Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ জানুয়ারি ২০১৯, ০৭ মাঘ ১৪২৫, ১৩ জামাদিউল আউয়াল ১৪৪০ হিজরী

সরে দাঁড়ালেন সালাম নির্বাচনে অনড় সুমন

ময়মনসিংহ-৮ ও ৯ আসন

বিশেষ সংবাদদাতা, ময়মনসিংহ ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) আসনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী মেজর জেনারেল (অব:) আব্দুস সালাম অবশেষে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে তিনি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর কথা ঘোষণা দেন।

তবে নির্বাচনের মাঠ থেকে সরে যেতে কেন্দ্রের আল্টিমেটাম ও হুঁশিয়ারীকে আমলে না নিয়ে নির্বাচনী সিদ্ধান্তে অনড় রয়েছেন ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) আসনের আওয়ামী লীগের পদত্যাগী উপজেলা চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান সুমন। সিংহ প্রতীক নিয়ে তিনি শেষ পর্যন্ত নির্বাচনের মাঠে থাকবেন বলে জানিয়েছেন।
দলীয় সূত্র জানায়, ১৯৯৬ ও ২০০৮ সালে ময়মনসিংহ-৯ (নান্দাইল) আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন মেজর জেনারেল (অব:) আব্দুস সালাম। ঋণখেলাপীর কারণে ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে তিনি মনোনয়ন হারান। পরে সেখানে অটো এমপি হন আনোয়ারুল আবেদিন।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনেও দলীয় মনোনীত প্রার্থী হিসেবে আনোয়ারুল বহাল থাকার পর ক্ষেপে গিয়ে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মেজর জেনারেল (অব:) আব্দুস সালাম।
কিন্তু বিদ্রোহী প্রার্থীদের আজীবনের জন্য দল থেকে বহিস্কারের হুঁশিয়ারীতে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন। কিন্তু তিনি সরে গেলেও মার্কা হিসেবে ভোটে কুড়াল প্রতীক থেকেই যাচ্ছে।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে আব্দুস সালাম বলেন, ‘মাননীয় নেত্রী আমাকে যখন যে দায়িত্ব অর্পণ করেছেন, আমি নিষ্ঠার সাথে পালন করেছি। তার আদেশের অবাধ্য হওয়া বা তার জন্য ক্ষতিকর কোন কার্যে লিপ্ত হওয়া আমার পক্ষে কখনো সম্ভব নয়। তাই তার সিদ্ধান্তের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে আমি এখন থেকে আমার সকল নির্বাচনী কার্যক্রম বন্ধ ঘোষণা করলাম এবং বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্তের প্রতি একাত্ততা পোষণ করলাম।’
ময়মনসিংহ-৮ (ঈশ্বরগঞ্জ) আসনে মহাজোট থেকে এবারো মনোনয়ন পেয়েছেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম। কিন্তু এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান পদ থেকে পদত্যাগ করে বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন মাহমুদ হাসান সুমন।
এই প্রসঙ্গে মাহমুদ হাসান সুমন বলেন, ‘আওয়ামী লীগে আমার কোন পদ নেই। তাই আমি বিদ্রোহী প্রার্থী না, স্বতন্ত্র প্রার্থী। আমি নির্বাচন করবো।’



 

Show all comments
  • রিপন ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২:১৪ এএম says : 0
    ভোট কেন্দ্র ভোটের আগের দিন/রাত থেকে পাহারা দেয়া হবে। ভোটের বাক্স খালি কিনা তা দেখে ভোটারদের ভোট দেয়া শুরু হবে। পুলিশের সাহায্যে ডুপ্লিকেট ভোটের বাক্স ভুয়া আওয়ামী ভোট দিয়ে ভরা হবে, পরে আসল বাক্সের সাথে অদল বদল করা হবে। তাই খালি বাক্সের প্রতি সেকেন্ডে নজর রাখতে হবে - ড. কামাল
    Total Reply(0) Reply
  • Raju Habib ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২:১৭ এএম says : 0
    ভালো কাজ
    Total Reply(0) Reply
  • Ahmed June ১৯ ডিসেম্বর, ২০১৮, ২:১৭ এএম says : 0
    Normal Practices Before Election
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ সংক্রান্ত আরও খবর
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