কায়দায় সালাম জানায়। শহীদদের স্মরণে বিউগলে বেজে উঠে করুণ সুর। নীরবে দাঁড়িয়ে জাতির বীর সন্তানদের স্মরণ করেন প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রী।
সারাদেশে দিবসটি উদযাপিত হয়েছে। ঢাকা ও দেশের বিভিন্ন শহরের প্রধান সড়ক ও সড়কদ্বীপ জাতীয় পতাকা ও নানা রঙের আলোকসজ্জা করা হয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ বিভাগীয়, জেলা শহরগুলোতে বিজয় র‌্যালি বের করা হয়। বিভিন্ন রাজনৈতিক দল দিবসটি নিজেদের মতো করে পালন করেন। বিশেষ করে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ায় বিভিন্ন দলের প্রার্থীরা নিজেদের মতো করে বিজয় দিবস উদযাপন করেন নির্বাচনী প্রচারণার অংশ হিসেবেই। বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্কুল-কলেজ-মাদরাসা দিবসটি পালন করে।
প্রধানমন্ত্রী হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দেয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী হিসাবে দলের নেতা-কর্মীদের নিয়ে স্মৃতিসৌধে ফুল দেন। এরপরে স্পিকার, ১৪ দল, তিন বাহিনীর প্রধান, মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, সংসদ সদস্য, বীরশ্রেষ্ঠ পরিবার ও যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা, বাংলাদেশে অবস্থিত বিদেশি কূটনীতিকবৃন্দ, মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণকারী ভারতীয় আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ, ঢাকায় কর্মরত বিভিন্ন দেশের কূটনীতিকদের শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন অন্যান্য নির্বাচন কমিশনাররা। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা সাংবাদিকদের বলেছেন, অত্যান্ত দৃঢ়তার সাথে বলতে পারি নির্বাচন সুষ্ঠু হবে। সকলে অংশগ্রহণ করবে সেরকম অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে।
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন নিয়ে নিজের প্রত্যাশার কথা জানাতে গিয়ে সিইসি বলেন, সকলেই সহযোগিতা করবেন, আচরণবিধি সবাই মেনে চলবেন। নির্বাচনের নিয়ম কানুন মেনে চলবেন। ভিআইপিদের শ্রদ্ধা জানানোর পর জাতীয় স্মৃতিসৌধ জনসাধারনের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হয়। পরে লাল সবুজের পতাকা আর ফুল হাতে জনতার ঢল নামে স্মৃতিসৌধ প্রাঙ্গণে। ফুলে ফুলে ভরে উঠতে থাকে শহীদ বেদী। সকালে দিকে দর্শনার্থীদের উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা বাড়ার সাথে সাথে বাড়তে থাকে দর্শনার্থীর সংখ্যা।
সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে শহীদদের ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন। এসময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ঐক্যফ্রন্ট নেতা আ স ম আব্দুর রবসহ কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছিলেন। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, দেশে স্বাধীনতা এলেও এখনও মানুষের মুক্তি আসেনি, মানুষের মুক্তির জন্য আমাদের আন্দোলন-সংগ্রাম অব্যাহত রাখতে হবে।
ড. কামাল আরও বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধে লাখ লাখ মানুষ জীবন দিয়েছেন। শহীদদের লক্ষ্য গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষ মতবাদ প‚রণ হয়নি। সেই লক্ষ্যপ‚রণে আমাদের কাজ করতে হবে। এজন্য আমরা দেশের মানুষকে নিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়েছি। তিনি বলেন, বিজয়ের মাসে শপথ নিতে হবে কোন জরবদস্তি, কোন লাঠিয়াল, সন্ত্রাসের ব্যবহার মেনে নেওয়া যাবে না। যারা রুগ্ন রাজনীতি করে তারাই জরবদস্তি, লাঠিয়াল বাহিনী, সন্ত্রাস, কালো টাকার ব্যবহার করে। স্বাধীন দেশে এগুলো মানা হবে না।
এদিকে জাতীয় স্মৃতিসৌধে সকালে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে ফুল দিয়ে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য আমরা যে ধরনের পরিবেশ চেয়েছিলাম তা এখনও পাইনি। বিজয়ের ৪৭ বছরে এসে আজ গণতন্ত্র কারারুদ্ধ। দেশনেত্রীর (খালেদা জিয়া) মুক্তির জন্য আমাদের আন্দোলন চলবে। তিনি আরো বলেন, দেশ একদিকে বিজয় দিবস পালন করছে, অন্যদিকে দেশে চলছে অত্যাচার, অনাচার, অন্যায়। একাদশ জাতীয় নির্বাচনে আমরা একটি গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য সুষ্ঠু পরিবেশ চেয়েছিলাম, যা এখনও পাইনি। অথচ দুই সপ্তাহ পর এই নির্বাচন হওয়ার কথা। আমাদের প্রার্থীদের এখনও গুলি করা হচ্ছে, প্রচারে নামতে দেওয়া হচ্ছে না, কর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেন, যতই অত্যাচার করা হোক দেশনেত্রীর মুক্তির আন্দোলন থেকে আমরা সরে আসবো না। আমাদের নেত্রীর মুক্তির আন্দোলন চলছে, চলবে। জনগণ ব্যালটের মাধ্যমে জবাব দিয়ে নেত্রীকে মুক্ত করবে বলেন তিনি।
ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. আখতারুজ্জামান। তিনি বলেন, আজ আমরা স্বাধীনতার ৪৮তম বছরেও আমরা অনেক কিছুই পাইনি এটা যেমন সত্যি তেমনি আরেকটি সত্যি হচ্ছে আমরা অনেক কিছু পেয়েছি।
পর্যায়ক্রমে জাতীয় স্মৃতিসৌধে বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে পু®পস্তবক অর্পন করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, শেরে বাংলানগর কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের, সরকারি কর্ম কমিশন, পাঠ্যপুস্তক বোর্ডের কর্মকর্তাগণ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান, মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম দল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেডিসি), বাংলাদেশ টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয়, সোনালী ব্যাংক, সচেতন নাগরিক কমিটি, বিআইডবিøউটিসি ওয়ার্কার্স ইউনিয়ন, আরকাইভস ও গ্রন্থাগার অধিদপ্তর, বাংলাদেশ জাতীয় যাদুঘর, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র, গণ বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ পশু সম্পদ গবেষনা প্রতিষ্ঠান (বিএলআরআই), বাংলাদেশ লোক-প্রশাসন প্রশিক্ষন কেন্দ্র (বিপিএটিসি), বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা চিকিৎসক পরিষদ, বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউট, শেখ হাসিনা জাতীয় যুব কেন্দ্র, সাভার প্রেসক্লাব, আশুলিয়া প্রেসক্লাব, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলাদেশ উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়, বাংলা একাডেমী, নজরুল ইন্সটিটিউট, জাতীয় শ্রমিক ফেডারেশন বাংলাদেশ, বাংলাদেশ গামের্ন্টস শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশন, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী, বাংলাদেশ ট্রেড ইউনিয়ন, জাতীয় সমাজ তান্ত্রিক দল (জাসদ), শ্রমিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ (স্কপ), কর্মজীবী নারী, বাংলাদেশ তৃনমুল গামের্ন্টস শ্রমিক ফেডারেশন, প্রশিকা মানবিক উন্নয়ন কেন্দ্র, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ঢাকা রিপোর্টাস ইউনিট, বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টাস এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষনা পরিষদ (বিসিএসআইআর), ঢাবি কর্মচারী সমিতি, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, টেকনিক্যাল এমপ্লয়ীজ এসোসিয়েশন, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল, গণফোরাম, বিমান শ্রমিক লীগ, ইঞ্জিনিয়াস ইনস্টিটিউট, বাংলঅদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইনান্স কর্পোরেশন, বঙ্গবন্ধু কৃষিবিদ পরিষদ, প্রবাসী কল্যান ব্যাংক, বঙ্গবন্ধু ফিসারিজ পরিষদ, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ (স্বাচিব), বঙ্গবন্ধু পরিষদ, জাতীয় বিদ্যুৎ শ্রমিক লীগ, বাংলাদেশ খৃষ্টান এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন সামাজিক ও রাজনৈতিক সংগঠন শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান।
এদিকে ঢাকা জেলা কমিউনিটি পুলিশের উদ্যোগে আমিনবাজার থেকে জাতীয় স্মৃতিসৌধ পর্যন্ত বিভিন্ন স্থানে বড় এলইডি প্রজেক্টর বসানো হয়েছে। এসব প্রজেক্টরের মাধ্যমে ১৯৪৭ থেকে ৭১ সালের উল্লেখযোগ্য ঘটনাপ্রবাহ দেখানো হয়।
চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, গণতান্ত্রিক শান্তির বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে নানা আয়োজনে মহান স্বাধীনতার ঘোষণার ঐতিহাসিক স্মৃতি বিজড়িত চট্টগ্রামে মহান বিজয় দিবস উদযাপন হয়েছে। বিজয় দিবসের র‌্যালি আর নানা আয়োজনে ছিল নৌকা-ধানের শীষের প্রচার। দিনের প্রথম প্রহরে শহীদ মিনার ও নগরীর ষোলশহরের বিপ্লব উদ্যানে বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক সংগঠন, সরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে একাত্তরের বীর শহীদদের শ্রদ্ধা জানানোর মধ্য দিয়ে শুরু হয় বিজয় দিবসের অনুষ্ঠান। নগর পুলিশের সদস্যরা সশস্ত্র অভিবাদন জানায় শহীদদের। শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকেও তিনি পুষ্পমাল্য অর্পণ করেন শহীদ মিনারে। এরপর বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল মান্নান, রেঞ্জ ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক, সিএমপি কমিশনার মাহাবুবর রহমান, জেলা প্রশাসক ইলিয়াছ হোসেনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এরপর বিভিন্ন সংগঠনের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য উন্মুক্ত করে দেওয়া হয় শহীদ মিনার। এমএ আজিজ স্টেডিয়ামে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে আয়োজন করা হয় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের কুচকাওয়াজ। বিএনপির উদ্যোগে বিপ্লব উদ্যানে পুস্তবক অর্পণ ও বিজয় র‌্যালি বের করা হয়। চট্টগ্রাম মহানগর তাঁতী লীগের উদ্যোগে এক বিজয় র‌্যালি নগরীর লালদীঘির পাড়, কোতোয়ালী, নিউ মার্কেট হয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে গিয়ে শেষ হয়। মহানগর আহবায়ক নুরুল আমিন মানিক ও সদস্য সচিব রত্মকর দাশ টুনুর নেতৃত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক, লায়ন দিলীপ ঘোষ, মো. রায়হান চৌধুরী, শ্রীপ্রকাশ দাশ অসিত প্রমুখ। ছিপাতলী জামেয়া গাউছিয়া মুঈনীয়া কামিল (এম.এ) মাদরাসার উদ্যোগে প্রিন্সিপাল আল্লামা আবুল ফরাহ মুহাম্মদ ফরিদ উদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন ভাইস প্রিন্সিপাল আল্লামা মুহাম্মদ আবদুল অদুদ আল্-কাদেরী, আল্লামা মোহাম্মদ শফিউল আলম নেজামী, আল্লামা একেএম ইউছুপ, মাওলানা মোহাম্মদ কামাল উদ্দিন, মাওলানা মোহাম্মদ শফিউল আলম আজিজি, মাওলানা মোহাম্মদ লোকমান চিশতী, মাওলানা মোহাম্মদ আবদুন নবী, অধ্যাপক মাহফুজুল হক প্রমুখ।
রাজশাহী ব্যুরো জানায়, বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে রাজশাহীতে বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়। দিবসটি উপলক্ষে ছিল নানা আয়োজন। রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনার, ভূবনমোহন পার্ক শহীদ মিনার, রাজশাহী কোট শদীহ মিনার থেকে শুরু করে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ শহীদ মিনার, বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনার সবখানেই মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে জড়ো হন। সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, বড় দুটি দল, বিভিন্ন সংগঠন থেকে শুরু করে নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ শহীদ মিনারে যান ফুল দিতে। রাজশাহী কলেজ শহীদ মিনারে সিটি মেয়র ও আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটনের নেতৃত্বে দলের নেতকর্মীরা পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এসময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার সকালে মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে নগরীতে বিজয় র‌্যালী বের করা হয়। এছাড়াও সাবেক মেয়র মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এসময় সাবেক সিটি মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলনসহ দলের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
