Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২০ অক্টোবর ২০১৯, ০৪ কার্তিক ১৪২৬, ২০ সফর ১৪৪১ হিজরী

বেলা ১১টায় ব্যালট সঙ্কটে ভোট বন্ধ হয়ে যায়

আগের রাতেই বাক্সে ঢোকানোর অভিযোগ, বগুড়ায় পুনঃতফসিল দাবি মান্নার

বগুড়া ব্যুরো : | প্রকাশের সময় : ৩১ ডিসেম্বর, ২০১৮, ১২:০২ এএম

বগুড়ার ৭টি সংসদীয় আসনের ৫টিরই মহাজোট ব্যতীত সব প্রার্থী ভোটের আগের রাতে (শনিবার) অভিযোগ করেছেন বিভিন্ন কেন্দ্রে ভোটের বাক্সে সিল মারা ব্যালট ঢোকানো হয়েছে। ভোট চলাকালে গতকাল বেলা দুইটায় বগুড়ার একটি হোটেলে আনুষ্ঠানিকভাবে বগুড়া-২ সংসদীয় আসনে পুনঃনির্বাচন দাবি করেছেন ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী জাতীয় নেতা মাহমুদুর রহমান মান্না। 

তিনি দাবি করেন, বগুড়া-২ (শিবগঞ্জ) আসনের অধিকাংশ কেন্দ্রেই আগের রাতে ভোটের বাক্সে সিল মারা ব্যালট পেপার ভরা হতে থাকে। রাতে এই খবর পাওয়ার পর দলের নেতাকর্মী ও এলাকাবাসী ভোট কেন্দ্রগুলোতে উপস্থিত হওয়ার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা এলাকাবাসীকে হটে যেতে বাধ্য করে। তারপরও সকাল থেকেই ভোটাররা ভোট কেন্দ্রগুলোতে উপস্থিত হতে থাকলে ব্যাপকভাবে ককটেল ফাটিয়ে ত্রাস সৃষ্টি করা হয়। সন্ত্রাসীদের বাধা উপেক্ষা করে মানুষ ভোট দিতে চাইলে পুলিশ ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে ত্রাস সৃষ্টি করে। বেলা ১১টার পর থেকে বিভিন্ন সেন্টারের ব্যালট শেষ হয়ে যাওয়ায় কার্যত ভোট সেন্টারগুলোর ভোটিং বন্ধ হয়ে যায়। তাই আমি এই আসনে ভোট বর্জন নয় বরং পুনঃতফসিল ঘোষণার দাবি জানাচ্ছি।
সংবাদ সম্মেলনে তার সাথে উপস্থিত ছিলেন তার প্রধান নির্বাচন সমন্বয়কারী এবিএম কামাল সেলিম, জেলা বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল বাসেত অ্যাডভোকেট।
পৃথকভাবে বগুড়া-৫ সংসদীয় আসনের ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী জিএম সিরাজ, বগুড়া-১ সংসদীয় আসনের প্রার্থী কাজি রফিকুল ইসলাম, বগুড়া-৪ সংসদীয় আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী হিরো আলম, বগুড়া-৩ আসনের স্বতন্ত্রপ্রার্থী আফজাল হোসেন নয়ন একই ধরনের অভিযোগ করেছেন। সবাই বলেছেন এবার ভোটে যা হল তা কল্পনাকেও হার মানিয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় সংসদ নির্বাচন

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