Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অক্টোবর ২০১৯, ০৮ কার্তিক ১৪২৬, ২৪ সফর ১৪৪১ হিজরী

শতাধিক একাউন্ট মুছে দিয়েছে ফেসবুক

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগসূত্র থাকার অভিযোগ

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০৪ এএম

ফেসবুকে শতাধিক একাউন্ট ব্যবহার করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনী রোহিঙ্গাদের ওপর হামলায় ব্যবহার করতো। সেনাবাহিনীর সঙ্গে যোগসূত্র থাকায় এমন শতাধিক একাউন্ট ও কয়েক শত পেজ বাতিল করেছে ফেসবুক কর্তৃপক্ষ। এ খবর দিয়েছে বার্তা সংস্থা এএফপি। এতে বলা হয়, গত বছর ওই সব একাউন্ট এবং এর বাইরে আরো কিছু একাউন্ট ব্যবহার করে রাখাইনে রোহিঙ্গা শরণার্থীদের ওপর নৃশংসতা চালায় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী। এতে বাধ্য হয়ে কমপক্ষে ৭ লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গা পালিয়ে আশ্রয় নিতে বাধ্য হন। ফেসবুকে মিয়ানমারের এমন কর্মকান্ডকে পরিকল্পিত দুর্ব্যবহার হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়েছে। এ নিয়ে তৃতীয়বার মিয়ানমার কেন্দ্রিক ফেসবুক ব্যবহারের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিল ফেসবুক। বুধবার ফেসবুক কর্তৃপক্ষ এ ঘোষণা দিয়েছে। তারা বলেছে, যেসব একাউন্ট ও পেজ ব্যবহার করা হচ্ছিল মিয়ানমারে তার সঙ্গে গোপন যোগসাজশ ছিল সেনাবাহিনীর। এমন পেজ ও একাউন্ট মুছে দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, ফেসবুক ঘৃণাপ্রসূত বক্তব্য ও মিথ্যা তথ্য ছড়িয়ে দেয়া নিয়ন্ত্রণে ব্যর্থ হওয়ার জন্য এমন ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। এরই মধ্যে ফেসবুকে অনেক অনিয়মের কারণে এর নির্বাহী পরিচালক মার্ক জাকারবার্গের পদত্যাগ দাবি করা হয়েছে। এএফপি লিখেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক মিয়ানমারে সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় ও প্রভাবশালী সাইট। বছরের পর বছর ধরে এতে বিদ্বেষপরায়ণ পোস্ট, বিশেষ করে দেশটির রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে পোস্ট দিয়ে উত্তেজনা সৃষ্টি করা হয়েছে। কিন্তু সে বিষয়ে কার্যকর কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। ওই উত্তেজনা গত বছর নতুন এক চরম আকার ধারণ করে। ওই সময় মিয়ানমারের সেনাবাহিনী নৃশংসতা চালায় রোহিঙ্গাদের ওপর। রাষ্ট্রহীন এসব মানুষের সঙ্গে চরম অমানবিক আচরণের কারণে তারা পালিয়ে চলে আসতে বাধ্য হন। বুধবার ফেসবুক বলেছে, তারা এমন সম্পর্কযুক্ত ৪২৫ পেজ, ১৭টি গ্রুপ, ১৩৫টি একাউন্ট এবং ১৫টি ইন্সটাগ্রাম একাউন্ট মুছে দিয়েছে। এসব পেজ বা গ্রুপ নিজেদেরকে নিরপেক্ষ সংবাদ, বিনোদন, বিউটি ও লাইফস্টাইল পেজ হিসেবে আখ্যায়িত করে যাচ্ছিল। কিন্তু মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর সঙ্গে তাদের যোগসূত্র আছে। এ বছর মিয়ানমারের যেসব মানুষকে ফেসবুক ব্যবহারে বøাকলিস্টে রাখা হয়েছে তার মধ্যে রয়েছে উগ্র কট্টরপন্থি জাতীয়তাবাদী বৌদ্ধ ভিক্ষু। এমনকি দেশটির সেনাবাহিনীর শীর্ষ জেনারেলরা। তাদেরকে গণহত্যার দায়ে অভিযুক্ত করেছেন জাতিসংঘের তদন্তকারীরা। রয়টার্স, এএফপি।



 

Show all comments
  • Mohammed Kowaj Ali khan ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১০:০৮ এএম says : 0
    রোহিঙ্গারা রাস্ট্রহীন নয় ওদের রাস্ট্র আরকান। আরকান হইতে বারমার খোনী বৌদ্ধদেরকে এবং খোনী বারমার চেনাবাহীনিকে উস্টাইয়া বাহির করিয়া দেওয়া হোক। আমার হাতে ক্ষমতা হইলে অথবা যে দিন হইবে আমি বারমার বৌদ্ধ শয়তানদেরকে ধরিয়া বান্দিয়া উস্টাইবো। ইনশাআল্লাহ। *********
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ফেসবুক


আরও
আরও পড়ুন