বরিশাল ব্যুরো জানায়, যথাযথ মর্যাদা ও আনন্দ উৎসাহের মধ্যে দিয়ে মহান বিজয় দিবস বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের সর্বত্র পালিত হয়েছে। বরিশাল বিভাগীয় সদরে সকালে সূর্যোদয়ের সাথে জাতীয় পতাকা উত্তোল ও ৩১বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসটির সূচনা হয়। এর পরে সর্বস্তরের মানুষসহ বিভিন্ন সরকারি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি ফলকে পুস্পস্তবক অর্পনের মধ্যে দিয়ে শহীদদের স্মরণ করার হয়। বর্ধভূমি অভিমুখে পদযাত্রাসহ পস্পমাল্য অর্পন করেন সর্বস্তরের মানুষ। সকালে বরিশালে বঙ্গবন্ধু উদ্যানে আনুষ্ঠানিকভাবে পতাকা উত্তোলনসহ পুলিশ, আনসার, বিএনসিসি, বয়স্কাউটসহ বিভিন্ন শিশু কিশোর সংগঠনের কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত হয়। এ উপলক্ষে বরিশাল বন্দরে নৌবাহিনীর যুদ্ধ জাহাজ ‘বিএনএস মেঘনা’ সর্বস্তরের মানুষের প্রদর্শনের জন্য উন্মূক্ত রাখা হয়।
গোপালগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিজয় দিবসের শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। গতকাল রোববার সাকালে টুঙ্গিপাড়া পৌঁছে নেতৃবৃন্দ পুস্পস্তক অপর্ণ করে তার স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। নেতৃবৃন্দ বেদীর পাশে নীরবে দাঁড়িয়ে থাকার পর পবিত্র ফাতেহাপাঠ ও বঙ্গবন্ধুর রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মোনাজাত করেন। এ সময় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম এমপি, লেঃ কর্ণেল (অব.) মুহাম্মদ ফারুক খান, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব আলী খান, টুঙ্গিপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আব্দুল হালিম, সহ-সভাপতি মো. ইলিয়াস হোসেন সহ আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসনের পর একে একে পুলিশ সুপার মুহাম্মদ সাইদুর রহমান খান, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গোপালগঞ্জ জেলা ইউনিট, গোপালগঞ্জ শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জেলা আওয়ামী লীগ, টুঙ্গিপাড়া পৌরসভা, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, মহিলালীগ, স্বেচ্ছা সেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, যুব মহিলালীগ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর সমাধি সৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়।
গাজীপুর জেলা সংবাদদাতা জানান, যথাযোগ্য মর্যাদায় গতকাল গাজীপুরে মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। এ উপলক্ষে ভোরে সূর্যোদয়ের সাথে সাথে জেলা শহরের রাজবাড়ি মাঠে শহীদ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তক অর্পণ করেন গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের কমিশনার ওয়াই এম বেলালুর রহমান, জেলা প্রশাসক ড. দেওয়ান মুহাম্মদ হুমায়ূন কবীর, গাজীপুর জেলা পুলিশ সুপারের পক্ষে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুহাম্মদ রাসেল শেখ। এরপর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন, গাজীপুর প্রেসক্লাব, গাজীপুর জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক সংগঠনের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। পরে তারা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরালে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।
সাতক্ষীরা জেলা সংবাদদাতা জানান, নানা আয়োজনে সাতক্ষীরায় মহান বিজয় দিবস উৎযাপিত হয়েছে। সূর্যোদয়ের সাথে সাথে সকল সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সোয়া ৮ টায় সাতক্ষীরা স্টেডিয়ামে মুক্তিযোদ্ধাদের রুহের মাগফেরাত কামনায় মোনাজাত এবং পুলিশ, বিএনসিসিসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্র-ছাত্রীদের সমন্বয়ে কুচকাওয়াজ ও শরীর প্রর্দশনী এবং রক্তদান কর্মসচী অনুষ্ঠিত হয়। এরপর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান, পৌরদিঘীতে হাঁসধরা প্রতিযোগিতাসহ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে জেলা প্রশাসন।
