Inqilab Logo

ঢাকা মঙ্গলবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২১, ০৫ মাঘ ১৪২৭, ০৫ জামাদিউস সানী ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

যশোর বোর্ডে জেএসসিতে জিপিএ-৫ কমেছে অর্ধেক

যশোর ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৪ ডিসেম্বর, ২০১৮, ৩:৫৫ পিএম

জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) পরীক্ষায় যশোর শিক্ষাবোর্ডে পাসের হার ৮৪ দশমিক ৬১ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ২৫৬ জন। যা গত বছরের তুলনায় অর্ধেক কমেছে। তবে পাসের হার বেড়েছে। গত বছর পাসের হার ছিল ৮৩ দশমিক ৪২ শতাংশ ছিল। সোমবার দুপুরে প্রেসক্লাব যশোর মিলনায়তনে ফলাফল ঘোষণা করেন বোর্ডের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক প্রফেসর মাধব চন্দ্র রুদ্র। তিনি জানান, এবার জেএসসি পরীক্ষায় চতুর্থ বিষয়ের নম্বর যোগ হয়নি। এজন্য জিপিএ-৫ প্রাপ্তির সংখ্যা কমেছে। তবে ছেলে ও মেয়েদের পাসের হার বেড়েছে। গড় পাসের হারও বেড়েছে।
প্রকাশিত ফলাফলে দেখা গেছে, চলতি বছর ২ লাখ ৩৫ হাজার ৮২২ জন পরীক্ষার্থী অংশ নেন। এদের মধ্যে ১ লাখ ৯৯ হাজার ৫৩৬ জন উত্তীর্ণ হয়েছে। জিপিএ-৫ পেয়েছে ৭ হাজার ২৫৬ জন। এ গ্রেডে ৩২ হাজার ৪৩৮ জন, এ মাইনাস গ্রেডে ২৮ হাজার ৭৭১ জন, বি গ্রেডে ৪০ হাজার ৬৪৭ জন, সি গ্রেডে ৭৭ হাজার ৭৭৩ জন ও ডি গ্রেডে ১২ হাজার ৬৯১ জন উত্তীর্ণ হয়েছে।
পরিসংখ্যান বলছে, ২০১৭ সালে পাসের হার ৮৩ দশমিক ৪২ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছিল ১৪ হাজার ৬১২জন। ২০১৬ সালে পাসের হার ছিল ৯৫ দশমিক ৩৫ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছিল ২২ হাজার ৩ জন। ২০১৫ সালে পাসের হার ৯৫ দশমিক ৪৪ শতাংশ। জিপিএ ৫ পেয়েছিল ১৭ হাজার ৮৩১জন। তিন বছরের ব্যবধানে প্রায় তিনগুণ জিপিএ ৫ কমেছে। আর পাসের হার কমেছে প্রায় ১১ শতাংশ।
চলতি বছর শতভাগ পাস করেছে ২৭৬টি প্রতিষ্ঠানে। যা ২০১৭ সালে ২৮১টি, ২০১৬ সালে ৯৯৯টি ও ২০১৫ সালে ৮২৬টি প্রতিষ্ঠান। এবার মোটেই পাস করেনি ১টি প্রতিষ্ঠানে। সেটি হলো সাতক্ষীরার তালা উপজেলার মিঠাবাড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়।
পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক মাধব চন্দ্র রুদ্র সাংবাদিকদের বলেন, সংখ্যায় জিপিএ-৫ কমলেও মেধা বিবেচনায় বেশি শিক্ষার্থী পাস করেছে। ছাত্র ও ছাত্রীদের পাসের হার বেড়েছে। এজন্য গড় ফলাফল বেড়েছে গতবারের তুলনায়। গণিত ভীতির কারণে বেশি ফেল করেছে এই বিষয়ে। গণিতে পাসের হার ৮৮ দশমিক ১২ শতাংশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন