Inqilab Logo

বুধবার, ০৬ জুলাই ২০২২, ২২ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

আদালতের রায় উপেক্ষা করে জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ

প্রকাশের সময় : ৭ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

চাঁদপুর জেলা সংবাদদাতা
চাঁদপুরে হাইকোর্টের রায়ে ৩১ বছর পর ফিরে পাওয়া সম্পত্তি ফের ভূমিদস্যুরা দখল চেষ্টার খবর পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটে চাঁদপুর পৌরসভার ১০নং ওয়ার্ডের ট্রাক রোড সাবান ফ্যাক্টরি সংলগ্ন মোল্লা বাড়িতে। ক্ষতিগ্রস্তদের অভিযোগের প্রেক্ষিতে চাঁদপুর মডেল থানার এসআই জমির উদ্দিন ঘটনাস্থলে পরিদর্শন করে কালু মোল্লা ও রহমান মোল্লা গংদের স্থাপনা তৈরি না করার জন্য নির্দেশ দেন। সেই সাথে উভয় পক্ষকে তাদের সম্পত্তির কাগজপত্র নিয়ে আগামীকাল রোববার চাঁদপুর মডেল থানার হাজির হওয়ার অনুরোধ জানান। এ নিয়ে যে কোন মুহূর্তে ঘটতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। সরেজমিন ও অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, হাইকোর্টের রায়ে ৩১ বছর পর চলতি বছরের গত ৪ জানুয়ারি কালু মোল্লা ও রহমান মোল্লা গংদের দখলে থাকা সম্পত্তি মো. তাজুল ইসলাম গংদের বুঝিয়ে দেন সহকারী কমিশনার (ভূমি), জেলা জজ কোর্টের নাজির। কিন্তু দখল বুঝিয়ে দেয়ার ৪ মাস যেতে না যেতেই গত বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ভূমিদস্যু কালু মোল্লা ও রহমান মোল্লা গংরা ওই সম্পত্তির টিনের বাউন্ডারি ভেঙে নিয়ে পুনরায় অন্যায়ভাবে জবর দখল করে স্থাপনা নির্মাণ শুরু করে। উপায়ান্তর না পেয়ে মো. তাজুল ইসলামের ভাতিজা হাফেজ নূরে আলম বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় একটি অভিযোগ দাখিল করেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে এসআই জমির উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে নির্মাণ কাজ বন্ধ করে দেন। উভয় পক্ষকে সম্পত্তির কাগজপত্র নিয়ে আগামীকাল রোববার চাঁদপুর মডেল থানার হাজির হওয়ার জন্য আহ্বান জানান। হাইকোর্টের রায়ে আরো জানা যায়, ৬২২/২৯৫৬ দাগের মোট ১ একর ৬১ শতাংশের মধ্যে খরিদকৃত ২১ শতাংশের ওপর ৩১ বছর আগে মো. তাজুল ইসলাম বাদী হয়ে কালু মোল্লা ও রহমান মোল্লাকে বিবাদী করে নি¤œ আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। পরবর্তীতে এ মামলা নি¤œ আদালত থেকে জজকোর্ট ও হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়ায়। পরে হাইকোর্টের নির্দেশে সহকারী কমিশনার (ভূমি), জেলা জজ কোর্টের নাজির ওই সম্পত্তি বাদীকে বুঝিয়ে দেন। বাদী মরহুম মো. তাজুল ইসলামের পরিবারের সদস্য মো. বেলায়েত হোসেন ও আলম শামসরা সম্পত্তি বুঝে পেলেও ৪ মাস পর আবার ভূমিদস্যুরা দখলের চেষ্টা করে। এ নিয়ে মো. তাজুল ইসলামের পরিবার ভূমিদস্যুদের ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছে না। এ বিষয়ে তারা প্রশাসনের কাছে সুবিচার দাবি করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: আদালতের রায় উপেক্ষা করে জমি দখল চেষ্টার অভিযোগ
আরও পড়ুন