ঝালকাঠি জেলা সংবাদদাতা জানান, ঝালকাঠিতে যথাযোগ্য মর্যাদা ও উৎসবমুখর পরিবেশে মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। সকালে মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে স্বাধীনতার অমর সৈনিকদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন জেলা প্রশাসক মো. হামিদুল হক। পরে বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সংগঠনের পক্ষ থেকেও শ্রদ্ধা জানানো হয়। পুলিশ সুপার মো. জোবায়েদুর রহমান, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সরদার মো. শাহ আলম, পৌরসভার মেয়র মোহাম্মদ লিয়াকত আলী তালুকদার, মুক্তিযোদ্ধা, সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, শিক্ষক, সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।
মেহেরপুরে জেলা সংবাদদাতা জানান, মেহেরপুরে সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা বিএনপির সভাপতি মাসুদ অরুনের নেতৃত্বে মেহেরপুর জেলা বিএনপি মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে শত শত নেতাকর্মী নিয়ে শোভাযাত্রা করেন। শোভাযাত্রাটি গতকাল সকাল মেহেরপুর জেলা বিএনপি অফিস প্রাঙ্গন থেকে বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে।
নাটোর জেলা সংবাদদাতা জানান, নাটোরে মহান বিজয় দিবস পালিত হচ্ছে। গতকাল ৩১ বার তোপধ্বনীর মধ্য দিয়ে দিবসটির সূচনা করা হয়। নাটোর শহরের মাদরাসা মোড়ে শহীদ স্মৃতি সৌধে সংসদ সদস্য শফিকুল ইসলাম শিমুলের নেতৃত্বে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন জেলা প্রশাসন। শহরের কান্দিভিটা জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলনসহ বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পন করেন দলের নেতাকর্মীরা।
রাজবাড়ী জেলা সংবাদদাতা জানান, রাজবাড়ীতে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। এসময় আহলাদীপুর হাইওয়ে থানার ওসি মোহাম্মদ মাসুদ পারভেজ, রাজবাড়ী সদর উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. সানাউল্লাহ বিশ্বাস, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক মো. ফজলুল হক, শহীদওহাবপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি শেখ ফরিদ আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক মো. শাহিন খান, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আজাদ খানসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ উপস্থিত থেকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন ।
গফরগাঁও উপজেলা সংবাদদাতা জানান, গফরগাঁও উপজেলায় বিপুল উৎসাহ-উদ্দীপনায় মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল ভোর ৩১বার তোপধ্বধনির মধ্যে দিয়ে দিবসের সুচনা ঘটে। পরে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একে একে পুস্পস্তর্বক অর্পন করে উপজেলা প্রশাসন, আওয়ামী লীগ, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, বিভিন্ন সামাজিক প্রতিষ্ঠান ও রাজনৈতিক দল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। বেলা উঠার সাথে সাথে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
বামনা (বরগুনা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, বরগুনার বামনায় মহান বিজয় দিবস পালিত হয়। সকালে পুষ্পমাল্য অর্পন শেষে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী, মুক্তিযোদ্ধা, আনসার ভিডিপির সদস্যরা ডিসপ্লে ও কুচকাওয়াজ প্রদর্শন করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলী হরির সভাপতিত্বে বিজয় দিবসের ভাষণ প্রধান করেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. সাইতুল ইসলাম লিটু এ সময় উপস্থিত ছিলেন।
চাটখিল (নোয়াখালী) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে প্রশাসনের উদ্যোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ পরিবারের সদস্যদের সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিদারুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সংবর্ধনা সভায় বক্তব্য রাখেন, নোয়াখালী জেলা মুজিব বাহিনীর প্রধান সাবেক এমপি মাহমুদুর রহমান বেলায়েত, নৌকার প্রার্থী এইচ,এম ইব্রাহিম এমপি, কুলা প্রতিকের প্রার্থী ব্যারিস্টার ওমর ফারুক, বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক গোলাম কিবরিয়া কায়কোবাদ প্রমুখ।
দাউদকান্দি (কুমিল্লা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, মহান বিজয় দিবস দাউদকান্দি উপজেলা প্রশাসন কর্তৃক আয়োজিত বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্যে দিয়ে পালন করা হয়। পুষ্পস্তবক অর্পন করেন মেজর জেনারেল (অব.) সুবিদ আলী ভূইয়া এমপি, সাবেক মন্ত্রী ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন দাউদকান্দি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মেজর মোহাম্মদ আলী সুমন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুব আলম, পৌর মেয়র নাইম ইউসুফ সেইন, প্যানেল মেয়র রকিব উদ্দিন, দাউদকান্দি মুক্তিযোদ্ধা সংসদ দাউদকান্দি মডেল থানা ও রাজনৈতিক নেতবৃন্দ।
দুপচাঁচিয়া (বগুড়া) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, দুপচাঁচিয়ায় গতকাল মহান বিজয় দিবস উদ্যাপিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দিবসটি পালনের কর্মসূচির মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনার পরপরই স্থানীয় স্মৃতি অ¤øানে পুস্পমাল্য অর্পন, সকল সরকারি বেসরকারি ভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, করা হয়।
ঈশ^রগঞ্জ (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষ্যে বাংলাদেশ ইসলামী আন্দোলন উপজেলা শাখার উদ্যোগে এক আলোচনা সভাও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার সকাল ১১টায় পৌর সদরের সরকারি কলেজ সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ে ওই সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
কাপাসিয়া (গাজীপুর) থেকে শামসুল হুদা লিটন জানান, কাপাসিয়ায় যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। কাপাসিয়া সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও থানা পুলিশের কুচকাওয়াজ এবং বিভিন্ন স্কুল কলেজের ছাত্র-ছাত্রীরা ডিসপ্লে প্রদর্শণ করেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোসা. ইসমত আরা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নীলিমা রায়হানা, সাবেক সংসদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্, থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক সহ প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা।
কয়রা (খুলনা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, কয়রায় বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। উপজেলা পরিষদ চত্বরে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিমুল কুমার সাহা। বক্তব্য রাখেন কয়রা থানা অফিসার ইনচার্জ তারক বিশ্বাস, উপজেলা কৃষি অফিসার এস এম মিজান মাহমুদ প্রমুখ।
মঠবাড়িয়া (পিরোজপুর) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, মঠবাড়িয়ায় যথাযথ মর্যাদায় ৪৭তম বিজয় দিবস পালিত হয়। দিবসটি উপলক্ষে দিনের প্রথম প্রহরে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা পরিষদ, পুলিশ প্রশাসন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাতীয় পার্টি, প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠান শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করেন।
