Inqilab Logo

ঢাকা, রোববার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৮ আশ্বিন ১৪২৫, ১২ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

লন্ডনের সব নাগরিক সমান সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবে

প্রকাশের সময় : ৯ মে, ২০১৬, ১২:০০ এএম

ইনকিলাব ডেস্ক : অধিকতর ভালো একটি লন্ডন গড়ে তুলতে নিজের সর্বোচ্চ ক্ষমতা কাজে লাগাবেন বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করছেন শহরটির সদ্য নির্বাচিত এবং প্রথম মুসলিম মেয়র সাদিক খান। গত শনিবার মেয়র হিসেবে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। যুক্তরাজ্যের লন্ডন শহরের সাউথওয়ার্ক গির্জায় শপথ নেন সাদিক খান। তিনি বলেন, মাই নেম ইজ সাদিক খান, আই অ্যাম দ্য মেয়র অব লন্ডন বলে শপথ পরবর্তী বক্তব্য শুরু করেন তিনি। চার মিনিটের বক্তব্যে তাকে ভোট দেয়ার জন্য সবাইকে অভিনন্দন জানান এবং বলেন লন্ডনবাসীর কাছে আমি কৃতজ্ঞ।
যুক্তরাজ্যের লেবার দলের পক্ষ থেকে নির্বাচিত সাদিক খান বলেন, তিনি চান লন্ডনের সব নাগরিক সমান সুযোগ-সুবিধা ভোগ করবে। নির্বাচনের সময় কনজারভেটিভ দলের প্রার্থী জ্যাক গোল্ডস্মিথের পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিয়ে ব্রিটিশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী মাইকেল ফ্যালন বলেছিলেন, সবার জন্য সমান সুবিধা নিশ্চিত করা অসম্ভব। ওই কথার জবাবে সবার জন্য সমান সুযোগের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন তিনি।
নির্বাচনী প্রচারণার সময় সাদিক খানের বিরুদ্ধে চরমপন্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ থাকার অভিযোগও করা হয়। তবে সবকিছু ছাপিয়ে নিজের বিজয়টা নিশ্চিত করেছেন তিনি এবং প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী জ্যাক স্মিথের চেয়ে ১৩.৬ শতাংশ বেশি ভোট পেয়েছেন। গত আট বছর ধরে রক্ষণশীলদের দখলে ছিল লন্ডন সিটি করপোরেশন কার্যালয় সিটি হল। স্কটল্যান্ডের নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর থেকে রাজনীতির মাঠে অবস্থা ভালো যাচ্ছেলো না লেবার পার্টির। এ অবস্থায় তার বিজয় দলের একটি বড় ধরনের সুখবর বয়ে এনেছে। লন্ডন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রথম মুসলিম হিসেবে জয় পান পাকিস্তান বংশোদ্ভূত সাদিক খান। তিনি শুধু লন্ডনেরই নয়, পুরো ইউরোপের প্রথম কোনো মুসলিম মেয়র। দক্ষিণ লন্ডনে তার জন্ম এবং সেখানেই তিনি বেড়ে ওঠেন। ১৯৭০ সালে পাকিস্তানে জন্ম নেয়া সাদিক খানের বাবা দেশটির একজন বাসচালক ছিলেন। রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।