Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার ২৩ এপ্রিল ২০১৯, ১০ বৈশাখ ১৪২৬, ১৬ শাবান ১৪৪০ হিজরী।

গণতন্ত্র উন্নয়ন ও শান্তির জন্য ধানের শীষে ভোট দেয়া জনগণের নৈতিক দায়িত্ব- ড. মোশাররফ

কুমিল্লায় ১৪৪ ধারা জারী

চান্দিনা (কুমিল্লা) সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৪:৩৭ পিএম

কুমিল্লার হোমনা উপজেলা প্রশাসন হঠাৎ করে ১৪৪ ধারা জারীর মাধ্যমে চান্দেরচর ইউনিয়নের বাঘের বাজার ও রামকৃষ্ণপুরের বিএনপির পূর্বনির্ধারিত ২ টি সমাবেশ বন্ধ করে দিয়েছে। ফলে বক্তৃতা করতে পারেননি বিএনপি'র স্থায়ী কমিটির সিনিয়র সদস্য, কুমিল্লা-১ ও ২ আসনে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট-বিএনপি প্রার্থী ড.খন্দকার মোশাররফ হোসেন।
হোমনা উপজেলা বিএনপির আবেদনের প্রেক্ষিতে সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও ইউএনও বাঘের বাজার এবং রামকৃষ্ণপুরে সমাবেশ করার জন্য লিখিত অনুমতি দেন । অথচ স্থানীয় আ.লীগ একই স্থানে সমাবেশ করতে চায়, এই অজুহাতে ইউএনও আজ মঙ্গলবার পুরো চান্দেরচর ইউনিয়নে ১৪৪ ধারা জারি করেছে। এতে বিএনপি কোন সমাবেশ করতে পারেনি। ১৪৪ ধারা জারি করায় বিএনপি নেতারা অভিযোগ করেন, হোমনা সহকারী রিটার্নিং অফিসার নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন। তিনি আ.লীগের হয়ে কাজ করছেন। ইউএনও'র দ্বৈতনীতি এবং উদ্দেশ্যমূলক ভাবে ১৪৪ ধারা জারী করায় বিএনপি নেতা-কর্মীদের তীব্র ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। বিএনপির সমাবেশ এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করায় ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, সরকারের পক্ষপাতিত্ব আচরণে এটা পরিষ্কার যে, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য লেভেল পেলয়িং ফিল্ড তৈরী হয়নি। সুষ্ঠু নির্বাচন হবে কী-না ? জনগণ শংকিত। আজ মঙ্গলবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ড. মোশাররফ কুমিল্লা-২ আসনের হোমনা উপজেলার ঘাগুটিয়া ও দুলালপুর ইউনিয়নে সংযোগকালে দড়িরচর বাজার, দুলালপুর,মাধবপুর বাজার ও দৌলতপুরে স্থানীয় বিএনপি আয়োজিত পথসভায় বক্তৃতা করেন ।
তিনি বলেন, 'গণতন্ত্র, উন্নয়ন,শান্তি ও ভোটের অধিকার ফিরে পেতে ধানের শীষে ভোট দেয়া জনগণের নৈতিক দায়িত্ব। বিএনপি অতীতে জনগণের সাথে ছিল, বর্তমানেও আছে, ইনশাআল্লাহ আগামী দিনেও থাকবে। তিনি বলেন, বিএনপি এ দেশে বহুদলীয় গণতন্ত্র এবং উন্নয়ন-উৎপাদনের রাজনীতি প্রবর্তন করেছে। অন্যদিকে আ.লীগ যখনই ক্ষমতায় থাকে, গণতন্ত্র ধ্বংস করে এবং জনগণের সাংবিধানিক অধিকার কেড়ে নেয়। তাদের কাছে অতীতে গণতন্ত্র, মানুষের অধিকার ও জান-মাল সুরক্ষিত ছিল না, এখনও নেই এবং ভবিষ্যতেও থাকবেনা। বিএনপির নীতিনির্ধারক এই নেতা বলেন, দেশে সর্বত্র ধানের শীষের জোয়ার বইছে। ধানের শীষের প্রবল জনস্রোত দেখে সরকার চরম হতাশাগ্রস্ত। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নিশ্চিত বিজয় ছিনিয়ে নিতে তারা নানা অশুভ পাঁয়তারা করছে।
ড. মোশাররফ বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট ও ধানের শীষ জনগণের নির্ভরযোগ্য আশ্রয়স্থলরূপে আবির্ভূত হয়েছে। মানুষের আশা-আকাংখা পূরণে ধানের শীষের বিকল্প নেই। তাই দেশ ও জনগণের স্বার্থে সকল হুমকি-ধামকি উপেক্ষা করে ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য সকলকে দেশপ্রেমিকের ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে । তিনি সরকারের গণবিরোধী কর্মকান্ডের চিত্রের বর্ণনা দিয়ে বলেন, তারা দেশের অর্থনীতি ও গণতন্ত্র ধ্বংস করেছে। ব্যাংক লুট, দখলবাজি, চাঁদাবাজি, টেন্ডারবাজি ও ধান্ধাবাজি করে দেশকে অনেক পেছনে ঠেলে দিয়েছে । মানবাধিকার আজ ভুলুন্ঠিত। আইনের শাসন নেই, জান-মালের নিরাপত্তা নেই। মানুষ চরম হতাশায় দিন কাটাচ্ছে। যুবলীগ ও ছাত্রলীগ ক্যাডারদের মধ্যযুগীয় জুলুম-নির্যাতনে মানুষের মধ্যে বোবা-কান্না বিরাজমান। ধৈর্য্যের বাঁধ ভেঙ্গে গেছে। এইভাবে একটি দেশ চলতে পারে না ড.মোশাররফ 'উন্নয়ন ও শান্তির প্রতীক ' ধানের শীষে ভোট দিতে এবং গণনা পর্যন্ত ভোটকেন্দ্র পাহারা দিয়ে ভোট রক্ষার জন্য সর্বস্তরের জনগণের প্রতি উদাত্ত আহবান জানান। এই সময় উপস্থিত ছিলেন, কুমিল্লা উত্তর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মো.আক্তারুজ্জামান, হোমনা উপজেলা বিএনপি'র সাধারণ সম্পাদক এড. আজিজুর রহমান মোল্লা, হোমনা পৌর বিএনপির সভাপতি মো.মোজাম্মেল হক মুকুল প্রমূখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