মীরসরাই(চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, মীরসরাইয়ে মহান বিজয় দিবস উৎযাপন করা হয়। শহীদ মিনারে পুস্পস্তবক অর্পন করে মীরসরাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিন, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা চেয়ারম্যান ইয়াসমিন আক্তার কাকলী, সহকারি কমিশনার ভূমি কায়সার খসরু, সার্কেল এএসপি সার্কেল সামছুদ্দিন, মীরসরাই থানার ওসি জাহিদুল কবির সহ মীরসরাই উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন বিভাগের কর্মকর্তাগন।
নান্দাইল (ময়মনসিংহ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, নান্দাইল উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। কর্মসূচির মধ্যে ছিল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে স্থানীয় স্মৃতিসৌধে স্বাধীনতা যুদ্ধে নিহত শহীদের স্মরণে পুষ্পস্তবক অর্পণ, সকল সরকারী ও বেসরকারী প্রতিষ্ঠান সমূহে জাতীয় পতাকা উত্তোলন, স্থানীয় সরকারী শহীদস্মৃতি আদর্শ কলেজ মাঠে আনুষ্ঠানিক ভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন নান্দাইল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল মালেক চৌধুরী স্বপন।
পাকুন্দিয়া (কিশোরগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, পাকুন্দিয়ায় মহান বিজয় দিবস উদযাপিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকাল ৭টায় পাকুন্দিয়া ডিগ্রি কলেজের বিজয়স্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা প্রশাসন। পরে দলীয় ও সাংগঠনিক ব্যানারে সর্বস্তরের মানুষ বিজয়স্তম্ভে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এ সময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম রেনু, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোকলেসুর রহমান, পাকুন্দিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ ইলিয়াস মঞ্চে উপস্থিত থেকে অভিবাদন গ্রহণ করেন।
রাউজান (চট্টগ্রাম) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, রাউজান উপজেলা প্রশাসন ও শিল্পকলা একাডেমীর সার্বিক সহযোগীতায় ৪৭ তম মহান বিজয় দিবস পালিত হয়েছে রাউজানে। গতকাল রোববার সকাল থেকে সদরস্ত আর আর এসি সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে জাকজমক কর্মসূচীর মাধ্যমে বিজয় দিবস উদযাপন করাহয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম হোসেন রেজার সভাপতিত্বে কর্মসূচীতে প্রধান অথিতি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান একে এম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী।
রাবি সংবাদদাতা জানান, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বিজয় দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল দিবসের প্রথম প্রহরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনসহ বিভিন্ন পেশাজীবী ও সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন নিজ নিজ কর্মসূচি পালনের মাধ্যমে দিনটি উৎযাপন করে।
বাকৃবি সংবাদদাতা জানান, যথাযোগ্য মর্যাদা ও নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বাকৃবি) পালিত হয়েছে ৪৭ তম মহান বিজয় দিবস । গতকাল সূর্যোদয়ের সাথে সাথেই বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল হল এবং আবাসিক ভবন গুলোতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়।
সরাইল (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, সরাইলে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে গতকাল রোববার দিনব্যাপি নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে পালিত হয়েছে বিজয় দিবস।
সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, সিরাজদিখানে ব্যাপক আয়োজনে বিজয় দিবস উদযাপন করা হয়েছে। গতকাল সূর্যোদয়ের সাথে সাথে ৩১ বার তোপধ্বণি দিয়ে বিজয় দিবসের অনুষ্ঠানের সূচনা ও পরে শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে সুর্য সন্তানদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও দোয়া করা হয়।
