Inqilab Logo

ঢাকা, বুধবার , ১১ ডিসেম্বর ২০১৯, ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১৩ রবিউস সানি ১৪৪১ হিজরী

বেতন বৈষম্যের অভিযোগ তুলে সাভার ও আশুলিয়ায় বেশ কয়েকটি কারখানায় শ্রমিক অসন্তোষ

সাভার থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৪:১৫ পিএম | আপডেট : ১১:৫৮ এএম, ২১ ডিসেম্বর, ২০১৮

নতুন বেতন কাঠামোতে বৈষম্যের অভিযোগ তুলে সাভার ও আশুলিয়ায় বেশ কয়েকটি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে। পরে অবস্থার বেগতিক দেখে কয়েকটি কারখানা সাধারন ছুটি ঘোষনা করে কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার সাভারের হেমায়েতপুর বাগবাড়ি এলাকার স্টান্ডার্ড গ্রুপের তিনটি কারখানা, বার্ডস গ্রুপের একটিসহ আশুলিয়া ছয়তলা থেকে শিমুলতলা পর্যন্ত কয়েকটি কারখানায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ করে। এরমধ্যে হেমায়েতপুরে বিক্ষোভরত শ্রমিকদের পুলিশ ধাওয়া করে সরিয়ে দিয়েছে।
শ্রমিকরা জানায়, বেতন বৈষম্যের অভিযোগ তুলে সকাল থেকে হেমায়েতপুরের স্ট্যার্ডাড গ্রুপের শামস স্টাইলস ওয়্যারস লিমিটেড পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কারখানার সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে শ্রমিকরা ডার্ড গ্রুপের দীপ্ত এ্যাপারেলন্স কারখানায় ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। এসময় ওই কারখানার শ্রমিকদের সাথে মালিকপক্ষের ব্যাপক সংঘর্ষ হলে কয়েকজন শ্রমিক আহত হয়।
পরে শ্রমিকরা বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পাশবর্তী পাইওনিয়ার গ্রুপের ম্যাক্সকম গার্মেন্টস ইটপাটকেল নিক্ষেপ করলে পুলিশ ধাওয়া দিলে সংঘর্ষ বাধে।
স্টান্ডার্ড গ্রুপের সুলতানা বেগম ও রফিকসহ একাধিক শ্রমিকরা বলেন, নতুন বেতন কাঠামোতে বৈষম্য রয়েছে। নতুন এই কাঠামোতে পুরতান শ্রমিকরা বৈষম্যের স্বীকার হচ্ছে। তাই শ্রমিকরা ক্ষুব্ধ হয়ে বিক্ষোভ দেখায়।
এদিকে শ্রমিক বিক্ষোভ ঠেকাতে হেমায়েতপুর এলাকার, ষ্ট্যান্ডার গার্মেন্টস, ব্যাবিলোন, যমুনা গার্মেন্টস, ভারটেক্স, ডাট গার্মেন্টস, এজিআই পলো গার্মেন্টস, আমান নিটিং গার্মেন্টস, কিসেন লেদার, ম্যাক্সকম গার্মেন্টসসহ বেশ কয়েকটি কারখানা সাধারন ছুটি ঘোষনা করলে শ্রমিকরা চলে যায়।

অন্যদিকে একই দাবিতে আশুলিয়ার ছয় তলা এলাকা থেকে শিমুল তলা পর্যন্ত ৫/৬টি পোশাক কারখানায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ দেখায়। পরে তারা সড়কে বের হলে পুলিশ তাদের সড়িয়ে দেয়।
গামের্ন্টস শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারন সম্পাদক খাইরুল মামুন মিন্টু বলেন, সব গ্রেডেই বেতন বেড়েছে। কোন বৈষম্য নেই, শ্রমিকদের বুঝানো হয়েছে তবুও তারা কেন হঠাৎ করে বিক্ষোভ করেছে তা বুঝতে পারছিনা।
তিনি বলেন, আশুলিয়ার ছয়তলা থেকে শিমুলতলা পর্যন্ত অধিকাংশ কারখানার শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে। পরে কর্তৃপক্ষ বিশৃঙ্খলা এড়াতে কারখানা ছুটি ঘোষনা করে।
এছাড়া সাভারের হেমায়েতপুরেও কয়েকটি কারখানায় শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছে বলে শ্রমিক সংগঠনের এ নেতা জানান।
আশুলিয়া শিল্প পুলিশের পরিচালক সানা সামিনুর রহমান শামিম বলেন, শ্রমিকরা বেতন বৈষম্যের অভিযোগ তুলে কারখানার সামনে স্থানীয় সড়কে নেমে আসে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে শ্রমিকদের সড়িয়ে দেয়। এছাড়াও যে কোন অপ্রিতীকর পরিস্থিতি এড়াতে ওইসব এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করে রাখা হয়েছে বলেও তিনি জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন