Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জানুয়ারি ২০১৯, ০৯ মাঘ ১৪২৫, ১৫ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

খালেদা জিয়ার প্রার্থিতা নিয়ে রিট খারিজ

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

প্রার্থিতা ফিরে পেতে বিএনপি চেয়ারর্পাসন খালেদা জিয়ার তিনটি রিট আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। গতকাল মঙ্গলবার বিচারপতি জে বি এম হাসানের একক বেঞ্চ আবেদন তিনটি খারিজ করে দেন। রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী জানিয়েছেন আবেদন খারিজ হওয়ার আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে খালেদা জিয়ার অংশগ্রহণের সুযোগ থাকল না। এছাড়াও সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের প্রতি অনাস্থা আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। এসময় রিটের শুনানি না করেই আদালত বর্জন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।
এর আগে সংশ্লিষ্ট বেঞ্চের প্রতি অনাস্থা জানিয়ে আবেদন করেছিলেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। খালেদা জিয়ার মনোনয়নের বৈধতা প্রশ্নে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চে বিভক্ত আদেশ হওয়ার পর এই একক বেঞ্চ গঠন করে দিয়েছিলেন প্রধান বিচারপতি। গত বৃহস্পতিবার শুনানি শুরু হলে খালেদার আইনজীবীরা বলেছিলেন, ন্যায়বিচার পাওয়া নিয়ে এ বেঞ্চের ওপর তাদের আস্থা নেই। এরপর বিচারক শুনানি মুলতবি রেখেছিলেন। আবার বিষয়টি বেঞ্চে উঠলে লিখিতভাবে অনাস্থা প্রকাশ করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।
আদালতে খালেদা জিয়ার আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল। নির্বাচন কমিশনের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম। এর আগে অনাস্থা জানিয়ে লিখিত আবেদন করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা। এরপর আদালত তাদের এই অনাস্থা আবেদন খারিজের আদেশ দেন এবং প্রার্থিতা চয়ে খালেদা জিয়ার রিটের ওপর শুনানি করতে বলেন।
এ পর্যায়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার বদরুদ্দোজা বাদল আদালতকে বলেন, আমরা এই কোর্টের ওপর অনাস্থা জানিয়েছি। আপনি আমাদের আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন। এখন আমরা এই আদেশের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ আদালতে যাবো। তা সত্তে¡ও রিটের শুনানি করতে বলছেন কেন? এরপর আদালত খালেদা জিয়ার রিট আবেদনের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলমকে শুনানি করতে বলেন। রাষ্ট্রপক্ষের বক্তব্য শুনে খারিজ করে দেন। রিট আবেদনের ওপর গত ১১ ডিসেম্বর দ্বিধাবিভক্ত আদেশ দেন হাইকোর্ট। এরপর মামলাটি শুনতে একক বেঞ্চ গঠন করে দেন প্রধান বিচারপতি। এই আদালতে খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা শুনানি করতে অনাস্থা প্রকাশ করলে আদালত তা লিখিতভাবে জমা দেয়ার নির্দেশ দেন। কিন্তু গত ১৭ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা জানান, এই কোর্টের ওপর তাদের অনাস্থা আবেদনপত্রটির এফিডেভিট করা সম্ভব হয়নি। এরপর আবেদনপত্রটির এফিডেভিট করতে আদালতে তারা সময় প্রার্থনা করলে আবেদনের শুনানি মুলতবি রাখা হয়। ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে তাকে ফেনী-১ এবং বগুড়া-৬ ও ৭ আসনে প্রার্থী করেছিল খালেদা জিয়া।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