সুন্দরগঞ্জ (গাইবান্ধা) উপজেলা সংবাদদাতা জানান, সুন্দরগঞ্জে যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান বিজয় দিবস উদ্যাপিত হয়েছে। গতকাল দিবসটি পালন উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসন, বিএনপি, আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, সাংস্কৃতিক জোট, পৃথক-পৃথক কর্মসূচির মাধ্যমে দিবসটি উদ্যাপন করে।



 

Show all comments
  • Zulfiqar Ahmed ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:২১ এএম says : 0
    বিএনপি এবং জামাতের স্বাধীনতা বিরোধী,মৌলবাদী জোটের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান নাহলে এত শহীদের রক্তের, ৭১ এর ধর্ষিতা মা বোনেদের ইজ্জতের মূল্য থাকবে না। এই বিএনপি রাজাকারদের পূর্নবাসন দিয়েছিল, মুজিব হত্যাকারীদের বিচার এর বিরুদ্ধে আইন করেছিল।
    Total Reply(0) Reply
  • Jasmin Akter Jui ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩২ এএম says : 0
    "এ কেমন বিজয়? কিসের বিজয়? কার বিজয়?" স্বাধীন দেশের পরতে পরতে আজ পরাধীনতার শৃঙ্খল
    Total Reply(0) Reply
  • আসফি আতা ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩২ এএম says : 0
    যে দিন এদেশে পুরন গনতন্ত্র ফিরে আসবে, সেই দিন এদেশের মানুষ বিজয় ফিরে পাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Md Arafatul karim ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৫ এএম says : 0
    মুজিবুর রহমানের ডাকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়ে একটি স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশের জন্ম দিল, তখন বঙ্গোপসাগরের কোলঘেঁষে জন্ম নেওয়া নবীনতম এই রাষ্ট্রের পরতে পরতে যুদ্ধ আর ধ্বংসের ক্ষতচিহ্ন! দারিদ্র্য ও অপুষ্টির ক্ষত নিয়ে ধুঁকতে থাকা মানুষের স্বপ্ন আরও ফিকে হয়ে যায় যখন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি কিসিঞ্জার এই রাষ্ট্রটিকে অভিহিত করেন ‘তলাবিহীন ঝুঁড়ি’ হিসেবে। সদ্য স্বাধীন দেশে ১৯৭২ সালে বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে প্রথম যে প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে সেখানে বাংলাদেশ নিয়ে হতাশার কথাই ছিল বেশি।
    Total Reply(0) Reply
  • Khasru ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৫ এএম says : 0
    Bangali knows how to celebrate the days. Then they forget to keep their promises for the country. This is the Bangladeshi culture and values.
    Total Reply(0) Reply
  • raju ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৬ এএম says : 0
    বিজয় দিবসে সবাইকে শুভেচ্ছা৷
    Total Reply(0) Reply
  • Mir Md Mofazzal Hossain ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৬ এএম says : 0
    বিজয় দিবসের শপথ হোক, ৭১- এর চেতনায় অপশক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন, রুখে দাড়াঁন । এদের প্রতিহত করুন না হলে ওরা এ দেশটাকে দুর্বৃত্তে রাশ্ট্রে পরিনত করবে।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৭ এএম says : 0
    আজ বিজয় দিবসে সকর বীর শহীদদের প্রতি রইলো আমার বিন্ম্র শ্রদ্ধা । আমরা তোমাদের ভুলি নাই ।
    Total Reply(0) Reply
  • রিদওয়ান বিবেক ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৭ এএম says : 0
    শ্রদ্ধা জানিয়ে আসলাম এবং গণতন্ত্রকে পুনঃপ্রতিষ্ঠিত করার শপথ নিলাম।
    Total Reply(0) Reply
  • নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১:৩৭ এএম says : 0
    মহান বিজয় দিবসের এই দিনে সকল শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা এবং জীবিত সকল মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সশ্রদ্ধ সম্মান।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিজয় দিবস

১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৭ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৬ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮
১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮

আরও
আরও পড়ুন